০৯:৪৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ফরিদপুরে আধুনিক কৃষি প্রযুক্তির মাধ্যমে ভূট্টা উৎপাদনে কৃষক সমাবেশ

মাহবুব পিয়াল, ফরিদপুরঃ ইউএসএআইডি এর আর্থিক সহায়তায় ও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদ্প্তর এর সহযোগিতায় আর্ন্তজাতিক ভূট্টা ও গম উন্নয়ন কেন্দ্র সিমিট-ফরিদপুরের উদ্যোগে মঙ্গলবার (২৮ নভেম্বর) ফরিদপুর সদর উপজেলার নর্থ চ্যানেল ইউনিয়নে ভূট্টা উৎপাদনের উপর কৃষক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সময় ও অর্থ সাশ্রয়ী বীজ বপন যন্ত্রের মাধ্যমে সারিতে ভূট্টা উৎপাদনের বিভিন্ন দিক নিয়ে কৃষক সমাবেশে উদ্বোধনী বক্তব্য রাখেন সিমিট-বাংলাদেশ, ফরিদপুর অঞ্চলের সমন্বয়কারী কৃষিবিদ মো. জাকারিয়া হাসান।

নর্থ চ্যানেল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ¦ মো. মোফাজ্জেল হোসেন এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কৃষক সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর ফরিদপুর অঞ্চলের অতিরিক্ত পরিচালক কৃষিবিদ মো. হারুনুর রশীদ।

এ সময় কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, ফরিদপুরের উপ পরিচালক কৃষিবিদ মো. রফিকুল ইসলাম, বাংলাদেশ কৃষি গবেষনা ইনস্টিটিউট, ফরিদপুর এর প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা, ড. মোঃ সেলিম আহমেদ, ফরিদপুর সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ আনোয়ার হোসেন, এসডিসি এর নির্বাহী পরিচালক কাজী আশরাফুল হাসান, নর্থ চ্যানেল ইউনিয়ন পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান জাহিদ হাসান বক্তব্য রাখেন।

প্রধান অতিথির বক্তৃতায় কৃষিবিদ মোঃ হারুনুর রশীদ, কৃষি যান্ত্রীকিকরনে সিমিটের উদ্যোগের প্রশংসা করেন এবং বলেন, যান্ত্রীকিকরন ছাড়া কৃষিকে এগিয়ে নেওয়া যাবে না। তিনি যান্ত্রিকীকরনের মাধ্যমে ফসল উৎপাদনের জন্য কৃষকদের প্রতি আহবান জানান। সমাবেশে সময় ও অর্থ সাশ্রয়ী বীজ বপন যন্ত্রের মাধ্যমে সারিতে ভূট্টা বপনের প্রযুক্তি সরেজমিনে উপস্থিত কৃষকদেরকে দেখানো হয় এবং তাদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেয়া হয়। কৃষকগন কম খরচে কৃষি যন্ত্রপাতি ব্যবহারের মাধ্যমে ফসল চাষে আগ্রহী হন।

সমাবেশে শতাধিক কৃষক-কৃষানী, স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ এবং কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর ও সিমিট-বাংলাদেশের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। বৈরী আবহাওয়া এবং শ্রমিক সংকটের কারনে সংরক্ষণশীল কৃষি প্রযুক্তি সম্প্রসারনে সিমিট-বাংলাদেশ ফরিদপুর অঞ্চলে কৃষি গবেষণা ও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর এর সাথে সমন্বয় করে দীর্ঘদিন কাজ করে যাচ্ছে। ফলে এলাকায় কৃষি যান্ত্রিকীকরণে অভূতপূর্ণ সাড়া পাওয়া গেছে কৃষকের মাঠ পর্যয়ে।

ট্যাগঃ
রিপোর্টারের সম্পর্কে জানুন

Rajbari Mail

জনপ্রিয় পোস্ট

গোয়ালন্দ উপজেলা চেয়ারম্যান কাপ ক্রিকেট টুর্নামেন্টের ফাইনাল

ফরিদপুরে আধুনিক কৃষি প্রযুক্তির মাধ্যমে ভূট্টা উৎপাদনে কৃষক সমাবেশ

পোস্ট হয়েছেঃ ০৫:৫৮:০৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৯ নভেম্বর ২০২৩

মাহবুব পিয়াল, ফরিদপুরঃ ইউএসএআইডি এর আর্থিক সহায়তায় ও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদ্প্তর এর সহযোগিতায় আর্ন্তজাতিক ভূট্টা ও গম উন্নয়ন কেন্দ্র সিমিট-ফরিদপুরের উদ্যোগে মঙ্গলবার (২৮ নভেম্বর) ফরিদপুর সদর উপজেলার নর্থ চ্যানেল ইউনিয়নে ভূট্টা উৎপাদনের উপর কৃষক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সময় ও অর্থ সাশ্রয়ী বীজ বপন যন্ত্রের মাধ্যমে সারিতে ভূট্টা উৎপাদনের বিভিন্ন দিক নিয়ে কৃষক সমাবেশে উদ্বোধনী বক্তব্য রাখেন সিমিট-বাংলাদেশ, ফরিদপুর অঞ্চলের সমন্বয়কারী কৃষিবিদ মো. জাকারিয়া হাসান।

নর্থ চ্যানেল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ¦ মো. মোফাজ্জেল হোসেন এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কৃষক সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর ফরিদপুর অঞ্চলের অতিরিক্ত পরিচালক কৃষিবিদ মো. হারুনুর রশীদ।

এ সময় কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, ফরিদপুরের উপ পরিচালক কৃষিবিদ মো. রফিকুল ইসলাম, বাংলাদেশ কৃষি গবেষনা ইনস্টিটিউট, ফরিদপুর এর প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা, ড. মোঃ সেলিম আহমেদ, ফরিদপুর সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ আনোয়ার হোসেন, এসডিসি এর নির্বাহী পরিচালক কাজী আশরাফুল হাসান, নর্থ চ্যানেল ইউনিয়ন পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান জাহিদ হাসান বক্তব্য রাখেন।

প্রধান অতিথির বক্তৃতায় কৃষিবিদ মোঃ হারুনুর রশীদ, কৃষি যান্ত্রীকিকরনে সিমিটের উদ্যোগের প্রশংসা করেন এবং বলেন, যান্ত্রীকিকরন ছাড়া কৃষিকে এগিয়ে নেওয়া যাবে না। তিনি যান্ত্রিকীকরনের মাধ্যমে ফসল উৎপাদনের জন্য কৃষকদের প্রতি আহবান জানান। সমাবেশে সময় ও অর্থ সাশ্রয়ী বীজ বপন যন্ত্রের মাধ্যমে সারিতে ভূট্টা বপনের প্রযুক্তি সরেজমিনে উপস্থিত কৃষকদেরকে দেখানো হয় এবং তাদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেয়া হয়। কৃষকগন কম খরচে কৃষি যন্ত্রপাতি ব্যবহারের মাধ্যমে ফসল চাষে আগ্রহী হন।

সমাবেশে শতাধিক কৃষক-কৃষানী, স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ এবং কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর ও সিমিট-বাংলাদেশের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। বৈরী আবহাওয়া এবং শ্রমিক সংকটের কারনে সংরক্ষণশীল কৃষি প্রযুক্তি সম্প্রসারনে সিমিট-বাংলাদেশ ফরিদপুর অঞ্চলে কৃষি গবেষণা ও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর এর সাথে সমন্বয় করে দীর্ঘদিন কাজ করে যাচ্ছে। ফলে এলাকায় কৃষি যান্ত্রিকীকরণে অভূতপূর্ণ সাড়া পাওয়া গেছে কৃষকের মাঠ পর্যয়ে।