১১:৪১ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রাজবাড়ীতে বিশ্ব পরিবেশ দিবস উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজবাড়ীঃ ‘করবো ভূমি পুনরুদ্ধার, রুখবো মরুময়তা, অর্জন করতে হবে মোদের খরা সহনশীলতা’ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে রাজবাড়ীতে বিশ্ব পরিবেশ দিবস পালিত হয়েছে। বুধবার সকাল ১০টায় জেলা প্রশাসনের আয়োজনে সম্মেলন কক্ষে বিশ্ব পরিবেশ দিবস উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

জেলা প্রশাসক আবু কায়সার খানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোঃ ইফতেখারুজ্জামান, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি হেদায়েত আলী সোহরাব, পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপবিভাগীয় প্রকৌশলী মোঃ আশরাফুল আলম, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ আব্দুল জলিল মাষ্টার।

এ সময় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মহুয়া শারমিন ফাতেমা, জেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ হাবিবুর রহমান, জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে সিনিয়র সহকারী কমিশনার মোঃ কামরুল হাসান মারুফসহ জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে কর্মকর্তা ও পরিবেশ অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ ইফতেখার আহমেদ।

সভাপতির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক আবু কায়সার খান বলেন, পরিবেশ দূষণ ও পানির অপচয় রোধে সবাইকে সচেতন হতে হবে। ইটভাটার কালো ধোঁয়া পরিবেশ দূষণ করছে। একইভাবে আমরা যে খড়ি ও গাছের পাতা পুড়ি রান্না করছি-সেটাও পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর। কৃষকরা অনেক ক্ষেত্রে প্রয়োজনের অতিরিক্ত রাসায়নিক সার জমিতে ব্যবহার করছে। এতে পরিবেশ দূষিত হচ্ছে। দিন দিন ভূ-গর্ভস্থ পানির স্তর অনেক নীচে নেমে যাচ্ছে। এ জন্য পানির অপচয় রোধ করতে হবে। পরিবেশের ভারসাম্য বজায় রাখতে হবে। আমাদের সকলকে পরিবেশ দূষণ রোধ করে কিভাবে পরিবেশ সংরক্ষণ করা যায় সেসব বিষয় নিয়ে সরকারের পাশাপাশি সকলকে সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হবে। যাতে আমরা সকলে আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য একটি সুন্দর স্বাস্থ্যসম্মত বিশ্ব রেখে যেতে পারি।

তিনি বলেন, আমাদের সকলের উচিত আজকের শ্লোগান ও প্রতিপাদ্য বিষয়ের উপর আরো সচেতনতা বৃদ্ধির মাধ্যমে পরিবেশ দূষণ রোধে কাজ করা। আসলে আমাদের পরিবেশ দূষণ শুরু হয় আমাদের বাড়ী থেকে। তারপর সমাজ, এরপর পর্যায়ক্রমে রাষ্ট্র ও বিশ্বে। পরিবেশ সংরক্ষণ করার জন্য আমাদের বাড়ীর আবর্জনা নির্দিষ্ট স্থানে ফেলা, পলিথিন ব্যাগ ব্যবহার না করা, নিজের যতটুকু জায়গা আছে সেখানে গাছ লাগানো, কৃষি জমিতে কীটনাশক ব্যবহার না করাসহ বিভিন্ন ভাবে আমরা পরিবেশ সংরক্ষণ করতে পারি। আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে পরিবেশ দূষণ ও সংরক্ষণ সম্পর্কে করণীয় বিষয়ে সচেতন করে তোলার মাধ্যমে আমরা পরিবেশকে আরো সুন্দর করতে পারি।

ট্যাগঃ
রিপোর্টারের সম্পর্কে জানুন

Rajbari Mail

গোয়ালন্দে ছাত্রলীগের বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত, কমিটি ঘোষণা হবে প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে

রাজবাড়ীতে বিশ্ব পরিবেশ দিবস উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা

পোস্ট হয়েছেঃ ০৬:১৪:০২ অপরাহ্ন, বুধবার, ৫ জুন ২০২৪

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজবাড়ীঃ ‘করবো ভূমি পুনরুদ্ধার, রুখবো মরুময়তা, অর্জন করতে হবে মোদের খরা সহনশীলতা’ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে রাজবাড়ীতে বিশ্ব পরিবেশ দিবস পালিত হয়েছে। বুধবার সকাল ১০টায় জেলা প্রশাসনের আয়োজনে সম্মেলন কক্ষে বিশ্ব পরিবেশ দিবস উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

জেলা প্রশাসক আবু কায়সার খানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোঃ ইফতেখারুজ্জামান, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি হেদায়েত আলী সোহরাব, পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপবিভাগীয় প্রকৌশলী মোঃ আশরাফুল আলম, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ আব্দুল জলিল মাষ্টার।

এ সময় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মহুয়া শারমিন ফাতেমা, জেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ হাবিবুর রহমান, জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে সিনিয়র সহকারী কমিশনার মোঃ কামরুল হাসান মারুফসহ জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে কর্মকর্তা ও পরিবেশ অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ ইফতেখার আহমেদ।

সভাপতির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক আবু কায়সার খান বলেন, পরিবেশ দূষণ ও পানির অপচয় রোধে সবাইকে সচেতন হতে হবে। ইটভাটার কালো ধোঁয়া পরিবেশ দূষণ করছে। একইভাবে আমরা যে খড়ি ও গাছের পাতা পুড়ি রান্না করছি-সেটাও পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর। কৃষকরা অনেক ক্ষেত্রে প্রয়োজনের অতিরিক্ত রাসায়নিক সার জমিতে ব্যবহার করছে। এতে পরিবেশ দূষিত হচ্ছে। দিন দিন ভূ-গর্ভস্থ পানির স্তর অনেক নীচে নেমে যাচ্ছে। এ জন্য পানির অপচয় রোধ করতে হবে। পরিবেশের ভারসাম্য বজায় রাখতে হবে। আমাদের সকলকে পরিবেশ দূষণ রোধ করে কিভাবে পরিবেশ সংরক্ষণ করা যায় সেসব বিষয় নিয়ে সরকারের পাশাপাশি সকলকে সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হবে। যাতে আমরা সকলে আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য একটি সুন্দর স্বাস্থ্যসম্মত বিশ্ব রেখে যেতে পারি।

তিনি বলেন, আমাদের সকলের উচিত আজকের শ্লোগান ও প্রতিপাদ্য বিষয়ের উপর আরো সচেতনতা বৃদ্ধির মাধ্যমে পরিবেশ দূষণ রোধে কাজ করা। আসলে আমাদের পরিবেশ দূষণ শুরু হয় আমাদের বাড়ী থেকে। তারপর সমাজ, এরপর পর্যায়ক্রমে রাষ্ট্র ও বিশ্বে। পরিবেশ সংরক্ষণ করার জন্য আমাদের বাড়ীর আবর্জনা নির্দিষ্ট স্থানে ফেলা, পলিথিন ব্যাগ ব্যবহার না করা, নিজের যতটুকু জায়গা আছে সেখানে গাছ লাগানো, কৃষি জমিতে কীটনাশক ব্যবহার না করাসহ বিভিন্ন ভাবে আমরা পরিবেশ সংরক্ষণ করতে পারি। আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে পরিবেশ দূষণ ও সংরক্ষণ সম্পর্কে করণীয় বিষয়ে সচেতন করে তোলার মাধ্যমে আমরা পরিবেশকে আরো সুন্দর করতে পারি।