০৭:৪২ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

গোয়ালন্দে ছাত্রদল নেতা সবুজের ওপর হামলায় অভিযুক্ত নেতাকে অব্যাহতি

নিজস্ব প্রতিবেদক, গোয়ালন্দঃ সাংগঠনিক শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে কেন্দ্রীয় সংসদের সিদ্ধান্তে রাজবাড়ী জেলা শাখা ছাত্রদলের যুগ্ম-আহ্বায়ক মো. শাহরিয়ার আদনান নূর ইসলামকে সাংগঠনিক পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের সভাপতি রাকিবুল ইসলাম রাকিব ও সাধারণ সম্পাদক নাছির উদ্দিন নাছির এর সিদ্ধান্ত মোতাবেক সোমবার রাতে দপ্তর সম্পাদক মো. জাহাঙ্গীর আলম (সহ-সভাপতি পদমর্যাদা) স্বাক্ষরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে বিষয়টি জানানো হয়।

দলীয় সূত্র জানায়, গত শুক্রবার (২৪ মে) রাজবাড়ী জেলা শহরে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে দলীয় কর্মী সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। ওই সম্মেলন চলাকালে চেয়ারে বসা এবং দলীয় শ্লোগান দেয়াকে কেন্দ্র করে জেলা ছাত্রদলের যুগ্ম-আহ্বায়ক মো. শাহরিয়ার আদনান নূর ইসলামের সাথে স্থানীয় কয়েকজন কর্মীর মধ্যে প্রথমে বাকবিতন্ডা ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার জের ধরে গোয়ালন্দ উপজেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক শেখর আহম্মেদ ওরফে সবুজ সরদারকে সন্দেহ করে। সম্মেলন শেষে বিকেলে দলীয় কর্মীদের বিদায় দিয়ে বাসযোগে একাই গোয়ালন্দের বাড়ি ফিরছিল সবুজ সরদার।

সবুজের পরিবার ও দলীয় সূত্র জানায়, গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনে শাহরিয়ার আদনান নূর ইসলামের নেতৃত্বে তার কর্মীবাহিনী দৌলতদিয়া ঘাটগামী একাধিক পরিবহনে সবুজের সন্ধানে তল্লাশি চালায়। পরবর্তীতে একটি লোকাল বাসে সবুজকে পেলে বাস থেকে টেনে হেঁচরে নামিয়ে বেদম মারপিট করে গুরুতর জখম করে ফেলে যায়। স্থানীয় লোকজন সবুজকে উদ্ধার করে প্রথমে গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। কর্তব্যরত চিকিৎসক অবস্থা বেগতিক দেখে ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করে। অবস্থার অবনতি হওয়ায় শুক্রবার রাতেই সেখান থেকে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করে। শনিবার ভোরে সবুজের মাথায় অস্ত্রপচার করলেও জ্ঞান ফিরে না আসায় হাসপাতালের নিবির পরিচর্যাকেন্দ্রে (আইসিইউ) রাখা হয়েছে। ৭২ ঘন্টা পর্যবেক্ষনের সময় পার হলেও এখনো উন্নতি না হওয়ায় দুশ্চিন্তায় সময় পার করছে পরিবার।

গোয়ালন্দ উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি রেজাউল হাসান মিঠুন অভিযুক্ত ছাত্রদল নেতা শাহরিয়ার আদনান নূর ইসলামকে সাংগঠনিক পদ থেকে অব্যাহতি প্রদানের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, শাহরিয়ার আদনান নূর ইসলামের বাড়ি গোয়ালন্দের দেবগ্রাম ইউনিয়নে। গুরুতর আহত শেখর আহম্মেদ ওরফে সবুজ সরদার শান্ত প্রকৃতির ছেলে। বর্তমানে সে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউতে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। ব্যক্তিগত দ্বন্দের জের ধরে সবুজের ওপর এ ধরনের ন্যাক্কারজনক হামলা চালানো হয়েছে। তিনি এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও দায়ীদের উপযুক্ত শাস্তি দাবী করেন।

ট্যাগঃ
রিপোর্টারের সম্পর্কে জানুন

Rajbari Mail

গোয়ালন্দে ছাত্রলীগের বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত, কমিটি ঘোষণা হবে প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে

গোয়ালন্দে ছাত্রদল নেতা সবুজের ওপর হামলায় অভিযুক্ত নেতাকে অব্যাহতি

পোস্ট হয়েছেঃ ০৭:১৮:০০ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৯ মে ২০২৪

নিজস্ব প্রতিবেদক, গোয়ালন্দঃ সাংগঠনিক শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে কেন্দ্রীয় সংসদের সিদ্ধান্তে রাজবাড়ী জেলা শাখা ছাত্রদলের যুগ্ম-আহ্বায়ক মো. শাহরিয়ার আদনান নূর ইসলামকে সাংগঠনিক পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের সভাপতি রাকিবুল ইসলাম রাকিব ও সাধারণ সম্পাদক নাছির উদ্দিন নাছির এর সিদ্ধান্ত মোতাবেক সোমবার রাতে দপ্তর সম্পাদক মো. জাহাঙ্গীর আলম (সহ-সভাপতি পদমর্যাদা) স্বাক্ষরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে বিষয়টি জানানো হয়।

দলীয় সূত্র জানায়, গত শুক্রবার (২৪ মে) রাজবাড়ী জেলা শহরে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে দলীয় কর্মী সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। ওই সম্মেলন চলাকালে চেয়ারে বসা এবং দলীয় শ্লোগান দেয়াকে কেন্দ্র করে জেলা ছাত্রদলের যুগ্ম-আহ্বায়ক মো. শাহরিয়ার আদনান নূর ইসলামের সাথে স্থানীয় কয়েকজন কর্মীর মধ্যে প্রথমে বাকবিতন্ডা ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার জের ধরে গোয়ালন্দ উপজেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক শেখর আহম্মেদ ওরফে সবুজ সরদারকে সন্দেহ করে। সম্মেলন শেষে বিকেলে দলীয় কর্মীদের বিদায় দিয়ে বাসযোগে একাই গোয়ালন্দের বাড়ি ফিরছিল সবুজ সরদার।

সবুজের পরিবার ও দলীয় সূত্র জানায়, গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনে শাহরিয়ার আদনান নূর ইসলামের নেতৃত্বে তার কর্মীবাহিনী দৌলতদিয়া ঘাটগামী একাধিক পরিবহনে সবুজের সন্ধানে তল্লাশি চালায়। পরবর্তীতে একটি লোকাল বাসে সবুজকে পেলে বাস থেকে টেনে হেঁচরে নামিয়ে বেদম মারপিট করে গুরুতর জখম করে ফেলে যায়। স্থানীয় লোকজন সবুজকে উদ্ধার করে প্রথমে গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। কর্তব্যরত চিকিৎসক অবস্থা বেগতিক দেখে ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করে। অবস্থার অবনতি হওয়ায় শুক্রবার রাতেই সেখান থেকে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করে। শনিবার ভোরে সবুজের মাথায় অস্ত্রপচার করলেও জ্ঞান ফিরে না আসায় হাসপাতালের নিবির পরিচর্যাকেন্দ্রে (আইসিইউ) রাখা হয়েছে। ৭২ ঘন্টা পর্যবেক্ষনের সময় পার হলেও এখনো উন্নতি না হওয়ায় দুশ্চিন্তায় সময় পার করছে পরিবার।

গোয়ালন্দ উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি রেজাউল হাসান মিঠুন অভিযুক্ত ছাত্রদল নেতা শাহরিয়ার আদনান নূর ইসলামকে সাংগঠনিক পদ থেকে অব্যাহতি প্রদানের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, শাহরিয়ার আদনান নূর ইসলামের বাড়ি গোয়ালন্দের দেবগ্রাম ইউনিয়নে। গুরুতর আহত শেখর আহম্মেদ ওরফে সবুজ সরদার শান্ত প্রকৃতির ছেলে। বর্তমানে সে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউতে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। ব্যক্তিগত দ্বন্দের জের ধরে সবুজের ওপর এ ধরনের ন্যাক্কারজনক হামলা চালানো হয়েছে। তিনি এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও দায়ীদের উপযুক্ত শাস্তি দাবী করেন।