০৪:৪৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

 বিস্কুট কিনে আর বাড়ি ফেরা হলো না শিশু নুসরাতের

মইনুল হক, গোয়ালন্দ, রাজবাড়ীঃ বিস্কুট কেনার বায়না ধরে দাদার কাছ থেকে টাকা নিয়ে বাড়ির কাছে মুদি দোকানে যায় পাঁচ বছর বয়সী শিশু নুসরাত জাহান (৫)। বিস্কুট কিনে বাড়ি ফেরার পথে ব্যাটারি চালিত অটোরিকশা চাপায় গুরুতর আহত অবস্থায় শিশুটিকে হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। দুর্ঘটনাটি ঘটে শনিবার বিকেলে। নুসরাত রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার উজানচর ইউনিয়নের সৌদি প্রবাসী বাচ্চু মোল্যার মেয়ে।

নিহত শিশুটির পরিবার জানায়, গতকাল শনিবার (৬ জুলাই) বিকেলে শিশু নুসরাত জাহান বিস্কুট খাওয়ার জন্য দাদা নিজাম ফকিরের কাছে বায়না ধরে। ওই টাকা নিয়ে বাড়ির কাছে গোয়ালন্দ বাজার-দৌলতদিয়া ঘাট আঞ্চলিক পাকা সড়ক সংলগ্ন বাংলালিঙ্ক মোবাইল টাওয়ারের কাছে মুদি দোকানে যায়। বিস্কুট কিনে হাঁটতে হাঁটতে বাড়ি ফিরছিল নুসরাত। রাস্তা পার হওয়ার সময় দৌলতদিয়া থেকে আসা গোয়ালন্দ বাজারগামী ব্যাটারি চালিত অটোরিকশা চাপা দিলে গুরুতর আহত হয় শিশুটি। স্থানীয় লোকজন ওই অটোরিকশায় তাকে নিয়ে যায় গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে। জরুরি বিভাগে কর্মরত চিকিৎসা কর্মকর্তা মো. জাহাঙ্গীর আলম শিশুটিকে মৃত ঘোষণা করেন। চিকিৎসা কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম জানান, হাসপাতালে আনার আগেই শিশুটির মৃত্যু হয়েছে।

নুসরাতের ফুপাতো ভাই, স্যানেটারি মিস্ত্রি সাইদুল ইসলাম জানান, বাচ্চু মোল্যা এক বছর ধরে সৌদি আরব থাকেন। বাড়িতে বাবা-মা, স্ত্রী ও দুই কন্যা সন্তান রেখে যান। দুই কন্যার মধ্যে নুসরাত জাহান ছোট। মায়ের অগোচরে দাদার কাছ থেকে টাকা নিয়ে একাই বাড়ির অদূরে বাংলালিঙ্ক টাওয়ার সংলগ্ন ইমরানের মুদি দোকানে যায়। বিস্কুট কিনে ফেরার পথে আফজাল শেখের অটোরিকশার নিচে চাপা পড়ে। ওই অটোরিকশায় করে হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক নুসরাতের মৃত ঘোষণা করেন। মৃত্যুর খবর পেয়ে অটোরিকশা চালক আফজাল হাসপাতাল থেকে পালিয়ে যায়। বিনা ময়না তদন্তে আবেদনের পর রাত ৮টার দিকে নুসরাতের লাশ বাড়ি এনে গোসল করানো হয়েছে। রাত সাড়ে ১০টায় জানাযা শেষে স্থানীয় হাজী গফুর মন্ডল পাড়া কবরস্থানে দাফন করা হয়।

গোয়ালন্দ ঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রাণবন্ধু চন্দ্র বিশ্বাস জানান, অটোরিকশা চাপায় নিহত শিশু নুসরাতের লাশ বিনা ময়নাতদন্তের জন্য পরিবার আবেদন করে। পরিবারের কোন অভিযোগ না থাকায় বিনা ময়নাতদন্তের প্রেক্ষিতে দাফনের জন্য লাশ রাতেই পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

ট্যাগঃ
রিপোর্টারের সম্পর্কে জানুন

Rajbari Mail

জনপ্রিয় পোস্ট

বালিয়াকান্দি উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি সোহেল ও সম্পাদক কামরুল পুনরায় নির্বাচিত

 বিস্কুট কিনে আর বাড়ি ফেরা হলো না শিশু নুসরাতের

পোস্ট হয়েছেঃ ০৮:৪৬:২৪ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ৮ জুলাই ২০২৪

মইনুল হক, গোয়ালন্দ, রাজবাড়ীঃ বিস্কুট কেনার বায়না ধরে দাদার কাছ থেকে টাকা নিয়ে বাড়ির কাছে মুদি দোকানে যায় পাঁচ বছর বয়সী শিশু নুসরাত জাহান (৫)। বিস্কুট কিনে বাড়ি ফেরার পথে ব্যাটারি চালিত অটোরিকশা চাপায় গুরুতর আহত অবস্থায় শিশুটিকে হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। দুর্ঘটনাটি ঘটে শনিবার বিকেলে। নুসরাত রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার উজানচর ইউনিয়নের সৌদি প্রবাসী বাচ্চু মোল্যার মেয়ে।

নিহত শিশুটির পরিবার জানায়, গতকাল শনিবার (৬ জুলাই) বিকেলে শিশু নুসরাত জাহান বিস্কুট খাওয়ার জন্য দাদা নিজাম ফকিরের কাছে বায়না ধরে। ওই টাকা নিয়ে বাড়ির কাছে গোয়ালন্দ বাজার-দৌলতদিয়া ঘাট আঞ্চলিক পাকা সড়ক সংলগ্ন বাংলালিঙ্ক মোবাইল টাওয়ারের কাছে মুদি দোকানে যায়। বিস্কুট কিনে হাঁটতে হাঁটতে বাড়ি ফিরছিল নুসরাত। রাস্তা পার হওয়ার সময় দৌলতদিয়া থেকে আসা গোয়ালন্দ বাজারগামী ব্যাটারি চালিত অটোরিকশা চাপা দিলে গুরুতর আহত হয় শিশুটি। স্থানীয় লোকজন ওই অটোরিকশায় তাকে নিয়ে যায় গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে। জরুরি বিভাগে কর্মরত চিকিৎসা কর্মকর্তা মো. জাহাঙ্গীর আলম শিশুটিকে মৃত ঘোষণা করেন। চিকিৎসা কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম জানান, হাসপাতালে আনার আগেই শিশুটির মৃত্যু হয়েছে।

নুসরাতের ফুপাতো ভাই, স্যানেটারি মিস্ত্রি সাইদুল ইসলাম জানান, বাচ্চু মোল্যা এক বছর ধরে সৌদি আরব থাকেন। বাড়িতে বাবা-মা, স্ত্রী ও দুই কন্যা সন্তান রেখে যান। দুই কন্যার মধ্যে নুসরাত জাহান ছোট। মায়ের অগোচরে দাদার কাছ থেকে টাকা নিয়ে একাই বাড়ির অদূরে বাংলালিঙ্ক টাওয়ার সংলগ্ন ইমরানের মুদি দোকানে যায়। বিস্কুট কিনে ফেরার পথে আফজাল শেখের অটোরিকশার নিচে চাপা পড়ে। ওই অটোরিকশায় করে হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক নুসরাতের মৃত ঘোষণা করেন। মৃত্যুর খবর পেয়ে অটোরিকশা চালক আফজাল হাসপাতাল থেকে পালিয়ে যায়। বিনা ময়না তদন্তে আবেদনের পর রাত ৮টার দিকে নুসরাতের লাশ বাড়ি এনে গোসল করানো হয়েছে। রাত সাড়ে ১০টায় জানাযা শেষে স্থানীয় হাজী গফুর মন্ডল পাড়া কবরস্থানে দাফন করা হয়।

গোয়ালন্দ ঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রাণবন্ধু চন্দ্র বিশ্বাস জানান, অটোরিকশা চাপায় নিহত শিশু নুসরাতের লাশ বিনা ময়নাতদন্তের জন্য পরিবার আবেদন করে। পরিবারের কোন অভিযোগ না থাকায় বিনা ময়নাতদন্তের প্রেক্ষিতে দাফনের জন্য লাশ রাতেই পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়।