০৪:৩৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রাজবাড়ীতে সাংবাদিকদের সর্বজনীন পেনশন স্কিম সম্পর্কে অবহিতকরণ সেমিনার

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজবাড়ীঃ রাজবাড়ী জেলায় কর্মরত প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় সাংবাদিকদের নিয়ে সর্বজনীন পেনশন স্কিম সম্পর্কে অবহিতকরণ সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে।শনিবার জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জেলা প্রশাসনের আয়োজনে এ সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে।

জেলা প্রশাসক আবু কায়সার খানের সভাপতিত্বে সেমিনারে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) সিদ্ধার্থ ভৌমিক, সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট অংকন পাল, সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোল্লা ইফতেখার আহমেদ, রাজবাড়ী প্রেসক্লাবের সভাপতি এ্যাড. খান মো. জহুরুল হক, সাধারণ সম্পাদক খন্দকার আব্দুল মতিন, রাজবাড়ী রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি হেলাল মাহমুদ, সাধারণ সম্পাদক মো. শিহাবুর রহমানসহ জেলায় কর্মরত গণমাধ্যমকর্মীরা।

সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সিনিয়র সহকারী কমিশনার মো. কামরুল হাসান মারুফ। সেমিনারে আলোচকরা বলেন, সর্বজনীন পেনশন স্কিমে ১৮ থেকে ৫০ বছর বয়সী একজন সুবিধাভোগী ৬০ বছর বয়স পর্যন্ত এবং ৫০ বছরের ঊর্ধ্ব বয়স্ক একজন সুবিধাভোগী ন্যূনতম ১০ বছর চাঁদা প্রদান সাপেক্ষে আজীবন পেনশন সুবিধা ভোগ করবেন। বিদেশে কর্মরত বা অবস্থানকারী যেকোনো বাংলাদেশি কর্মীরাও এই স্কিমে অংশগ্রহণ করতে পারবেন।

জেলা প্রশাসক আবু কায়সার খান বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণমানুষের নেত্রী, জাতির পিতার কন্যা।তিনি প্রত্যেক মানুষ নিয়ে দেশটাকে এগিয়ে নিয়ে যেতে চাচ্ছে। আমাদের দেশের কোন মানুষ যেনো পেছনে পড়ে না থাকে এটা প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশ্য। এজন্য তিনি পেনশন স্কিম শুরু করেছেন। যার মধ্যে একসময় আমরাও আসবো। এরমধ্যে দিয়ে একই প্যাটানে একই রকমভাবে সার্বজনীন পেনশন চলবে। একজন মানুষের ৬০ বছর বয়স হয়ে গেলে যখন তার আয় উপার্জন কমে যাবে বা থাকবে না, তখন সে তার সন্তান কিংবা অন্যকারো মুখাপেক্ষী না হয়। পেনশন স্কিম দিয়ে নিজেরটা দিয়ে নিজে চলতে পারে এবং ভরনপোষণ চালাতে পারে সেই চিন্তা করে রাষ্ট্র এই পেনশন স্কিম চালু করেছে। আমরা এ বিষয়ে নিজেরাও জানার চেষ্টা করি এবং অন্যকেও এ বিষয়ে সম্পৃক্ত করবো।

ট্যাগঃ
রিপোর্টারের সম্পর্কে জানুন

Rajbari Mail

জনপ্রিয় পোস্ট

বালিয়াকান্দি উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি সোহেল ও সম্পাদক কামরুল পুনরায় নির্বাচিত

রাজবাড়ীতে সাংবাদিকদের সর্বজনীন পেনশন স্কিম সম্পর্কে অবহিতকরণ সেমিনার

পোস্ট হয়েছেঃ ০৬:৫৩:৪৮ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৩০ জুন ২০২৪

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজবাড়ীঃ রাজবাড়ী জেলায় কর্মরত প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় সাংবাদিকদের নিয়ে সর্বজনীন পেনশন স্কিম সম্পর্কে অবহিতকরণ সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে।শনিবার জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জেলা প্রশাসনের আয়োজনে এ সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে।

জেলা প্রশাসক আবু কায়সার খানের সভাপতিত্বে সেমিনারে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) সিদ্ধার্থ ভৌমিক, সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট অংকন পাল, সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোল্লা ইফতেখার আহমেদ, রাজবাড়ী প্রেসক্লাবের সভাপতি এ্যাড. খান মো. জহুরুল হক, সাধারণ সম্পাদক খন্দকার আব্দুল মতিন, রাজবাড়ী রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি হেলাল মাহমুদ, সাধারণ সম্পাদক মো. শিহাবুর রহমানসহ জেলায় কর্মরত গণমাধ্যমকর্মীরা।

সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সিনিয়র সহকারী কমিশনার মো. কামরুল হাসান মারুফ। সেমিনারে আলোচকরা বলেন, সর্বজনীন পেনশন স্কিমে ১৮ থেকে ৫০ বছর বয়সী একজন সুবিধাভোগী ৬০ বছর বয়স পর্যন্ত এবং ৫০ বছরের ঊর্ধ্ব বয়স্ক একজন সুবিধাভোগী ন্যূনতম ১০ বছর চাঁদা প্রদান সাপেক্ষে আজীবন পেনশন সুবিধা ভোগ করবেন। বিদেশে কর্মরত বা অবস্থানকারী যেকোনো বাংলাদেশি কর্মীরাও এই স্কিমে অংশগ্রহণ করতে পারবেন।

জেলা প্রশাসক আবু কায়সার খান বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণমানুষের নেত্রী, জাতির পিতার কন্যা।তিনি প্রত্যেক মানুষ নিয়ে দেশটাকে এগিয়ে নিয়ে যেতে চাচ্ছে। আমাদের দেশের কোন মানুষ যেনো পেছনে পড়ে না থাকে এটা প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশ্য। এজন্য তিনি পেনশন স্কিম শুরু করেছেন। যার মধ্যে একসময় আমরাও আসবো। এরমধ্যে দিয়ে একই প্যাটানে একই রকমভাবে সার্বজনীন পেনশন চলবে। একজন মানুষের ৬০ বছর বয়স হয়ে গেলে যখন তার আয় উপার্জন কমে যাবে বা থাকবে না, তখন সে তার সন্তান কিংবা অন্যকারো মুখাপেক্ষী না হয়। পেনশন স্কিম দিয়ে নিজেরটা দিয়ে নিজে চলতে পারে এবং ভরনপোষণ চালাতে পারে সেই চিন্তা করে রাষ্ট্র এই পেনশন স্কিম চালু করেছে। আমরা এ বিষয়ে নিজেরাও জানার চেষ্টা করি এবং অন্যকেও এ বিষয়ে সম্পৃক্ত করবো।