০৭:৫৯ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

খানখানাপুরে চলন্ত ট্রেন থামিয়ে যাত্রা বিরতি চেয়ে এলাকাবাসীর মানববন্ধন

oplus_0

হেলাল মাহমুদ ও মইনুল হক, রাজবাড়ীঃ রাজবাড়ী সদর উপজেলার খানখানাপুর রেলস্টেশনে রাজবাড়ী থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসা চন্দনা কমিউটার ট্রেনসহ এ রুটে চলাচলরত সকল আন্তঃনগর ট্রেনের যাত্রা বিরতির দাবীতে শুক্রবার ট্রেন গতিরোধ করে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করেছেন স্থানীয় জনগণ।

এ সময় বেলা সাড়ে ১১টার দিকে রাজশাহী থেকে ঢাকাগামী মধুমতি এক্সপ্রেস ট্রেনটি খানখানাপুর স্টেশনে এসে পৌছালে গতিরোধ করে ট্রেনের সামনে অবস্থান নেন জনগণ। ৫ মিনিট আটকে রাখার পর বিক্ষুব্ধরা সরে গেলে ঢাকার উদ্দেশ্যে পুনরায় ছেড়ে যায় ট্রেনটি। শুক্রবার (৩১ মে) সকাল ১০ টা থেকে ১ ঘন্টা ৪৫ মিনিট ব্যাপী খানখানাপুর রেল স্টেশনে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন বিক্ষুব্ধ জনতা।

ঢাকাস্থ খানখানাপুর সমিতির যুগ্ন আহবায়ক আলমগীর হোসেনের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে স্থানীয় বীর মুক্তিযোদ্ধা নাজিম উদ্দিন মিয়া, আওয়ামী লীগ নেতা বজলুর রশিদ মাহাতাব, আতিক আল আলম, খানখানাপুর বাজার ব্যবসায়ী পরিষদের সভাপতি মামুনুর রশিদ মামুন, বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সন্তান সংসদ জেলা শাখার সভাপতি মাকসুদুর রহমান শাওন, খানখানাপুর বাজার ব্যবসায়ী সমিতির ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক রাকিবুল হাসান বাদশা, খানখানাপুর ইউনিয়ন সাবেক ছাত্রলীগ নেতা কাউছার মাহমুদ, খানখানাপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম সাউদ, ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি জাহিদ হাসান সৌরভসহ অন্যরা বক্তব্য দেন। এছাড়ও এ সময় খানখানাপুরের সর্বস্তরের বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার দুই শতাধিক মানুষ মানববন্ধনে অংশগ্রহণ করে।

অংশগ্রহণকারীদের দাবী খানখানাপুর স্টেশন দিয়ে আসা তিনটি আন্তঃনগর ও দুটি কমিউটার ট্রেন এরুট দিয়ে ঢাকা গমন করে। কিন্তু খানখানাপুরের ঐতিহ্যবাহী রেলওয়ে স্টেশনে ঢাকাগামী তিনটি আন্তঃনগর ও দুটি কমিউটার ট্রেন যাত্রাবিরতি করে না। ফলে প্রতিদিন মানুষের নানাবিধ ভোগান্তি সহ্য করে ঢাকা যেতে হয়। এলাকাবাসী খানখানাপুর স্টেশনে ঢাকাগামী সকল ট্রেনের যাত্রাবিরতির জন্য রেলওয়ের উর্ধতন কতৃপক্ষের নিকট দাবী জানান। তারা জানান, রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকে খানখানাপুরে যাত্রা বিরতি দিবেন।

তারা আরও বলেন, স্থানীয় চাকরিজীবী ও সাধারণ জনগণকে রাজধানী ঢাকার সাথে দ্রুত যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম হিসেবে ট্রেনের বিরতি দিলে সবাই উপকৃত হবে। আরও বলেন, আমাদের রাজবাড়ীবাসী গর্বিত যে পূর্ণ একজন রেলমন্ত্রী পেয়েছি। তাই মাননীয় মন্ত্রীর নিকট আবেদন রইল তিনি যেন ঐতিহ্যবাহী খানখানাপুর স্টেশনে সকল ট্রেনের যাত্রাবিরতির নির্দেশ দেন।

উল্লেখ্য, খানখানাপুর স্টেশনে ঢাকাগামী মধুমতি এক্সপ্রেস ট্রেনের যাত্রা বিরতির দাবীতে গত ৮ই ডিসেম্বর ২০২৩ এ মানববন্ধন করেছিলো স্থানীয় এলাকাবাসী। মানববন্ধন এসময়ও খানখানাপুর স্টেশনে মধুমতি এক্সপ্রেস ট্রেন পৌছালে ১০মিনিট থামিয়ে দেয় সাধারণ জনগণ।

ট্যাগঃ
রিপোর্টারের সম্পর্কে জানুন

Rajbari Mail

গোয়ালন্দে ছাত্রলীগের বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত, কমিটি ঘোষণা হবে প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে

খানখানাপুরে চলন্ত ট্রেন থামিয়ে যাত্রা বিরতি চেয়ে এলাকাবাসীর মানববন্ধন

পোস্ট হয়েছেঃ ০৮:৫৯:১৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ১ জুন ২০২৪

হেলাল মাহমুদ ও মইনুল হক, রাজবাড়ীঃ রাজবাড়ী সদর উপজেলার খানখানাপুর রেলস্টেশনে রাজবাড়ী থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসা চন্দনা কমিউটার ট্রেনসহ এ রুটে চলাচলরত সকল আন্তঃনগর ট্রেনের যাত্রা বিরতির দাবীতে শুক্রবার ট্রেন গতিরোধ করে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করেছেন স্থানীয় জনগণ।

এ সময় বেলা সাড়ে ১১টার দিকে রাজশাহী থেকে ঢাকাগামী মধুমতি এক্সপ্রেস ট্রেনটি খানখানাপুর স্টেশনে এসে পৌছালে গতিরোধ করে ট্রেনের সামনে অবস্থান নেন জনগণ। ৫ মিনিট আটকে রাখার পর বিক্ষুব্ধরা সরে গেলে ঢাকার উদ্দেশ্যে পুনরায় ছেড়ে যায় ট্রেনটি। শুক্রবার (৩১ মে) সকাল ১০ টা থেকে ১ ঘন্টা ৪৫ মিনিট ব্যাপী খানখানাপুর রেল স্টেশনে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন বিক্ষুব্ধ জনতা।

ঢাকাস্থ খানখানাপুর সমিতির যুগ্ন আহবায়ক আলমগীর হোসেনের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে স্থানীয় বীর মুক্তিযোদ্ধা নাজিম উদ্দিন মিয়া, আওয়ামী লীগ নেতা বজলুর রশিদ মাহাতাব, আতিক আল আলম, খানখানাপুর বাজার ব্যবসায়ী পরিষদের সভাপতি মামুনুর রশিদ মামুন, বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সন্তান সংসদ জেলা শাখার সভাপতি মাকসুদুর রহমান শাওন, খানখানাপুর বাজার ব্যবসায়ী সমিতির ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক রাকিবুল হাসান বাদশা, খানখানাপুর ইউনিয়ন সাবেক ছাত্রলীগ নেতা কাউছার মাহমুদ, খানখানাপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম সাউদ, ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি জাহিদ হাসান সৌরভসহ অন্যরা বক্তব্য দেন। এছাড়ও এ সময় খানখানাপুরের সর্বস্তরের বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার দুই শতাধিক মানুষ মানববন্ধনে অংশগ্রহণ করে।

অংশগ্রহণকারীদের দাবী খানখানাপুর স্টেশন দিয়ে আসা তিনটি আন্তঃনগর ও দুটি কমিউটার ট্রেন এরুট দিয়ে ঢাকা গমন করে। কিন্তু খানখানাপুরের ঐতিহ্যবাহী রেলওয়ে স্টেশনে ঢাকাগামী তিনটি আন্তঃনগর ও দুটি কমিউটার ট্রেন যাত্রাবিরতি করে না। ফলে প্রতিদিন মানুষের নানাবিধ ভোগান্তি সহ্য করে ঢাকা যেতে হয়। এলাকাবাসী খানখানাপুর স্টেশনে ঢাকাগামী সকল ট্রেনের যাত্রাবিরতির জন্য রেলওয়ের উর্ধতন কতৃপক্ষের নিকট দাবী জানান। তারা জানান, রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকে খানখানাপুরে যাত্রা বিরতি দিবেন।

তারা আরও বলেন, স্থানীয় চাকরিজীবী ও সাধারণ জনগণকে রাজধানী ঢাকার সাথে দ্রুত যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম হিসেবে ট্রেনের বিরতি দিলে সবাই উপকৃত হবে। আরও বলেন, আমাদের রাজবাড়ীবাসী গর্বিত যে পূর্ণ একজন রেলমন্ত্রী পেয়েছি। তাই মাননীয় মন্ত্রীর নিকট আবেদন রইল তিনি যেন ঐতিহ্যবাহী খানখানাপুর স্টেশনে সকল ট্রেনের যাত্রাবিরতির নির্দেশ দেন।

উল্লেখ্য, খানখানাপুর স্টেশনে ঢাকাগামী মধুমতি এক্সপ্রেস ট্রেনের যাত্রা বিরতির দাবীতে গত ৮ই ডিসেম্বর ২০২৩ এ মানববন্ধন করেছিলো স্থানীয় এলাকাবাসী। মানববন্ধন এসময়ও খানখানাপুর স্টেশনে মধুমতি এক্সপ্রেস ট্রেন পৌছালে ১০মিনিট থামিয়ে দেয় সাধারণ জনগণ।