January 20, 2022, 4:18 pm

গোয়ালন্দে শ্বশুর বাড়িতে জামাইয়ের রহস্যজনক মৃত্যু

Reporter Name
  • Update Time : মঙ্গলবার, নভেম্বর ৩০, ২০২১
  • 36 Time View
শেয়ার করুনঃ

ফিরোজ আহম্মেদ, গোয়ালন্দঃ রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে স্ত্রীকে নিতে এসে শশুর বাড়িতে বাবু মৃধা (২২) নামের এক তরুণের রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। সোমবার (২৯ নভেম্বর) শ্বশুর বাড়ির একটি আম গাছের সাথে তাকে গলায় গামছা দিয়ে ফাঁসি লাগা অবস্থায় ঝুলতে দেখা যায়।এ সময় তার দুই পা মাটির সাথে লাগানো ছিল।

গোয়ালন্দ ঘাট থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে রাজবাড়ী সদর হাসপাতাল থেকে ময়না তদন্তের জন্য প্রেরণ করে। ময়না তদন্ত শেষে গতকাল সোমবার রাতেই পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেছে।নিহত বাবু মৃধা গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া ইউনিয়নের সমির মৃধা পাড়ার ইদ্রিস মৃধার ছেলে।

পুলিশ ও স্হানীয় সূত্রে জানা গেছে, প্রায় এক বছর পূর্বে বাবু মৃধার সাথে উপজেলার উজানচর ইউনিয়নের চরকর্ণেশন এলাকার আবুল শেখের মেয়ে সেতু আক্তারের (১৯) বিয়ে হয়। বিয়ের ৪ মাসের মধ্যে বাবু তার স্ত্রীকে নিয়ে পৃথক হয়ে যায়। সে দৌলতদিয়া ঘাট এলাকায় কয়েক মাস ভাড়া বাড়িতে থাকলেও কিছুদিন ধরে শ্বশুর বাড়িতে থাকত। তবে সে পুনরায় বাড়ি ফিরে আসতে চেয়েছিল। এলাকায় বাবু খুবই সহজ সরল প্রকৃতির বলে জানতো।

বাবু মৃধার বাবা ইদ্রিস মৃধা সাংবাদিকদের জানান, রোববার বাবু নিজ বাড়িতে এসেছিল। রাতে আমরা এক সাথে বসে ভাত খাই। সে পুনরায় বাড়ি ফিরে আসবে বলে আমাকে জানায়। সোমবার সকালে স্ত্রীকে নিয়ে বাড়িতে ফিরে আসবে বলে ওইদিন রাতে শ্বশুর বাড়িতে চলে যায়। পরদিন তার শ্বশুর বাড়ির পাশের এক লোক জানায়, বাবু গলায় ফাস নিয়ে আত্মহত্যা করেছে।

তিনি জানান, বাবু ওর স্ত্রীকে নিয়ে আলাদা হয়ে যাওয়ার পরও আমি চেষ্টা করেছি ওদেরকে আমার সাথে রাখতে। এ বিষয়ে ওর শ্বশুর আবুলকে বহুবার আমার বাড়িতে এসে ওদের বোঝানোর জন্য বলেছি। কিন্তু তিনি একবারও আসেননি। এমনকি বাবুর মৃত্যুর খবরটিও সে বা তার পরিবারের কেউ আমাদেরকে জানায়নি।

তিনি বলেন, বাবুর লাশ ঝুলন্ত ছিল না। একটা নিচু আম গাছের সাথে গলায় গামছা পেঁচানো অবস্থায় দাড়িয়ে ছিল। তার দুই পা মাটির সাথে লেগে হাঁটু অনেকটা ভাঁজ করা ছিল। আমার ছেলে আত্মহত্যা করতে পারে না। তার তো বাড়িতে ফিরে এসে আমাদের সকলের সাথে মিলেমিশে বসবাস করার কথা ছিল।

গোয়ালন্দ ঘাট থানার এস.আই জাকির হোসেন জানান, রোববার দিবাগত মধ্যরাত থেকে পরদিন সোমবার ভোরের যে কোন সময় বাবুর অপমৃত্যু হয়। খবর পেয়ে সোমবার সকালে ঘটনাস্হল থেকে তার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য রাজবাড়ীর মর্গে পাঠানো হয়। ময়না তদন্ত শেষে সোমবার রাতেই পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে। বাবুর বাবা সোমবার রাতে থানায় অপমৃত্যু মামলা দায়ের করেছেন। ময়না তদন্তের প্রতিবেদন হাতে পাওয়ার পরমৃত্যুর সঠিক কারণ জানাযাবে।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category
© All rights reserved © 2021 Rajbarimail
Developed by POS Digital
themesba-lates1749691102