May 17, 2022, 8:54 pm
শিরোনামঃ
রাজবাড়ীতে পেঁয়াজের দাম বাড়লেও লোকসানে চাষিরা রাজবাড়ীতে কৃষকদের মাঝে ভর্তুকি মূল্যে কৃষি যন্ত্রপাতি বিতরণ গোয়ালন্দে জমি নিয়ে সংঘর্ষে কৃষক নিহত, মামলা দায়ের, গ্রেপ্তার ২ দৌলতদিয়ায় বেশি দামে তেল বিক্রি করায় ৪টি দোকানে জরিমানা গোয়ালন্দে হেরোইনসহ যুবক গ্রেপ্তার ফরিদপুর জেলা আ.লীগঃ শামীম হকে উল্লাস, শাহ মো. ইশতিয়াকে বিস্ময় কন্ঠশিল্পী রশীদ আহমেদ তিতু’র দ্বিতীয় মৃত্যু বাষির্কী শনিবার রাজবাড়ীতে কাঠের ঘানিতে শরিষার তেল উৎপাদন সচল রেখেছেন বাচ্চু বেপারী গোয়ালন্দে ট্রাকের ধাক্কায় দারিদ্র বিমোচন কর্মকর্তা নিহত সাংসদ কাজী কেরামত আলীর সুস্থ্যতা কামনায় গোয়ালন্দ প্রপার হাই স্কুলে দোয়া

পদ্মায় জেলেদের জালে ধরা পড়েছে ১৩ কেজির পাঙ্গাশ

Reporter Name
  • Update Time : মঙ্গলবার, মে ৪, ২০২১
  • 57 Time View
শেয়ার করুনঃ

নিজস্ব প্রতিবেদক, গোয়ালন্দঃ রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া ইউনিয়নের কুশাহাটা এলাকায় পদ্মা নদীতে সোমবার দিবাগত মধ্যরাতে খালেক সরদার ও তার সহযোগীদের জালে ১৩ কেজি ওজনের একটি পাঙ্গাশ মাছ ধরা পড়েছে। মাছটি স্থানীয় মৎস্য ব্যবসায়ী ১৬ হাজার টাকা দিয়ে কিনে নেন। মাছটি বর্তমানে দৌলতদিয়া ফেরি ঘাটে পন্টুনের সাথে রশি দিয়ে বেধে রাখা হয়েছে।

মঙ্গলবার সকালে দেখা যায়, ৫ নম্বর ফেরি ঘাটের পন্টুনের সাথে রশি দিয়ে একটি বড় পাঙ্গাশ মাছ বেধে রাখা হয়েছে। মাছের ক্রেতা শাকিল-সোহান মৎস্য আড়তের পরিচালক নুরুল ইসলাম জানান, মঙ্গলবার সকালে দৌলতদিয়া ঘাট বাজারের দুলাল সরদারের আড়ত থেকে তারা (নুরুল ইসলাম ও সম্রাট শাহজাহান শেখ) মাছটি দেখে নিলামে অংশ গ্রহণ করেন। পাঙ্গাশটি ওজন দিয়ে দেখেন ১৩ কেজি ১০০ গ্রাম । পরে সর্বোচ্চ দরদাতা হিসেবে ১,২৫০ টাকা কেজি দরে মোট ১৬ হাজার ৩০০ টাকা দিনে কিনে নেন।

স্থানীয় জেলে ও মৎস্য ব্যবসায়ীরা জানান, সোমবার দিবাগত গভীররাতে পদ্মা নদীর দৌলতদিয়া ইউনিয়নের শেষ প্রান্ত কুশাহাটার পদ্মা ও যমুনা নদীর মোহনা এলাকায় জেলে খালেক সরদার জাল ফেলেন। জেলে খালেক সরদারের বাড়ি গোয়ালন্দ উপজেলার দেবগ্রাম ইউনিয়নের অন্তারমোড় এলাকায়। ভোররাতের দিকে জাল টেনে নৌকায় তোলার পর দেখেন বড় পাঙ্গাশ মাছ আটকা পড়েছে। মাছটি ভোরে দৌলতদিয়া বাজারে নিয়ে আসেন। এসময় দুলাল সরদারের আড়তে মাছটি তোলা হলে আড়তদারের আহ্বানে নিলামে শরিক হয়ে সর্বোচ্চ দরদাতা হিসেবে ১২৫০ টাকা কেজি দরে মাছটি কিনেন। পরে মাছটি ফেরি ঘাটের পন্টুনের সাথে রশি দিয়ে বেধে রাখেন।

শাকিল-সোহান মৎস্য আড়তের পরিচালক নুরুল ইসলাম জানান, মাছটি অনেক আগে ধরা পড়ায় পন্টুনের সাথে রশি দিয়ে বেধে রাখার পর সকাল ৯টার দিকে দেখা যায় মারা যায়। মাছ বিক্রি করতে ঢাকা, কুষ্টিয়া সহ বিভিন্ন অঞ্চলে বিক্রির জন্য যোগাযোগ করা হচ্ছে। ১৩০০ টাকা কেজি দরে দাম হাঁকছি। কেজি প্রতি ৫০ টাকা করে লাভ রেখে বিক্রি করবো বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে। বর্তমানে করোনায় লকডাউনের কারনে মানুষের অর্থনৈতিক অবস্থা বেশি ভালো না থাকায় আগের মতো বড় মাছ কিনতে চায়না।

গোয়ালন্দ উপজেলার ভারপ্রাপ্ত মৎস্য কর্মকর্তা রেজাউল শরীফ বলেন, পদ্মা নদীর মাছ এমনিতেই অনেক সুস্বাদু। পদ্মা নদীর এ ধরনের বড় মাছের চাহিদা সব সময় রয়েছে। নদীর পানি শুকিয়ে নালা সংকুচিত হওয়ায় কাতলা জাতীয় বড় মাছ ধরা পড়ছে বেশি।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
© All rights reserved © 2021 Rajbarimail
Developed by POS Digital
themesba-lates1749691102