১২:২৯ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

বালু ব্যাবসাকে কেন্দ্র করে সন্ত্রাসী কর্মকান্ড ও নৈরাজকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর প্রশাসন

ইমরান মনিম, রাজবাড়ীঃ রাজবাড়ীতে পদ্মা নদীতে বালু ব্যাবসাকে কেন্দ্র করে সৃস্ট সন্ত্রাসী কর্মকান্ড ও নৈরাজকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে রয়েছে বলে জানান রাজবাড়ী জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসন।

গত রোববার দুপুরে রাজবাড়ী জেলা প্রশাসন আয়োজিত জেলা প্রশাসনের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় পদ্মা নদীতে বালু ব্যাবসা ও আধিপত্ত বিস্তারকে কেন্দ্র করে গুলি ও কুপিয়ে জখমের ঘটনায় বেশ কয়েকজন আহত হওয়ায় উদ্বিগ্ন রয়েছে প্রশাসন বলে বক্তারা উল্লেখ করেন।

দুই প্রতিনিধির রেশারেশির কারনে উত্তপ্ত ও আতঙ্কিত নদী পারের বাসিন্দার।এতে রাজবাড়ী, পাবনা ও কুষ্টিয়ার সন্ত্রাসীরা প্রতিদিন নদীতে গুলি করে নিরিহ মানুষ ও শ্রমিকদের আহত করছে। এসব অঞ্চলে আতঙ্ক বিরাজমান থাকায় তৃতীয় একটি পক্ষ সুবিধা নিচ্ছে।এর সুরাহা হওয়া উচিত বলে জানান সভার বক্তারা। জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার বলেন, নদীতে সৃষ্ট সমস্যা অচিরেই সমাধান হবে।আইনশৃঙ্খলা বাহীনি প্রস্তুত রয়েছে।সন্ত্রাসীদের ও আতঙ্কবাজদের বিরুদ্ধ মামলা হয়েছে।তাদের আইনের আওতায় আনা হবে অতিশিঘ্রই। সভায় জেলার বিভিন্ন বিষয় ও সমস্যা নিয়েও আলোচনা করা হয়।

সভায় এ সময় সভাপতির বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক আবু কায়সার  খান। আরো বক্তব্য রাখেন পুলিশ সুপার এম এম শাকিলুজ্জামান, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এ্যাডভোকেট ইমদাদুল হক বিশ্বাস, রাজবাড়ী পৌরসভার মেয়র আলমগীর শেখ তিতু, রাজবাড়ী প্রেসক্লাবের  সভাপতি খান মোঃ জহুরুল হক প্রমূখ।

ট্যাগঃ
রিপোর্টারের সম্পর্কে জানুন

Rajbari Mail

জনপ্রিয় পোস্ট

গোয়ালন্দ উপজেলা চেয়ারম্যান কাপ ক্রিকেট টুর্নামেন্টের ফাইনাল

বালু ব্যাবসাকে কেন্দ্র করে সন্ত্রাসী কর্মকান্ড ও নৈরাজকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর প্রশাসন

পোস্ট হয়েছেঃ ০৬:৪৩:০৬ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৪ মার্চ ২০২৩

ইমরান মনিম, রাজবাড়ীঃ রাজবাড়ীতে পদ্মা নদীতে বালু ব্যাবসাকে কেন্দ্র করে সৃস্ট সন্ত্রাসী কর্মকান্ড ও নৈরাজকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে রয়েছে বলে জানান রাজবাড়ী জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসন।

গত রোববার দুপুরে রাজবাড়ী জেলা প্রশাসন আয়োজিত জেলা প্রশাসনের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় পদ্মা নদীতে বালু ব্যাবসা ও আধিপত্ত বিস্তারকে কেন্দ্র করে গুলি ও কুপিয়ে জখমের ঘটনায় বেশ কয়েকজন আহত হওয়ায় উদ্বিগ্ন রয়েছে প্রশাসন বলে বক্তারা উল্লেখ করেন।

দুই প্রতিনিধির রেশারেশির কারনে উত্তপ্ত ও আতঙ্কিত নদী পারের বাসিন্দার।এতে রাজবাড়ী, পাবনা ও কুষ্টিয়ার সন্ত্রাসীরা প্রতিদিন নদীতে গুলি করে নিরিহ মানুষ ও শ্রমিকদের আহত করছে। এসব অঞ্চলে আতঙ্ক বিরাজমান থাকায় তৃতীয় একটি পক্ষ সুবিধা নিচ্ছে।এর সুরাহা হওয়া উচিত বলে জানান সভার বক্তারা। জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার বলেন, নদীতে সৃষ্ট সমস্যা অচিরেই সমাধান হবে।আইনশৃঙ্খলা বাহীনি প্রস্তুত রয়েছে।সন্ত্রাসীদের ও আতঙ্কবাজদের বিরুদ্ধ মামলা হয়েছে।তাদের আইনের আওতায় আনা হবে অতিশিঘ্রই। সভায় জেলার বিভিন্ন বিষয় ও সমস্যা নিয়েও আলোচনা করা হয়।

সভায় এ সময় সভাপতির বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক আবু কায়সার  খান। আরো বক্তব্য রাখেন পুলিশ সুপার এম এম শাকিলুজ্জামান, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এ্যাডভোকেট ইমদাদুল হক বিশ্বাস, রাজবাড়ী পৌরসভার মেয়র আলমগীর শেখ তিতু, রাজবাড়ী প্রেসক্লাবের  সভাপতি খান মোঃ জহুরুল হক প্রমূখ।