May 17, 2022, 8:49 pm
শিরোনামঃ
রাজবাড়ীতে পেঁয়াজের দাম বাড়লেও লোকসানে চাষিরা রাজবাড়ীতে কৃষকদের মাঝে ভর্তুকি মূল্যে কৃষি যন্ত্রপাতি বিতরণ গোয়ালন্দে জমি নিয়ে সংঘর্ষে কৃষক নিহত, মামলা দায়ের, গ্রেপ্তার ২ দৌলতদিয়ায় বেশি দামে তেল বিক্রি করায় ৪টি দোকানে জরিমানা গোয়ালন্দে হেরোইনসহ যুবক গ্রেপ্তার ফরিদপুর জেলা আ.লীগঃ শামীম হকে উল্লাস, শাহ মো. ইশতিয়াকে বিস্ময় কন্ঠশিল্পী রশীদ আহমেদ তিতু’র দ্বিতীয় মৃত্যু বাষির্কী শনিবার রাজবাড়ীতে কাঠের ঘানিতে শরিষার তেল উৎপাদন সচল রেখেছেন বাচ্চু বেপারী গোয়ালন্দে ট্রাকের ধাক্কায় দারিদ্র বিমোচন কর্মকর্তা নিহত সাংসদ কাজী কেরামত আলীর সুস্থ্যতা কামনায় গোয়ালন্দ প্রপার হাই স্কুলে দোয়া

গোয়ালন্দে বাবার লাশ রেখে জমি ভাগাভাগি নিয়ে সন্তানদের ঝগড়া

Reporter Name
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, জুলাই ৮, ২০২১
  • 294 Time View
শেয়ার করুনঃ

নিজস্ব প্রতিবেদক, গোয়ালন্দঃ বাবা মারা গেছেন মঙ্গলবার দুপুরে। স্থানীয়রা লাশ দাফনের প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। কিন্ত বাদ সাধে পরিবারের সন্তানেরা। পারিবারিক জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে সন্তানদের মধ্যে চলে রাতভর ঝগড়া। রাত পেরিয়ে গেলেও সমাধান না হওয়ায় পরদিন বুধবার সকালে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানকে খবর দেওয়া হয়। চেয়ারম্যান সন্তানদের বুঝিয়ে সমঝোতার চেষ্টা করে প্রায় ২২ ঘন্টা পর দাফনের সিন্ধান্ত হয়। কিন্তু বড় ছেলের অভিযোগে পুলিশ লাশ রাজবাড়ী হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

এমনি হৃদয় বিদারক ঘটনা ঘটেছে রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার দেবগ্রাম ইউনিয়নের দক্ষিণ পাঁচুরিয়া অম্বলপুর গ্রামে। স্থানীয়রা জানায়, মঙ্গলবার (৬ জুলাই) দুপুরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু বরন করেন অম্বলপুর গ্রামের কৃষক ইয়াছিন মোল্লা (৮৮)। বাবার লাশ দাফন না করে পাঁচ সন্তান সারাদিন জমির ভাগ বাটোয়ারা নিয়ে ঝগড়া করে। দিন শেষে সারারাত চলে পরিবারের ঝগড়া। এমন চিত্র দেখে এলাকাবাসী স্থানীয় দেবগ্রাম ইউপির চেয়ারম্যান হাফিজুল ইসলামকে সংবাদ দেয়।

এলাকার কয়েকজন বলেন, বুধবার সকালে ইউপি চেয়ারম্যান বাড়িতে উপস্থিত হয়ে সবাইকে নিয়ে সমঝোতার চেষ্টা করেন। বুধবার দুপুর ১টা পর্যন্ত বাড়ির উঠানে পরে থাকে লাশ। দীর্ঘ ২২ঘন্টা পর শালিসে ইউপি চেয়ারম্যানের হস্তক্ষেপে লাশ দাফনের সিদ্ধান্ত হয়। তবে আরেক ছেলের অভিযোগে গোয়ালন্দ ঘাট থানা পুলিশ বেলা ২টার দিকে লাশ উদ্ধার করে রাজবাড়ী মর্গে নিয়ে যায়।

স্থানীয়রা জানান, জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে মৃত ইয়াছিন মোল্লার ৫ সন্তানের মধ্যে বাবলু মোল্লা, ফুলবড়ু, রাবেয়া এবং মমতাজের সাথে ছোট ছেলে রহমান মোল্লার দীর্ঘ দিন ধরেই বিরোধ চলছিল। বিরোধের জের ধরে লাশ দাফন না করে জমি ভাগ নিয়ে দ্বন্দের সৃষ্টি হয়।

ইয়াছিন মোল্লার সন্তান বাবলু মোল্লা, ফুলবড়ু, রাবেয়া ও মমতাজ অভিযোগে বলেন, দীর্ঘদিন বাবা ছোট ভাই রহমান মোল্লার কাছে থাকতো। এ সুযোগে তার সব সম্পত্তি নিজের নামে লিখে নেন। এ নিয়ে রাজবাড়ীর আদালতে আমরা একটা মামলাও করেছি। সোমবার (৫ জুলাই) বাবাকে আদালতে হাজিরের নির্দেশ দিলেও অসুস্থ্যতার কারণে উপস্থিত থাকতে পারেননি। বাবাকে ঢাকায় নিয়ে চিকিৎসা করাতে বললেও ছোট ভাই স্থানীয় একটি ক্লিনিকে চিকিৎসা করায়। আমাদের ধারণা রহমান ঘুমের ঔষুধ খাইয়ে বাবাকে মেরে ফেলেছে।

রহমান মোল্লা বলেন, আমি বাবাকে দেখভাল করতাম। গত শুক্রবার হঠাৎ বাবা অসুস্থ্য হলে গোয়ালন্দে একটি প্রাইভেট ক্লিনিকে ডাক্তার দেখাই। এসময় ডাক্তার কিছু টেস্ট ও ঔষুধ লিখে দেয়। বাবাকে বাসায় রেখে চিকিৎসা করাতে বললে বাসায় রেখে চিকিৎসা করাই। মঙ্গলবার (৬ জুলাই) বিকেল ৩টার দিকে বাবা আরো বেশি অসুস্থ্য হলে গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে দেখে মৃত ঘোষণা করেন।

দেবগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান হাফিজুল ইসলাম বলেন, পরিবারের প্রায় ৬০ শতাংশ জমি নিয়ে সন্তানদের মধ্যে বিরোধ। দীর্ঘ কয়েক মাস ধরে ইয়াছিন মোল্লা বাড়ি ছেড়ে অন্যত্র যান। মঙ্গলবার বিকেলে তিনি মারা গেলে তার লাশ বড় ছেলে ও অন্যান্য বোন বাড়িতে ওঠতে দেয়নি বলে রহমান অভিযোগ করে। আজ বুধবার সকালে বাড়িতে গিয়ে লকডাউনের পর জমির সমস্যা সমাধান করা হবে মর্মে স্ট্যাম্পে তাদের উভয় পক্ষের স্বাক্ষর নিয়ে ইয়াছিন মোল্লার দাফনের সিদ্ধান্ত জানায়। এ সময় পুলিশ উপস্থিত হয়ে লাশ ময়না তদন্তের জন্য রাজবাড়ী পাঠায়। জমি নিয়ে সন্তানদের বিরোধে প্রায় ২৩ ঘন্টা দাফন নিয়ে কালক্ষেপন চলে। বিষয়টি খুব দুঃখ জনক।

স্থানীয় ইউপি সদস্য আব্দুস সালাম বলেন, পারিবারিক জমি নিয়ে বিরোধের কারনে প্রায় এক বছর ধরে ইয়াছিন মোল্লা ও তার ছোট ছেলে রহমান মোল্লা বাড়ি ছাড়া। এখানে অন্যান্য ছেলে-মেয়েরা বরাবর অভিযোগ করে আসছিল কৌশলে রহমান জমি লিখে নিতেই বাবাকে নিয়ে বাড়ি ছেড়ে আলাদা থাকছেন। লাশের ময়না তদন্ত শেষে সন্ধ্যা ৭টায় নিজ বাড়িতে আনা হলে বাড়ির আঙ্গিনায় মৃত্যুর প্রায় ২৭ ঘন্টা পর দাফন সম্পন্ন হয়।

গোয়ালন্দ ঘাট থানার উপপরিদর্শক (এস.আই) মিজানুর রহমান আকন্দ জানান, স্থানীয়দের সংবাদের ভিত্তিতে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে লাশ উদ্ধার করি এবং একটি সাধারণ ডায়রী মূলে ময়না তদন্তের জন্য রাজবাড়ী হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category
© All rights reserved © 2021 Rajbarimail
Developed by POS Digital
themesba-lates1749691102