০৬:৫৭ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পাংশায় গ্রাম পুলিশ হত্যাচেষ্টার ঘটনায় বিকাশ বাহিনীর ৫ সদস্য গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক, পাংশা, রাজবাড়ীঃ রাজবাড়ীর পাংশায় গ্রাম পুলিশ সদস্য মো. মনিরুল শেখকে (৩৫) গুলি করে হত্যাচেষ্টার দায়েরকৃত মামলায় বিকাশ বাহিনীর ৫ সদস্যকে জেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করেছে পাংশা মডেল থানা পুলিশ। রোবাবর দুপুরে তাদেরকে রাজবাড়ীর আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

শনিবার বিকেল থেকে দিবাগত মধ্যরাত পর্যন্ত জেলার পাংশা, গোয়ালন্দ এবং পাশের কুষ্টিয়া জেলার খোকশা উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিযে ৫ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃতরা হলো কুষ্টিয়ার খোকশা উপজেলার শেখপাড়া বিহারিয়া গ্রামের মো. সাব্বির মন্ডল (২৪), রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলার দক্ষিণ খোর্দ্দবসা গ্রমের মো. জীবন মোল্যা (৩২), একই গ্রামের মো. সোহেল মন্ডল (৩৪), চর কলিমহর গ্রামের মো. সোহেল মন্ডল (৩২) ও দক্ষিণ খোর্দ্দবসা গ্রামের মো. তালেব মোল্যা (২২)।

পাংশা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) স্বপন কুমার মজুমদার জানান, নিষিদ্ধ চরমপন্থী সন্ত্রাসী বিকাশ বাহিনীর প্রধান বিকাশ দীর্ঘদিন ধরে ভারতে পলাতক রয়েছেন। ভারতের সীমান্তবর্তী চুয়াডাঙ্গার জীবননগর এলাকায় এসে মাঝে মধ্যে বাংলাদেশী বিভিন্ন মুঠোফোন কোম্পানীর সিম ব্যবহার করে পাংশার বিভিন্ন ব্যক্তির কাছে ফোনে চাঁদা দাবি করতো। চাঁদা দাবির বিষয়কে কেন্দ্র করে ১ জুন দিবাগত রাত পৌনে ১২টার দিকে পাংশা উপজেলার কলিমহল ইউনিয়নের বসাকুষ্টিয়া গ্রামের চার বাড়িতে বিকাশ বাহিনীর লোকজন হামলা চালায়। এসময় সন্ত্রাসীরা কয়েক রাউন্ড গুলিও ছুড়ে। হামলার খবর পেয়ে গ্রাম পুলিশ সদস্য মনিরুল শেখ বাড়ি থেকে প্রস্তুতি নিয়ে বের হওয়া মাত্র সন্ত্রাসীরা তাকে ধরে বেদম মারধর করে। সন্ত্রাসীরা মনিরুলের বাম পায়ের গোড়ালি ও বাম হাতের কনুইয়ে দুটি গুলি করে রক্তাত্ব জখম করে হত্যাচেষ্টা চালায়। খবর পেয়ে পাংশা থানা পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌছলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়।

পুলিশের সহযোগিতায় পরিবারের লোকজন আহত মনিরুলকে পাংশা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, পরে ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়। উন্নত চিকিৎসার ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে নিলে সেখানেই তার অস্ত্রপচার করা হয়। এ ঘটনার দুইদিন পর ১০-১২জনকে আসামী করে পাংশা মডেল থানায় একটি হত্যাচেষ্টা মামলা (নং-৬) দায়ের হয়। মামলাটির তদন্তভার দেওয়া হয় থানার উপপরিদর্শক (এসআই) তারিকুল ইসলামকে।

এরপর পুলিশ তথ্য ও প্রযুক্তির সহায়তায় অপরাধীদের গ্রেপ্তারে মাঠে কাজ করতে থাকে। শনিবার বিকেল থেকে অভিযান চালিয়ে গভীররাত পর্যন্ত পাংশা উপজেলার কয়েকটি স্থান, গোয়ালন্দ ঘাট যৌনপল্লি এবং পাশের কুষ্টিয়া জেলার খোকসা উপজেলা এলাকা থেকে সাব্বির মন্ডল, জীবন মোল্যা, সোহেল মন্ডল, সোহেল মন্ডল-২ ও তালেব মোল্যা নামের পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করে।

ওসি জানান, গ্রেপ্তারকৃত আসামীরা ঘটনার সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে। এরমধ্যে গ্রেপ্তারকৃত আসামী সাব্বির মন্ডলের বিরুদ্ধে ২টি অস্ত্র মামলা, ২টি মাদক মামলাসহ মোট ৪টি মামলা রয়েছে। অপর আসামী জীবন মোল্যার বিরুদ্ধে ১টি অস্ত্র মামলা, ২টি ডাকাতির প্রস্তুতি মামলা ও ১টি চুরি মামলাসহ ৪টি মামলা রয়েছে। আসামীদের আজ রোববার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

ট্যাগঃ
রিপোর্টারের সম্পর্কে জানুন

Rajbari Mail

গোয়ালন্দে ছাত্রলীগের বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত, কমিটি ঘোষণা হবে প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে

পাংশায় গ্রাম পুলিশ হত্যাচেষ্টার ঘটনায় বিকাশ বাহিনীর ৫ সদস্য গ্রেপ্তার

পোস্ট হয়েছেঃ ০৯:১১:৩১ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১১ জুন ২০২৪

নিজস্ব প্রতিবেদক, পাংশা, রাজবাড়ীঃ রাজবাড়ীর পাংশায় গ্রাম পুলিশ সদস্য মো. মনিরুল শেখকে (৩৫) গুলি করে হত্যাচেষ্টার দায়েরকৃত মামলায় বিকাশ বাহিনীর ৫ সদস্যকে জেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করেছে পাংশা মডেল থানা পুলিশ। রোবাবর দুপুরে তাদেরকে রাজবাড়ীর আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

শনিবার বিকেল থেকে দিবাগত মধ্যরাত পর্যন্ত জেলার পাংশা, গোয়ালন্দ এবং পাশের কুষ্টিয়া জেলার খোকশা উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিযে ৫ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃতরা হলো কুষ্টিয়ার খোকশা উপজেলার শেখপাড়া বিহারিয়া গ্রামের মো. সাব্বির মন্ডল (২৪), রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলার দক্ষিণ খোর্দ্দবসা গ্রমের মো. জীবন মোল্যা (৩২), একই গ্রামের মো. সোহেল মন্ডল (৩৪), চর কলিমহর গ্রামের মো. সোহেল মন্ডল (৩২) ও দক্ষিণ খোর্দ্দবসা গ্রামের মো. তালেব মোল্যা (২২)।

পাংশা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) স্বপন কুমার মজুমদার জানান, নিষিদ্ধ চরমপন্থী সন্ত্রাসী বিকাশ বাহিনীর প্রধান বিকাশ দীর্ঘদিন ধরে ভারতে পলাতক রয়েছেন। ভারতের সীমান্তবর্তী চুয়াডাঙ্গার জীবননগর এলাকায় এসে মাঝে মধ্যে বাংলাদেশী বিভিন্ন মুঠোফোন কোম্পানীর সিম ব্যবহার করে পাংশার বিভিন্ন ব্যক্তির কাছে ফোনে চাঁদা দাবি করতো। চাঁদা দাবির বিষয়কে কেন্দ্র করে ১ জুন দিবাগত রাত পৌনে ১২টার দিকে পাংশা উপজেলার কলিমহল ইউনিয়নের বসাকুষ্টিয়া গ্রামের চার বাড়িতে বিকাশ বাহিনীর লোকজন হামলা চালায়। এসময় সন্ত্রাসীরা কয়েক রাউন্ড গুলিও ছুড়ে। হামলার খবর পেয়ে গ্রাম পুলিশ সদস্য মনিরুল শেখ বাড়ি থেকে প্রস্তুতি নিয়ে বের হওয়া মাত্র সন্ত্রাসীরা তাকে ধরে বেদম মারধর করে। সন্ত্রাসীরা মনিরুলের বাম পায়ের গোড়ালি ও বাম হাতের কনুইয়ে দুটি গুলি করে রক্তাত্ব জখম করে হত্যাচেষ্টা চালায়। খবর পেয়ে পাংশা থানা পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌছলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়।

পুলিশের সহযোগিতায় পরিবারের লোকজন আহত মনিরুলকে পাংশা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, পরে ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়। উন্নত চিকিৎসার ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে নিলে সেখানেই তার অস্ত্রপচার করা হয়। এ ঘটনার দুইদিন পর ১০-১২জনকে আসামী করে পাংশা মডেল থানায় একটি হত্যাচেষ্টা মামলা (নং-৬) দায়ের হয়। মামলাটির তদন্তভার দেওয়া হয় থানার উপপরিদর্শক (এসআই) তারিকুল ইসলামকে।

এরপর পুলিশ তথ্য ও প্রযুক্তির সহায়তায় অপরাধীদের গ্রেপ্তারে মাঠে কাজ করতে থাকে। শনিবার বিকেল থেকে অভিযান চালিয়ে গভীররাত পর্যন্ত পাংশা উপজেলার কয়েকটি স্থান, গোয়ালন্দ ঘাট যৌনপল্লি এবং পাশের কুষ্টিয়া জেলার খোকসা উপজেলা এলাকা থেকে সাব্বির মন্ডল, জীবন মোল্যা, সোহেল মন্ডল, সোহেল মন্ডল-২ ও তালেব মোল্যা নামের পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করে।

ওসি জানান, গ্রেপ্তারকৃত আসামীরা ঘটনার সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে। এরমধ্যে গ্রেপ্তারকৃত আসামী সাব্বির মন্ডলের বিরুদ্ধে ২টি অস্ত্র মামলা, ২টি মাদক মামলাসহ মোট ৪টি মামলা রয়েছে। অপর আসামী জীবন মোল্যার বিরুদ্ধে ১টি অস্ত্র মামলা, ২টি ডাকাতির প্রস্তুতি মামলা ও ১টি চুরি মামলাসহ ৪টি মামলা রয়েছে। আসামীদের আজ রোববার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।