১০:০০ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

গোয়ালন্দের দূর্বত্তের দেয়া আগুনে পুড়লো দুটি খড়ের পালা

oplus_0

মইনুল হক, গোয়ালন্দঃ রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে গভীররাতে খড়ের পালায় অগ্নিসংযোগ করার অভিযোগ উঠেছে। শনিবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে উপজেলার উজানচর ইউনিয়নের দিরাজতুল্লা মৃধাপাড়া গ্রামে ইসলাম শেখের খড়ের পালায় এ ঘটনা ঘটে। ভুক্তভোগী ইসলাম শেখ ওই গ্রামের মজিদ শেখ এর ছেলে। প্রথমে গ্রামবাসী এবং পরে ফায়ার সার্ভিস চেষ্টা করে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

জানা যায়, দিরাজতুল্লা মৃধাপাড়া গ্রামের ঈদগাহ মাঠে ক্ষতিগ্রস্ত ইসলাম শেখ খড় শুকিয়ে বড় দুটি পালা দিয়ে রেখেছিলেন। শনিবার দিবাগত মধ্যরাত ৩টার দিকে দুটি খড়ের পালায় আগুন লেগে মুহূর্তের মধ্যে দাউদাউ করে জ্বলতে থাকে। আগুন দেখে আশপাশে থাকা গ্রামবাসীরা একত্র হয়ে আগুন নেভানোর চেষ্টা করেন পরে গোয়ালন্দ ফায়ার সার্ভিসকে খবর দিলে তারা ঘটনাস্থলে এসে গ্রামবাসীর সহযোগিতায় ৩০মিনিট চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

শত্রুতার জেরে আগুন দেয়া হয়েছে বলে ভুক্তভোগী ইসলাম শেখ ও তার ভাই জাকির হোসেন অভিযোগ করে বলেন, আগুন লাগার কয়েক মিনিট পর আমরা সহ আশপাশের লোকজন এসে আগুন নেভাতে থাকি। পরে গোয়ালন্দ ফায়ার সার্ভিসকে খবর দিলে তারা এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। ধরনা করছি শত্রুতা করেই কেউ আগুন লাগিয়েছে। তাছাড়া এখানে বড় ফাঁকা ঈদগাহ মাঠে কেন আগুন লাগবে। আমরা এর সঠিক বিচার চাই। তারা আরো বলেন, মাঝে মধ্যেই আমাদের এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। কয়েকদিন আগেও হাসেম মৃধার বড় একটি খড়ের পালায় কে যেন আগুন ধরিয়ে দেয়। আবার একজন কৃষকের কলার বাগান কেটে ফেলা, ভুট্টা ক্ষেত কেটে ফেলা হয়েছিল। আমরা এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে যারা এই কাজ করেছে তাদের সঠিক বিচার কামনা করছি।

গোয়ালন্দ ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন লিডার মিলন হোসেন বলেন, খবর পেয়ে ঘটানাস্থলে গিয়ে গ্রামবাসীর সহযোগিতায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে। আমরা ধরনা করছি সিগারেটের আগুন থেকে এ ঘটনা ঘটেছে। আনুমানিক আমাদের ধারনা অনুযায়ী ১৫-২০ হাজার টাকার খড় পুড়ে গেছে।

গোয়ালন্দ ঘাট থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি তদন্ত) উত্তম কুমার ঘোষ বলেন, ভুক্তভোগীর কাছ থেকে অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

ট্যাগঃ
রিপোর্টারের সম্পর্কে জানুন

Rajbari Mail

গোয়ালন্দে ছাত্রলীগের বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত, কমিটি ঘোষণা হবে প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে

গোয়ালন্দের দূর্বত্তের দেয়া আগুনে পুড়লো দুটি খড়ের পালা

পোস্ট হয়েছেঃ ০৭:৪২:৪৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪

মইনুল হক, গোয়ালন্দঃ রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে গভীররাতে খড়ের পালায় অগ্নিসংযোগ করার অভিযোগ উঠেছে। শনিবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে উপজেলার উজানচর ইউনিয়নের দিরাজতুল্লা মৃধাপাড়া গ্রামে ইসলাম শেখের খড়ের পালায় এ ঘটনা ঘটে। ভুক্তভোগী ইসলাম শেখ ওই গ্রামের মজিদ শেখ এর ছেলে। প্রথমে গ্রামবাসী এবং পরে ফায়ার সার্ভিস চেষ্টা করে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

জানা যায়, দিরাজতুল্লা মৃধাপাড়া গ্রামের ঈদগাহ মাঠে ক্ষতিগ্রস্ত ইসলাম শেখ খড় শুকিয়ে বড় দুটি পালা দিয়ে রেখেছিলেন। শনিবার দিবাগত মধ্যরাত ৩টার দিকে দুটি খড়ের পালায় আগুন লেগে মুহূর্তের মধ্যে দাউদাউ করে জ্বলতে থাকে। আগুন দেখে আশপাশে থাকা গ্রামবাসীরা একত্র হয়ে আগুন নেভানোর চেষ্টা করেন পরে গোয়ালন্দ ফায়ার সার্ভিসকে খবর দিলে তারা ঘটনাস্থলে এসে গ্রামবাসীর সহযোগিতায় ৩০মিনিট চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

শত্রুতার জেরে আগুন দেয়া হয়েছে বলে ভুক্তভোগী ইসলাম শেখ ও তার ভাই জাকির হোসেন অভিযোগ করে বলেন, আগুন লাগার কয়েক মিনিট পর আমরা সহ আশপাশের লোকজন এসে আগুন নেভাতে থাকি। পরে গোয়ালন্দ ফায়ার সার্ভিসকে খবর দিলে তারা এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। ধরনা করছি শত্রুতা করেই কেউ আগুন লাগিয়েছে। তাছাড়া এখানে বড় ফাঁকা ঈদগাহ মাঠে কেন আগুন লাগবে। আমরা এর সঠিক বিচার চাই। তারা আরো বলেন, মাঝে মধ্যেই আমাদের এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। কয়েকদিন আগেও হাসেম মৃধার বড় একটি খড়ের পালায় কে যেন আগুন ধরিয়ে দেয়। আবার একজন কৃষকের কলার বাগান কেটে ফেলা, ভুট্টা ক্ষেত কেটে ফেলা হয়েছিল। আমরা এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে যারা এই কাজ করেছে তাদের সঠিক বিচার কামনা করছি।

গোয়ালন্দ ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন লিডার মিলন হোসেন বলেন, খবর পেয়ে ঘটানাস্থলে গিয়ে গ্রামবাসীর সহযোগিতায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে। আমরা ধরনা করছি সিগারেটের আগুন থেকে এ ঘটনা ঘটেছে। আনুমানিক আমাদের ধারনা অনুযায়ী ১৫-২০ হাজার টাকার খড় পুড়ে গেছে।

গোয়ালন্দ ঘাট থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি তদন্ত) উত্তম কুমার ঘোষ বলেন, ভুক্তভোগীর কাছ থেকে অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত পদক্ষেপ নেওয়া হবে।