০৮:২৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

গোয়ালন্দে পারিবারিক পত্রিকা ‘ছায়া’ এর মোড়ক উম্মোচন

নিজস্ব প্রতিবেদক, গোয়ালন্দঃ “যখন সুখে থাক তখন স্বর্গ, যখন দুঃখে থাক তখন নরক” এই শ্লোগান নিয়ে প্রতি বছরের ন্যায় এবারও প্রকাশিত হলো পারিবারিক পত্রিকা ‘ছায়া’ এর ১১তম-২০২৪ সংখ্যা। শনিবার রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে প্রয়াত ছাদেক আলী মন্ডল ও বেগম নূর জাহান আলীর প্রয়াণ স্মরণে দিনব্যাপী আলোচনা সভা ও দোয়া অনুষ্ঠান শেষে পত্রিকাটির মোড়ক উম্মোচন অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

গোয়ালন্দ উপজেলার ছোটভাকলা ইউনিয়নের পাচুরিয়া মন্ডল বাড়ি সাদেকাবাদ জনকল্যাণ ট্রাস্টের আয়োজনে লায়লা ভবনের মিলনায়তনে শনিবার বেলা ১১টায় প্রয়াত ছাদেক আলী মন্ডল ও বেগম নূর জাহান আলীর প্রয়াণ স্মরণে বার্ষিক পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানের শুরুতে জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও কোরআন তেলওয়াত হয়। এরপর পারিবারিক পত্রিকা ‘ছায়া’ এর ১১তম সংখ্যা-২০২৪ আনুষ্ঠানিকভাবে মোড়ক উম্মোচন অনুষ্ঠিত হয়। পত্রিকাটির সম্পাদক প্রথম আলো ঢাকা মহানগর এর সভাপতি সাইদুল হাসান এর সম্পাদিত পত্রিকাটির একটি করে কপি আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দের হাতে তুলে দেওয়া হয়।

সাদেকাবাদ কল্যাণ ট্রাস্টের সভাপতি মুহম্মদ জাহাঙ্গীর হোসেন সাচ্চুর সভাপতিত্বে আলোচনা সভার শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ট্রাস্টের সাধারণ সম্পাদক মনোয়ার হোসেন মন্ডল। আলোচনায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কৃষি মন্ত্রণালয়ের সাবেক অতিরিক্ত পরিচালক (প্রশাসন ও অর্থ) ঢাকা খামার বাড়ির মো. ওমর আলী শেখ।

বক্তব্য রাখেন সাদেকাবাদ জনকল্যাণ ট্রাস্টের সভাপতি অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর হোসেন সাচ্চু, প্রথম আলো ঢাকা মহানগর এর সভাপতি সাইদুল হাসান, ঢাকা ন্যাশনাল মেডিকেল কলেজ এর প্রভাষক মো. মোসাদ্দেক হোসেন, চিকিৎসক রুমানা জাহান, প্রথম আলো গোয়ালন্দ প্রতিনিধি রাশেদুল হক রায়হান, বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা আশা পাচুরিয়া শাখার ব্যবস্থাপক আবুল কালাম আজাদ, কিশোরগঞ্জের অষ্ট্রগাম উপজেলা হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তা মুহাম্মদ আল-জুবাইর প্রমূখ।

শেষে অনুষ্ঠিত হয় বিতর্ক প্রতিযোগিতা ও কুইজ প্রতিযোগিতায় বিজয়ী সেরা লেখকদের হাতে পুরষ্কার হিসেবে তুলে দেওয়া হয় বই। পরে যোহর নামাজ শেষে দোয়া অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। সবার পরে মধ্যাহৃ ভোজ শেষে সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিযোগিতা শেষে বিভিন্ন ইভেন্টে বিজয়ীদের হাতেও পুরুস্কার হিসেবে বই প্রদান করা হয়।

ট্যাগঃ
রিপোর্টারের সম্পর্কে জানুন

Rajbari Mail

গোয়ালন্দে ছাত্রলীগের বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত, কমিটি ঘোষণা হবে প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে

গোয়ালন্দে পারিবারিক পত্রিকা ‘ছায়া’ এর মোড়ক উম্মোচন

পোস্ট হয়েছেঃ ০৯:৫১:৩৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২৪

নিজস্ব প্রতিবেদক, গোয়ালন্দঃ “যখন সুখে থাক তখন স্বর্গ, যখন দুঃখে থাক তখন নরক” এই শ্লোগান নিয়ে প্রতি বছরের ন্যায় এবারও প্রকাশিত হলো পারিবারিক পত্রিকা ‘ছায়া’ এর ১১তম-২০২৪ সংখ্যা। শনিবার রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে প্রয়াত ছাদেক আলী মন্ডল ও বেগম নূর জাহান আলীর প্রয়াণ স্মরণে দিনব্যাপী আলোচনা সভা ও দোয়া অনুষ্ঠান শেষে পত্রিকাটির মোড়ক উম্মোচন অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

গোয়ালন্দ উপজেলার ছোটভাকলা ইউনিয়নের পাচুরিয়া মন্ডল বাড়ি সাদেকাবাদ জনকল্যাণ ট্রাস্টের আয়োজনে লায়লা ভবনের মিলনায়তনে শনিবার বেলা ১১টায় প্রয়াত ছাদেক আলী মন্ডল ও বেগম নূর জাহান আলীর প্রয়াণ স্মরণে বার্ষিক পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানের শুরুতে জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও কোরআন তেলওয়াত হয়। এরপর পারিবারিক পত্রিকা ‘ছায়া’ এর ১১তম সংখ্যা-২০২৪ আনুষ্ঠানিকভাবে মোড়ক উম্মোচন অনুষ্ঠিত হয়। পত্রিকাটির সম্পাদক প্রথম আলো ঢাকা মহানগর এর সভাপতি সাইদুল হাসান এর সম্পাদিত পত্রিকাটির একটি করে কপি আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দের হাতে তুলে দেওয়া হয়।

সাদেকাবাদ কল্যাণ ট্রাস্টের সভাপতি মুহম্মদ জাহাঙ্গীর হোসেন সাচ্চুর সভাপতিত্বে আলোচনা সভার শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ট্রাস্টের সাধারণ সম্পাদক মনোয়ার হোসেন মন্ডল। আলোচনায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কৃষি মন্ত্রণালয়ের সাবেক অতিরিক্ত পরিচালক (প্রশাসন ও অর্থ) ঢাকা খামার বাড়ির মো. ওমর আলী শেখ।

বক্তব্য রাখেন সাদেকাবাদ জনকল্যাণ ট্রাস্টের সভাপতি অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর হোসেন সাচ্চু, প্রথম আলো ঢাকা মহানগর এর সভাপতি সাইদুল হাসান, ঢাকা ন্যাশনাল মেডিকেল কলেজ এর প্রভাষক মো. মোসাদ্দেক হোসেন, চিকিৎসক রুমানা জাহান, প্রথম আলো গোয়ালন্দ প্রতিনিধি রাশেদুল হক রায়হান, বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা আশা পাচুরিয়া শাখার ব্যবস্থাপক আবুল কালাম আজাদ, কিশোরগঞ্জের অষ্ট্রগাম উপজেলা হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তা মুহাম্মদ আল-জুবাইর প্রমূখ।

শেষে অনুষ্ঠিত হয় বিতর্ক প্রতিযোগিতা ও কুইজ প্রতিযোগিতায় বিজয়ী সেরা লেখকদের হাতে পুরষ্কার হিসেবে তুলে দেওয়া হয় বই। পরে যোহর নামাজ শেষে দোয়া অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। সবার পরে মধ্যাহৃ ভোজ শেষে সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিযোগিতা শেষে বিভিন্ন ইভেন্টে বিজয়ীদের হাতেও পুরুস্কার হিসেবে বই প্রদান করা হয়।