০৭:২৯ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রাজবাড়ীতে শিল্পায়ন ও কর্মসংস্থানের লক্ষে জেলা প্রশাসকের অনুমোদনের আবেদন

ইমরান হোসেন মনিম, রাজবাড়ীঃ রাজবাড়ী জেলার শিল্পায়ন ও কর্মসংস্থানের লক্ষে ”রাজবাড়ী পদ্মা ইপিজেড” নামে পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশিপ মডেল অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠায় জেলা প্রশাসকের অনুমোদনের লক্ষে জেলা প্রশাসকের কাছে অবেদন পত্র দেওয়া হয়েছে।

সোমবার বিকালে রাজবাড়ী জেলা প্রশাসক আবু কায়সার খানের কাছে আবেদন পত্র  প্রদান করেন ব্যক্তি ও বেসরকারী শিল্প মালিকদের পক্ষে এসইবিএল গ্রুপের চেয়ারম্যান ডিএম মজিবর রহমান। জেলার গোয়ালন্দ মোড় রামপুর মৌজায় এ অর্থনৈতিক অঞ্চল তৈরীর প্রাথমিক স্থান হিসেবে নির্বাচন করা হয়েছে।এ প্রকল্পটি নির্মান করা হলে জেলা সহ দেশের একটি বড় অংশ কর্মসংস্থানের  সুযোগ পাবে।

এ শিল্পায়ন গ্রুপের মধ্যে  বেসরকারী কোম্পানির মধ্যে ব্র্যাক সেরিকালচার কারখানা, সারমানু সিরামিক্স লি. এসইবিএল ফুটওয়্যারলি. এসইবিএল এগ্রোভিশন এবং ডিএক্সটেল ফুড প্রসেসিং ইন্ডাষ্ট্রি যা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। এছাড়াও নতুন কিছু শিল্প উদ্যোক্তা এ এলাকায় শিল্পকারখানা প্রতিষ্ঠায় চেষ্টায় রয়েছেন। প্রায় ৫০ একর জমিতে এ শিল্প কারখানা ও অর্থনৈতিক অঞ্চল  নির্মান করার প্রস্তুতি গ্রহন করা হয়েছে।

ইতোমধ্যে রামপুর মৌজায় ৮৬ একর জমি রিফিউজিদের (এ্যলোটি) বরাদ্দকৃত জমিটি পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে থাকায় এ স্থানে বনজঙ্গলে যুব সমাজের জীবন ধ্বংসের দিকে ধাবিত হওয়ায় এখানকার ২১ একর জমি বসবাসের জন্য রেখে বাকি ৬৫ একর জমিতে  প্রস্তাবিত অর্থনৈতিক অঞ্চলের অনুকুলে শিল্প কারখানা সৃষ্টির লক্ষে এবং বেকার যুবকদের কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে ইজেড এর অনুকুলে বরাদ্দ দেওয়ার জন্যে স্থানীয় রাজবাড়ী জেলা প্রশাসকের বরাবর আবেদন দাখিল করা হয়েছে।

এর অনুলিপি  রাজবাড়ী-১ আসনের সংসদ সদস্য কাজী কেরামত আলীসহ দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রান মন্ত্রনালয়ের সচিব ও মহাপরিচালক এবং রাজবাড়ী দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রান কর্মকর্তা বরাবর সংযুক্তি প্রদান করা হয়েছে।এ ছাড়াও প্রস্তাবিত চারটি মৌজায় সরকারী খাস জমির পরিমান রয়েছে ১০ একর, ব্যক্তি ও বেসরকারী শিল্প উদ্যোক্তাদের জমির পরিমান ৫০ একর ও পরিত্যক্ত ফিউজিয়ানদের ৬৫ একর সহ ১২৫ একর জমিতে প্রস্তাবিত পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশিপ (পিপিপি) রাজবাড়ী পদ্মা ইজেড নামে  গোয়ালন্দমোড় মৌজার রামপুর মৌজায় অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠা করা সম্ভব বলে জানান সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষ।

এসইবিএল গ্রুপ’র চেয়ারম্যান  প্রকৌশলী ডিএম মজিবর রহমান বলেন, এ পরিত্যক্ত এলাকাটি যদি শিল্প এলাকায় পরিনত করা যায় তাহলে রাজবাড়ী, ফরিদপুর সহ দেশের অন্যান্য জেলার মানুষ উপকৃত হবে। সেই সাথে রাজবাড়ী জেলাটি অর্থনৈতিক এলাকা হিসেবে আর্থ সামাজিক উন্নয়নে বিশেষ ভূমিকা রাখবে।

রাজবড়ী জেলা প্রশাসক আবু কায়সার খান বলেন, এ স্থানে অর্থনৈতিক জোন তৈরীতে এবং বেকার যুবকদের কর্মসংস্থানের লক্ষে যে সহযোগীতা প্রয়োজন তা করার আস্বাস দেন।

ট্যাগঃ
রিপোর্টারের সম্পর্কে জানুন

Rajbari Mail

গোয়ালন্দে ছাত্রলীগের বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত, কমিটি ঘোষণা হবে প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে

রাজবাড়ীতে শিল্পায়ন ও কর্মসংস্থানের লক্ষে জেলা প্রশাসকের অনুমোদনের আবেদন

পোস্ট হয়েছেঃ ০৯:৪৭:৩৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ মে ২০২৩

ইমরান হোসেন মনিম, রাজবাড়ীঃ রাজবাড়ী জেলার শিল্পায়ন ও কর্মসংস্থানের লক্ষে ”রাজবাড়ী পদ্মা ইপিজেড” নামে পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশিপ মডেল অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠায় জেলা প্রশাসকের অনুমোদনের লক্ষে জেলা প্রশাসকের কাছে অবেদন পত্র দেওয়া হয়েছে।

সোমবার বিকালে রাজবাড়ী জেলা প্রশাসক আবু কায়সার খানের কাছে আবেদন পত্র  প্রদান করেন ব্যক্তি ও বেসরকারী শিল্প মালিকদের পক্ষে এসইবিএল গ্রুপের চেয়ারম্যান ডিএম মজিবর রহমান। জেলার গোয়ালন্দ মোড় রামপুর মৌজায় এ অর্থনৈতিক অঞ্চল তৈরীর প্রাথমিক স্থান হিসেবে নির্বাচন করা হয়েছে।এ প্রকল্পটি নির্মান করা হলে জেলা সহ দেশের একটি বড় অংশ কর্মসংস্থানের  সুযোগ পাবে।

এ শিল্পায়ন গ্রুপের মধ্যে  বেসরকারী কোম্পানির মধ্যে ব্র্যাক সেরিকালচার কারখানা, সারমানু সিরামিক্স লি. এসইবিএল ফুটওয়্যারলি. এসইবিএল এগ্রোভিশন এবং ডিএক্সটেল ফুড প্রসেসিং ইন্ডাষ্ট্রি যা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। এছাড়াও নতুন কিছু শিল্প উদ্যোক্তা এ এলাকায় শিল্পকারখানা প্রতিষ্ঠায় চেষ্টায় রয়েছেন। প্রায় ৫০ একর জমিতে এ শিল্প কারখানা ও অর্থনৈতিক অঞ্চল  নির্মান করার প্রস্তুতি গ্রহন করা হয়েছে।

ইতোমধ্যে রামপুর মৌজায় ৮৬ একর জমি রিফিউজিদের (এ্যলোটি) বরাদ্দকৃত জমিটি পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে থাকায় এ স্থানে বনজঙ্গলে যুব সমাজের জীবন ধ্বংসের দিকে ধাবিত হওয়ায় এখানকার ২১ একর জমি বসবাসের জন্য রেখে বাকি ৬৫ একর জমিতে  প্রস্তাবিত অর্থনৈতিক অঞ্চলের অনুকুলে শিল্প কারখানা সৃষ্টির লক্ষে এবং বেকার যুবকদের কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে ইজেড এর অনুকুলে বরাদ্দ দেওয়ার জন্যে স্থানীয় রাজবাড়ী জেলা প্রশাসকের বরাবর আবেদন দাখিল করা হয়েছে।

এর অনুলিপি  রাজবাড়ী-১ আসনের সংসদ সদস্য কাজী কেরামত আলীসহ দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রান মন্ত্রনালয়ের সচিব ও মহাপরিচালক এবং রাজবাড়ী দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রান কর্মকর্তা বরাবর সংযুক্তি প্রদান করা হয়েছে।এ ছাড়াও প্রস্তাবিত চারটি মৌজায় সরকারী খাস জমির পরিমান রয়েছে ১০ একর, ব্যক্তি ও বেসরকারী শিল্প উদ্যোক্তাদের জমির পরিমান ৫০ একর ও পরিত্যক্ত ফিউজিয়ানদের ৬৫ একর সহ ১২৫ একর জমিতে প্রস্তাবিত পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশিপ (পিপিপি) রাজবাড়ী পদ্মা ইজেড নামে  গোয়ালন্দমোড় মৌজার রামপুর মৌজায় অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠা করা সম্ভব বলে জানান সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষ।

এসইবিএল গ্রুপ’র চেয়ারম্যান  প্রকৌশলী ডিএম মজিবর রহমান বলেন, এ পরিত্যক্ত এলাকাটি যদি শিল্প এলাকায় পরিনত করা যায় তাহলে রাজবাড়ী, ফরিদপুর সহ দেশের অন্যান্য জেলার মানুষ উপকৃত হবে। সেই সাথে রাজবাড়ী জেলাটি অর্থনৈতিক এলাকা হিসেবে আর্থ সামাজিক উন্নয়নে বিশেষ ভূমিকা রাখবে।

রাজবড়ী জেলা প্রশাসক আবু কায়সার খান বলেন, এ স্থানে অর্থনৈতিক জোন তৈরীতে এবং বেকার যুবকদের কর্মসংস্থানের লক্ষে যে সহযোগীতা প্রয়োজন তা করার আস্বাস দেন।