December 3, 2021, 1:44 am

দৌলতদিয়া ঘাটে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে হামলা-ভাঙচুর, আহত ৮, গ্রেপ্তার ১

Reporter Name
  • Update Time : শুক্রবার, মার্চ ১২, ২০২১
  • 42 Time View
শেয়ার করুনঃ

নিজস্ব প্রতিবেদক, গোয়ালন্দঃ রাজবাড়ীর দৌলতদিয়ায় প্রভাব বিস্তারকে কেন্দ্র করে বৃহস্পতিবার রাতে হামলায় ৮ জন আহতের ঘটনা ঘটেছে। গুরুতর আহত গোয়ালন্দ পৌরসভার নবনির্বাচিত মেয়র নজরুল ইসলাম মন্ডলের ছোট ভাই মোস্তফা মন্ডলসহ দুইজনকে ফরিদপুর পাঠানো হয়েছে। অন্যদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। পুলিশ শুক্রবার ভোরে বাকেন শেখ (৩৫) নামের একজনকে গ্রেপ্তার করেছে।

আহতরা হলেন নজরুল মন্ডলের ভাই উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তফা মন্ডল (৩৫), গোয়ালন্দ পৌরসভার জুড়ান মোল্লার পাড়ার আফজাল বিশ্বাস (৩০), দৌলতদিয়া ছিদ্দিক কাজী পাড়ার ইদ্রিস মন্ডল (৩৫), আফতার মন্ডল (৪৫), আব্দুস সালাম (৩৫), কিয়ামদ্দিন পাড়ার সহিদ মন্ডল (৩৮) হোসেন মন্ডল পাড়ার রফিক সরদার (২৫) ও স্থানীয় আজাদ মোল্লা (৪২)। মোস্তফা ও রফিককে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। বাকিদের গোয়ালন্দে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

হামলার প্রতিবাদে ও অপরাধীদের গ্রেপ্তারের দাবী জানিয়ে শুক্রবার বিকেলে দৌলতদিয়া ঘাটে ও দুপুরে উপজেলা আ.লীগ কার্যালয়ে প্রতিবাদ সভা হয়। উপজেলা আ.লীগ সভাপতি ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোস্তফা মুন্সীর সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক বিপ্লব ঘোষের সঞ্চালনায় দলীয় নেতৃবৃন্দ অপরাধীদের গ্রেপ্তারের দাবী জানান। না হলে বড় ধরনের কর্মসূচি গ্রহণের হুশিয়ারি করেন।

বৃহস্পতিবার রাতে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আফজাল হোসেন জানান, দৌলতদিয়া ঘাটে বাড়ির সামনে মোস্তফা মন্ডলের ব্যক্তিগত কার্যালয়ে ৮-৯ জন আড্ডা দিচ্ছিলাম। রাত সাড়ে ৮টার দিকে স্থানীয় বাকেন শেখ, আমজাদ হোসেন এর নেতৃত্বে ৩০-৩৫ জন লাঠি-সোঠা নিয়ে অতর্কিতভাবে হামলা চালায় ও ভাঙচুর করে।

বাকেন, আমজাদসহ কয়েকজন দক্ষিণাঞ্চল থেকে আসা ঢাকাগামী পণ্যবাহী গাড়ি দৌলতদিয়া ঘাট দিয়ে পারাপারের দায়িত্ব পালন করে। বিনিময়ে নিয়মিত আর্থিক সুবিধা ভোগ করেন। ক্ষমতাসীন দলের অনেকে ওইসব গাড়ির ভাগ নেয়ার চেষ্টা করছিলেন। এ নিয়ে উভয় পক্ষ শক্তি প্রদর্শনের চেষ্টা করায় বেশ কিছুদিন ধরে উত্তেজনা বিরাজ করছিল।

খবর ছড়িয়ে পড়লে আহতদের অনুসারীরা দৌলতদিয়া ঘাট মহাসড়কে বিক্ষোভ করে বাকেন ও আমজাদের গ্রেপ্তারের দাবী জানিয়ে শ্লোগান দিতে থাকে। খবর পেয়ে দ্রুত গোয়ালন্দ ঘাট থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।

উপজেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক বিপ্লব ঘোষ, যুগ্ম-সম্পাদক ফকীর আমজাদ হোসেন, পৌর আ.লীগের যুগ্ম-সম্পাদক সালাহ উদ্দিন মাহমুদ বলেন, নজরুল ইসলাম মন্ডল শপথ শেষে বৃহস্পতিবার বিকেলে এলাকায় ফিরেন। যাতে ঘাটে কেউ প্রভাব বিস্তার করতে না পারে দৌলতদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রহমানের মদদে বাকেন, আমজাদের নেতৃত্বে ৩০-৪০জন হামলা চালায়।

দৌলতদিয়ার ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রহমান বলেন, বৃহস্পতিবার সারাদিন আমি ঘাটেই ছিলাম না। তাহলে হামলার সাথে জড়িত থাকলাম কিভাবে? আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ আনা হয়েছে।

পৌরসভার মেয়র নজরুল ইসলাম মন্ডল বলেন, শপথ শেষে বৃহস্পতিবার বিকেলে এলাকায় ফিরে ক্লান্ত হয়ে বাসায় বিশ্রামে ছিলাম। সন্ধ্যার পর এমন ন্যাক্কারজনক হামলার ঘটনায় আমি হতভম্ব হয়ে পড়েছি। ঘটনার সাথে জড়িতদের শাস্তির দাবী জানাচ্ছি।

গোয়ালন্দ ঘাট থানার ওসি মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল তায়াবীর বলেন, হামলার খবর পাওয়া মাত্র পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। এ ঘটনায় একটি অভিযোগ পাওয়া গেছে। শুক্রবার ভোরে দৌলতদিয়া ঘাট থেকে অভিযুক্ত বাকেনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বাকিদের গ্রেপ্তারে পুলিশ মাঠে কাজ করছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
© All rights reserved © 2021 Rajbarimail
Developed by POS Digital
themesba-lates1749691102