September 18, 2021, 8:39 am

কুয়াশায় দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌপথে দুই দফা ৭ ঘন্টা ফেরি বন্ধের পর চালু

Reporter Name
  • Update Time : রবিবার, জানুয়ারি ১৭, ২০২১
  • 20 Time View
শেয়ার করুনঃ

ষ্টাফ রিপোর্টার, গোয়ালন্দঃ দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের অন্যতম নৌপথ রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া ও মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া রুটে শনিবার দিবাগত মধ্যরাত থেকে রোববার সকাল ১০টা পর্যন্ত দুই দফায় ফেরি সহ নৌযান চলাচল বন্ধ ছিল। দীর্ঘ সময় ফেরি চলাচল বন্ধ থাকায় উভয় ঘাটে যানবাহনের দীর্ঘ সারি হয়েছে। এতে দুর্ভোগে পড়েছেন কয়েকশ যানবাহনের যাত্রী ও চালক।

প্রথম দফায় শনিবার দিবাগত রাত ১টার পর থেকে রোববার ভোর ৫টা পর্যন্ত প্রায় ৪ ঘন্টা এবং দ্বিতীয় দফায় সকাল ৭ টার আগ মুহুর্ত থেকে বেলা ১০ টা পর্যন্ত আরো প্রায় ৩ ঘন্টার মতো বন্ধ ছিল। দুই দফায় ৭ ঘন্টার মতো নৌযান চলাচল বন্ধ থাকায় দৌলতদিয়া ও পাটুরিয়া ঘাটে যানবাহনের দীর্ঘ লাইন তৈরী হয়।

বিআইডব্লিউটিসি দৌলতদিয়া ঘাট কার্যালয়ের ব্যবস্থাপক আবু আব্দুল্লাহ জানান, শনিবার দিবাগত মধ্যরাত থেকে কুয়াশার কারণে নদী অববাহিকায় নৌযান চলাচলে সমস্যা দেখা দেয়। এক পর্যায়ে কুয়াশার মাত্রা বাড়তে থাকলে সামান্য দূরের কিছুই দেখতে না পেয়ে রাত ১টার দিকে ফেরি চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়। তার আগে পাটুরিয়া ঘাট থেকে ফেরি ছাড়া বন্ধ করে দেয়। এর আগে উভয় ঘাট থেকে ছেড়ে যাওয়া পাঁচটি ফেরি মাঝ নদীতে নোঙর করতে বাধ্য হয়। রাত শেষে আজ রোববার ভোর ৫টার দিকে কুয়াশার পরিমান কম দেখে মাঝ নদীতে নোঙর করে থাকা সকল ফেরি উভয় ঘাটে ভিড়ে। অবস্থা বুঝে দৌলতদিয়া ঘাটে নোঙর করে থাকা অন্যান্য ফেরিও যানবাহন নিয়ে পাটুরিয়ার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। কিছুক্ষণ পর পুনরায় কুয়াশা বাড়তে থাকলে নদীপথ ঘোলা হয়ে আসে। এক পর্যায়ে সকাল পৌনে ৭টার দিকে দ্বিতীয় দফায় ফেরি চলাচল বন্ধ করতে বাধ্য হয় কর্তৃপক্ষ। এ সময়ও প্রায় তিন ঘন্টার মতো ফেরি বন্ধ থাকার পর বেলা ১০টার দিকে ফেরি চলাচল স্বাভাবিক হয়। দুই দফায় প্রায় ৭ ঘন্টার মতো ফেরি চলাচল বন্ধ থাকায় উভয় ঘাটে কয়েকশ গাড়ি মহাসড়কে আটকা থাকে।

তিনি আরো জানান, দীর্ঘ সময় ফেরি বন্ধের কারণে দৌলতদিয়া প্রান্তে শনিবার রাতে আসা যাত্রীবাহি নৈশ কোচ এখনো পার হতে পারেনি। নৈশ কোচসহ অন্তত তিন শতাধিক যানবাহন ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে পারাপারের অপেক্ষায় আটকা পড়ে। একই ভাবে পাটুরিয়া প্রান্তে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কেও কয়েকশ গাড়ি আটকে আছে। তীব্র শীত ও কুয়াশার মধ্যে আটকে থাকা যানবাহনের যাত্রী ও চালকেরা দুর্ভোগের শিকার হন।

বরিশাল থেকে আসা ঢাকাগামী সাকুরা পরিবহনের চালক সোহেল রানা বলেন, শনিবার দিবাগত রাত ১টার দিকে দৌলতদিয়া ঘাটের অদূরে ঘাটের সিরিয়ালে এসে আটকা পড়ি। তখনই জানতে পারি কুয়াশায় ফেরি বন্ধ হয়ে গেছে। এ সময় আমার বাসে প্রায় ৩৩ জনের মতো যাত্রী ছিল। সারারাত বাসেই বসে থাকার পর অনেকেই ক্লান্ত হয়ে যায়। তীব্র শীত ও কুয়াশায় কষ্ট অনুভব করে। প্রায় ১০ ঘন্টা ধরে ঘাটে সিরিয়ালে আটকে আছি। তবে সকালের দিকে কয়েকজন যাত্রী বাস থেকে নেমে গেছেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
© All rights reserved © 2021 Rajbarimail
Developed by POS Digital
themesba-lates1749691102