August 5, 2021, 4:08 am
Title :
হিন্দু বাড়িতে হামলা, মারধর, পুলিশের হস্তক্ষেপে পালিয়ে থাকা পরিবার বাড়িতে প্রবাসী ফোরামের জন্মদিনে ব্লাড ডোনার ক্লাবকে অক্সিজেন সিলিন্ডার ও সুরক্ষা সামগ্রী প্রদান ভাঙন কবলিত মানুষের মাঝে ইয়ামাহা রাইডার্স এর খাদ্য সামগ্রী বিতরণ সকালে ব্যক্তিগত গাড়ির লম্বা লাইন, দুপুরে ঘাটে মানুষের ভিড় দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া রুটে লঞ্চে সকাল থেকেই মানুষের ভিড় গৃহকর্মীকে হত্যাচেষ্টার অভিযোগে চিত্রনায়িকা একা কারাগারে কারখানা খোলায় দৌলতদিয়া ঘাটে মানুষের ঢল, যে যেভাবে পারছে সেভাবে ছুটছে পদ্মার ১৯ কেজির পাঙ্গাশ, বিক্রি হলো ২৬ হাজার ৬০০ টাকায় গোয়ালন্দে জুয়া খেলা অবস্থায় টাকাসহ ৬ জুয়াড়ি আটক, পলাতক দুই শ্রমিকদের যাতায়াতের সুবিদার্থে রাত থেকে চলবে লঞ্চ

রাজবাড়ীতে মাদ্রাসায় চাকরী দেওয়ার কথা বলে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ

Reporter Name
  • Update Time : মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ১, ২০২০
  • 20 Time View
শেয়ার করুনঃ

হেলাল মাহমুদ, রাজবাড়ীঃ রাজবাড়ী জেলা সদরের চন্দনী ইউনিয়নের আফড়া ইসলামীয়া সিদ্দিকিয়া আলিম মাদ্রাসায় অফিস সহকারী কাম-কম্পিউটার অপারেটর পদে চাকরী দেওয়ার কথা বলে এক ব্যক্তির কাছ থেকে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে। মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সম্পাদক তানভীরুল ইসলাম হাসান এবং মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল ইমদাদুল ইসলামের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী চাকরী প্রার্থী একই ইউনিয়নের (চন্দনী) হরিণধরা গ্রামের শরিফুল ইসলাম রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারসহ বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছেন। অভিযোগের প্রেক্ষিতে রাজবাড়ী জেলা শিক্ষা অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) শামসুন্নাহার চৌধুরী সোমবার সকালে সরেজমিনে তদন্ত করার জন্য মাদ্রাসায় যান এবং পক্ষদ্বয়সহ সংশ্লিষ্টদের সাথে কথা বলেন। আগামী ৪ ডিসেম্বর ওই নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।

অভিযোগকারী শরিফুল ইসলাম রাজবাড়ীমেইলকে বলেন, গত ২৪/০৬/২০২০ইং তারিখে একটি জাতীয় পত্রিকায় মাদ্রাসায় অফিস সহকারী কাম-কম্পিউটার অপারেটর পদে ১ জন লোক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়। আমি ওই পদে আবেদন করার পর মাদ্রাসার সভাপতি ও প্রিন্সিপাল আমার সাথে যোগাযোগ করে চাকরীর জন্য ৯ লাখ টাকা চান। আলোচনার মাধ্যমে ৭ লাখ টাকায় সমঝোতা হয়। এরপর আমি ০৮ নভেম্বর ও ০৯ নভেম্বর তারিখে দুই দফায় সভাপতির ব্র্যাক ব্যাংকের রাজবাড়ী শাখার একাউন্টে ২ লাখ টাকা জমা দেই। ১৫/১১/২০২০ইং তারিখে দুই জন সাক্ষীর মাধ্যমে নগদে আরও ৩ লাখ টাকা সভাপতিকে দেই। পরবর্তীতে বিভিন্নভাবে জানতে পারি মাদ্রাসার সভাপতি ও প্রিন্সিপাল চাকরী দেওয়ার কথা বলে আমার মতো অন্য প্রার্থীদের কাছ থেকেও মোটা অংকের টাকা গ্রহণ করেছেন। আমি হতবিহবল হয়ে সভাপতি ও প্রিন্সিপালের সাথে যোগাযোগ করলে তারা আমাকে এড়িয়ে চলতে থাকেন। এমনকি চুক্তির বাকী ২ লাখ টাকা নেয়া কিংবা চাকরীর নিশ্চয়তা দেয়া থেকে বিরত থাকেন। এ অবস্থায় নিরুপায় হয়ে আমি বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ করেছি। আমি গরীব মানুষ, ধার-দেনা করে টাকা দিয়েছি। চাকরী না হলে বা টাকাটা মার গেলে আমি শেষ হয়ে যাবো।

রাজবাড়ী জেলা শিক্ষা অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) শামসুন্নাহার চৌধুরী বলেন, তদন্তকালে অভিযোগকারী ও অভিযুক্ত দু’পক্ষই উপস্থিত ছিলেন। তারা যে বক্তব্য দিয়েছেন তা এখনো যাচাই করা সম্ভব হয়নি। অভিযোগ প্রমাণীত হলে প্রিন্সিপালের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থার পাশাপাশি কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা সাপেক্ষে সভাপতির বিষয়েও ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এছাড়া সার্বিক বিষয়ে কর্তৃপক্ষকে (অধিদপ্তরে) অবহিত করা হবে। তারা সিদ্ধান্ত জানাবেন যে, আগামী ৪ডিসেম্বর উক্ত পদে নিয়োগের পরীক্ষা হবে-নাকি স্থগিত থাকবে।
অভিযোগ প্রসঙ্গে মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি তানভীরুল ইসলাম দাবী করেন, রাজনৈতিক ও ব্যবসায়ীক কারণে তার সাথে অর্থনৈতিক লেনদেন হয়েছে। চাকরী দেওয়ার কথা বলে টানা নেওয়ার অভিযোগ সত্য নয়।

মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল এমদাদুল ইসলামও চাকরী দেওয়ার কথা বলে টাকা নেওয়ার অভিযোগ অস্বীকার করেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
© All rights reserved © 2021 Rajbarimail
Developed by POS Digital
themesba-lates1749691102