August 12, 2022, 1:01 pm
শিরোনামঃ
রাজবাড়ীতে সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমূলক অভিযোগ প্রত্যাহারের দাবীতে মানববন্ধন গোয়ালন্দে ‘গ্রামীণ উন্নয়নে পর্যটন’ শীর্ষক কর্মশালা অনুষ্ঠিত রাজবাড়ীতে ধর্ষনকালে এলাকাবাসি হাতেনাতে আটক করে পুলিশে দিল ধর্ষককে রাজবাড়ীতে মান ভেদে প্রতি কেজি চালের বাজার দর বেড়েছে ৬ থেকে ৮ টাকা রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দির পদ্মবিলের অপার সৌন্দর্যে মুগ্ধ দর্শনার্থীরা রাজবাড়ীর চর চাঁদপুর ও রামনগর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিদায় সংবর্ধনা যৌনপল্লীর মা ও শিশুদের দিনব্যাপী বিনামূল্যে চিকিৎসাবসেবা দিল উত্তোরণ ফাউন্ডেশন রাজবাড়ীতে কৃষি ব্যাংকে ঋণ জালিয়াতি, মৃত ব্যক্তির নামেও ঋণ গোয়ালন্দে বঙ্গমাতার জন্মবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে সেলাই মেশিন ও অনুদানের চেক বিতরণ ফরিদপুর জেলা আওয়মীলীগ কার্যালয়ে ‘‘বঙ্গবন্ধু কর্নার” স্থাপন

বাঘমারা-জৌকুড়া ফেরিঘাট সংযোগ সড়কের বেহাল অবস্থা নিরসনের দাবীতে মানববন্ধন

Reporter Name
  • Update Time : বুধবার, অক্টোবর ২৮, ২০২০
  • 101 Time View
শেয়ার করুনঃ

ষ্টাফ রিপোর্টারঃ দক্ষিণাঞ্চলের সাথে উত্তরাঞ্চলের যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম রাজবাড়ীর বাঘমারা-জৌকুড়া ফেরিঘাট সংযোগ সড়কের বেহাল অবস্থা নিরসনের দাবীতে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী। বুধবার সকালে সড়কের দুই পাশে দাঁড়িয়ে স্থানীয় মিজানপুর ও চন্দনী ইউনিয়ন বাসীর ব্যানারে ঘন্টাব্যাপী বিক্ষোভ ও মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়।

রাজবাড়ী সড়ক ও জনপদ বিভাগ (সওজ) সূত্র জানায়, ২০১৮ সালের মাঝামাঝিতে বাঘমারা-জৌকুড়া ফেরিঘাট সংযোগ সড়কের প্রায় সাড়ে ৬কিলোমিটার উন্নয়ন কাজের দরপত্র প্রদান করা হয়। ফরিদপুরের মের্সাস ওয়াহিদ কনষ্ট্রাকশনের অধিনে প্রায় ৩১ কোটি টাকার চুক্তিমূল্যে কাজটি ওই বছর শুরু হয়ে চলতি বছর (২০২০) ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে শেষ করার কথা। ইতিমধ্যে সড়কের কাজের অর্ধেকের বেশি কাজ শেষ হয়েছে। স্থানীয় বালু ব্যবসায়ীরা ১০ চাকা বিশিষ্ট বড় বড় ট্রাক ভর্তি করে বালু বিভিন্ন স্থানে আনা নেওয়া করায় রাস্তার বিভিন্ন অংশে ক্ষতিগ্রস্থ হয়। এমনকি নির্মাণ কাজে ব্যাঘাত ঘটে বলে প্রতিকার চেয়ে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার ও সড়ক ও জনপদ বিভাগের কাছে আবেদন করে। পরে সংশ্লিস্ট কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্তে সড়কের বাঘমারা এলাকায় একটি বড় এক্সভেটর এবং জৌকুড়া বাজারের কাছে একটি ভারি হাইড্রোরোলার বসিয়ে রাস্তাটি আটকে দেয়। জরুরী বা ছোট গাড়ি চলাচলের জন্য এ দুটি স্থানে পাশ দিয়ে সামান্য জায়গা খোলা রাখা হয়।

কিন্তু এলাকাবাসীর অভিযোগ রাস্তাটির নির্মাণের শুরুতে নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার ও কাজের ধীর গতির কারণে সড়কটি দিয়ে সাধারণ যানবাহন চলাচল করতে পারছে না। এমনকি জরুরী প্রয়োজনে এ্যাম্বুলেন্স নিয়েও চলাচল করা যায়না। অবিলম্বে রাস্তা থেকে ওই দুটি এক্সভেটর ও রোলার সরিয়ে খুলে দেওয়ার দাবী জানান। এছাড়া স্থানীয় কিছু ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী রয়েছেন যারা ব্যবসার জন্য ছোট ছোট ট্রাক বা অন্যান্য গাড়িতে মাল আনা নেওয়া করে থাকেন।

বুধবার সকাল ১০টা থেকে বেলা ১১টা পর্যন্ত ঘন্টাব্যাপী জৌকুড়া বাজার থেকে রাস্তার দুই ধারে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে। মানববন্ধন কর্মসূচিকালে বক্তব্য রাখেন মিজানপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আজম ম-ল, রাজবাড়ী সদর থানা আওয়ামী লীগ নেতা কাওছার উল ফেরদৌস, চন্দনী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ আব্দুর রব, স্থানীয় চন্দনী ইউনিয়ন পরিষদের ২নম্বর ওয়ার্ড সদস্য ফয়সাল আহম্মেদ চান্দু প্রমূখ। একই সাথে তারা বিক্ষোভ মিছিল করে দ্রুত রাস্তার নির্মাণ কাজ সমাপ্ত এবং রাস্তাটি খুলে দেওয়ার দাবী জানান। এসময় তারা ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ও সড়ক ও জনপদ বিভাগের প্রকৌশলীদের বিরুদ্ধেও নানা ধরনের শ্লোগান দেন।

রাজবাড়ী সড়ক ও জনপদ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী কেবিএম সাদ্দাম হোসেন বলেন, বালু ব্যবসায়ীরা ১০ চাকার ভারী ট্রাকে বালুভর্তি করে নিয়মিত আনা নেয়া করায় সড়কের বিভিন্ন স্থান ক্ষতিগ্রস্থ হয়। এমনকি রাস্তার নির্মাণকাজেও ব্যাঘাত ঘটতে থাকে। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার সহ বিভিন্ন দপ্তরে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য আবেদন জানালে কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্তে রাস্তার একপাশ খোলা রেখে আটকে প্রাথমিক ভাবে আটকে রাখা হয়। যাতে ১০ চাকার কোন গাড়ি বালুভর্তি করে চলাচল করতে না পারে। যেটুকো খোলা রাখা হয়েছে তাতে ছোট যে কোন গাড়ি অনায়াসে যাতায়াত করতে পারবে। বর্তমানে জৌকুড়া-নাজিরগঞ্জ নৌপথে ফেরি চলাচল বন্ধ থাকায় রাস্তাটি খোলা অত জরুরী হয়ে পড়েনি। তবে কাজ শেষ হলেই খুলে দেওয়া হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

0 0 votes
Article Rating
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
More News Of This Category
© All rights reserved © 2021 Rajbarimail
DeveloperAsif
themesba-lates1749691102
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x