May 20, 2022, 10:48 pm
শিরোনামঃ
গোয়ালন্দে পদ্মার ভাঙনঃ থেমে আছে ঘাট আধুনিকায়ন কাজ রাজবাড়ীতে টিকা সপ্তাহ উপলক্ষে প্রশিক্ষণ কর্মশালা কালুখালীতে ভর্তুকি মূল্যে কৃষি যন্ত্রাংশ ক্রয়ে অনিয়মের অভিযোগ রাজবাড়ীতে দ্বিতীয় শ্রেনীর শিশু শিক্ষার্থী ধর্ষন, ধর্ষক গ্রেপ্তার দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌপথঃ তিন ফেরি বিকল, ঘাট এলাকায় পণ্যবাহী গাড়ির চাপ গোয়ালন্দে হেরোইনসহ তরুণ গ্রেপ্তার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল রাজবাড়ীতে শব্দ দূষণ নিয়ন্ত্রনে সচেতনতামূলক সভা রাজবাড়ীর পুলিশ পরিদর্শক অধীর চন্দ্র রায়ের বদলি জনিত বিদায় সংবর্ধনা রাজবাড়ীতে পেঁয়াজের দাম বাড়লেও লোকসানে চাষিরা

মানসিক ভারসাম্যহীন মানুষ খুঁজে মুখে খাবার তুলে দেন গোয়ালন্দের সফিক

Reporter Name
  • Update Time : রবিবার, আগস্ট ২৩, ২০২০
  • 99 Time View
শেয়ার করুনঃ

বিশেষ প্রতিনিধিঃ করোনা ভাইরাসকে উপেক্ষা করে পথে প্রান্তরে, সড়ক-মহাসড়কে, হাট-বাজার, বাসষ্ট্যান্ড, রেলওয়ে ষ্টেশন বা ঘাট এলাকায় পড়ে থাকা মানসিক ভারসাম্যহীন মানুষ খুঁজে বেড়ানো যেন এখন অন্যতম কর্ম হয়ে উঠেছে। দুই বছর ধরে ওই সব মানুষের মুখে অন্ন তুলে দিয়ে যেন সুখ খুঁজে পান রাজবাড়ী ইঞ্জিনিয়ার্স পলিটেকনিক ইনষ্টিটিউটের জুনিয়র ইনষ্ট্রাক্টর মো. সফিক মন্ডল (২৭)।
সফিক মন্ডল গোয়ালন্দ পৌরসভার দেওয়ান পাড়ার মৃত মানিক মন্ডলের ছয় সন্তানের মধ্যে তৃতীয়। সে ঢাকার একটি বেসরকারি বিশ^বিদ্যালয়ের কম্পিউটার সাইন্সের পঞ্চম সেমিষ্টারের ছাত্র।

তাঁর এমন কর্মকা- গোয়ালন্দ ছেড়ে জেলাব্যাপী ছড়িয়ে পড়েছে। একজন সচ্ছ সমাজকর্মী হিসেবে তাঁর পরিচিতি ঘটেছে। সে বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সাথে সক্রিয়ভাবে জড়িত। সফিক মন্ডল প্রথম আলো গোয়ালন্দ বন্ধুসভার সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক। তাঁর এমন মহোত কর্মকান্ডের সাথে সক্রিয়ভাবে জড়িত রয়েছে কয়েক বন্ধু। যাদের অর্থনৈতিক সহযোগিতা নিয়ে করোনার মধ্যেও নিয়মিত এমন কাজ করে যাচ্ছেন। বন্ধুদের মধ্যে অন্যতম হিসেবে সার্বক্ষনিকভাবে পাশে রয়েছেন ইমরান হোসেন, কামরুল ইসলাম, সজিব শাহরিয়ার সহ কয়েকজন।

শীতের মৌসুমে এসব ভবুঘুরে মানুষ খুঁজে বের করে তাদের গায়ে শীতবস্ত্র তুলে দেওয়া, বন্যার সময় অসহায় মানুষের বাড়ি খাদ্য সামগ্রী পৌছে দেওয়া, নদী ভাঙা মানুষের ঘর সরিয়ে নিতে নিজ থেকে সক্রিয়ভাবে তাদের সাথে থেকে কাজ করা যেন তার এখন নেশায় পরিণত হয়েছে। গত রোজার মাস থেকে ওই সব ভবুঘুরে মানুষের জন্য ইফতারি সামগ্রী দেয়ার পাশাপাশি প্রতি শুক্রবার অন্তত একবেলা খাবার তুলে দেওয়ার কাজটি করে যাচ্ছেন সফিক ও তাঁর বন্ধু মহল।

সফিক মন্ডলের হাই স্কুলের শিক্ষক, গোয়ালন্দ প্রপার হাই স্কুলের সহকারী শিক্ষক ও প্রথম আলো বন্ধুসভার সাংগঠনিক সম্পাদক জীবন চক্রবর্তী বলেন, সফিক একজন মানবিক মানুষ। শীতের সময় বেড়িয়ে পড়ে অসহায় ছিন্নমুল মানুষের জন্য শীতবস্ত্র নিয়ে। বন্যা আসলে সবার কাছ থেকে সহযোগিতা নিয়ে ছুটে যায় খাদ্য সামগ্রী নিয়ে। এছাড়া দীর্ঘদিন ধরে চলছে রাস্তার ধারে বা হাট-বাজারে, ঘাটে পড়ে থাকা অসহায় ভারসাম্যহীন মানুষের জন্য প্রতি শুক্রবার দুপুরের খাবার ব্যবস্থা করা। আমি কয়েকবার সফিকের এমন মানবিক কাজে সরাসরি যুক্ত ছিলাম।

সফিক মন্ডল জানান, পড়াশুনা প্রায় শেষের পথে। এখনো নিজে স্বয়ং সম্পূর্ণ হতে পারিনি। অসহায় মানুষের জন্য সব সময় মন কাঁদে। তাই নিজের সাধ্যের মধ্য থেকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেই। আমি চার বছর ধরে অসহায় শীতার্ত মানুষের শীতবস্ত্র দেয়ার চেষ্টা করছি। এর পাশাপাশি দুই বছর ধরে ওইসব মানসিক ভারসাম্যহীন ও ভবঘুরে মানুষের মুখে সপ্তাহে অন্তত একদিন দুপুরে খাবার তুলে দিচ্ছি। আমার সাথে এখন নিয়মিতভাবে যুক্ত হয়েছে বন্ধু ইমরানসহ আরো কয়েকজন। গত শুক্রবার গোয়ালন্দ থেকে রাজবাড়ী সদর উপজেলার গোয়ালন্দ মোড় পর্যন্ত ঘুরে ৩১ জন মানসিক ভারসাম্যহীন ও ভবঘুরে মানুষের হাতে খাবার তুলে দিয়েছে। তার আগের শুক্রবার পেয়েছিলাম আরো ২০জনকে। এমন মানসিক ভারসাম্যহীন যাদের সমাজের অনেকে পাগল হিসেবে আখ্যা দেই তাদের খুঁজে মাংস-খিচুরি খাবারের ব্যবস্থা করে দিয়েছি। কারণ এসব মানুষের কাছে অনেকে ভিড়তে চাই না।

সফিক মন্ডল আরো বলেন, করোনার কারণে অনেকে ভয়ে এসব মানুষের পাশে দাড়াচ্ছেন না। কিন্তু আমরা সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে গোয়ালন্দের দৌলতদিয়া ঘাট, রেলওয়ে ষ্টেশন, মৌলভির বাজার, পৌরসভার জামতলা, মকবুলের দোকান, জমিদারব্রীজ, গোয়ালন্দ মোড়সহ বিভিন্ন এলাকার রাস্তার ধারে বা হাট-বাজার ও সড়কের পাশ থেকে তাদের আবিস্কার করে খাদ্য সরবরাহ করেছি।

প্রথম আলো গোয়ালন্দ বন্ধুসভার সাধারণ সম্পাদক ও স্কুল শিক্ষক মাহাফুজুর রহমান বলেন, সমাজের অনেক বিত্তবান মানুষ আছেন যাদের অর্থ থাকলেও এরকম মানুষের পাশে দাড়ানোর মতো সময় নেই। সফিক বর্তমানে একটি বেসরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের যুক্ত থাকলেও ছাত্র জীবন শেষ হয়নি। এমন অবস্থায়ও করোনাকে উপেক্ষা করে অনেক দিন ধরে প্রতিটি মানবিক কাজে যুক্ত থাকতে দেখে আমি অবিভুত।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
© All rights reserved © 2021 Rajbarimail
Developed by POS Digital
themesba-lates1749691102