August 5, 2021, 3:51 am
Title :
হিন্দু বাড়িতে হামলা, মারধর, পুলিশের হস্তক্ষেপে পালিয়ে থাকা পরিবার বাড়িতে প্রবাসী ফোরামের জন্মদিনে ব্লাড ডোনার ক্লাবকে অক্সিজেন সিলিন্ডার ও সুরক্ষা সামগ্রী প্রদান ভাঙন কবলিত মানুষের মাঝে ইয়ামাহা রাইডার্স এর খাদ্য সামগ্রী বিতরণ সকালে ব্যক্তিগত গাড়ির লম্বা লাইন, দুপুরে ঘাটে মানুষের ভিড় দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া রুটে লঞ্চে সকাল থেকেই মানুষের ভিড় গৃহকর্মীকে হত্যাচেষ্টার অভিযোগে চিত্রনায়িকা একা কারাগারে কারখানা খোলায় দৌলতদিয়া ঘাটে মানুষের ঢল, যে যেভাবে পারছে সেভাবে ছুটছে পদ্মার ১৯ কেজির পাঙ্গাশ, বিক্রি হলো ২৬ হাজার ৬০০ টাকায় গোয়ালন্দে জুয়া খেলা অবস্থায় টাকাসহ ৬ জুয়াড়ি আটক, পলাতক দুই শ্রমিকদের যাতায়াতের সুবিদার্থে রাত থেকে চলবে লঞ্চ

দৌলতদিয়ায় ঈদে ঘুরমুখী দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল মানুষের ভিড়, স্বাস্থ্যবিধির বালাই নেই

Reporter Name
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, জুলাই ৩০, ২০২০
  • 18 Time View
শেয়ার করুনঃ

বিশেষ প্রতিনিধিঃ একদিন পর পবিত্র ঈদুল আযহা। পরিবারের সাথে ঈদ করতে রাজধানী ছেড়ে আসা দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলগামী মানুষের ঢল নামে রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া ঘাটে। মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া থেকে আসা প্রতিটি ফেরিতে মানুষ ও মোটর সাইকেলে ভরপুর ছিল। ভিড়ের কারণে কোথাও সামাজিক দূরত্ব মানা হয়নি। ছিল না স্বাস্থ্য বিধির বালাই।

ঘাট সংশ্লিষ্টরা জানান, বৃহস্পতিবার সকাল থেকে প্রতিটি ফেরি ও লঞ্চ বোঝাইমানুষ নদী পাড়ি দিয়ে আসতে থাকে। বিশেষ করে ভরা নদীতে দুর্ঘটনা এড়াতে লঞ্চের পরিবর্তে অধিকাংশ মানুষ ফেরিতেই আসতে থাকে। খুব সকাল থেকে প্রতিটি ফেরি বোঝাই করে মানুষজন আসতে থাকে। তবে বেলা বাড়ার সাথে মানুষের ভিড় অনেকটা কমে যায়। এসময় অনেকের মুখে মাস্ক থাকলেও পড়েছিল থুতনির ওপর। একজন আরেকজনের শরীর ঘেঁষে ঠাসাঠাসি করে ফেরিতে আসতে থাকে। এতে করে চরমভাবে স্বাস্থ্য ঝুকি দেখা দেয়।

মোটরসাইকেলে করে শিশু সন্তান ও স্ত্রীকে সাথে করে গাজীপুর থেকে খুব সকালে রওয়ানা করেন কুষ্টিয়াগামী আব্দুল করিম। তিনি গাজীপুরের একটি বেসরকারী প্রতিষ্ঠানে চাকুরী করেন। পরিবারের সাথে ঈদ করতে গণপরিবহন এড়াতে নিজের মোটরসাইকেল নিয়ে রওয়ানা করেন। ফেরির ভিড়ের মধ্যে এভাবে স্ত্রী ও শিশু সন্তানকে বসিয়ে অনেকটা ঝুঁকি নিয়েই তিনি বাড়ি যাচ্ছিলেন।

ঝুঁকি নিয়ে যাওয়ার ব্যাপারে জানতে চাইলে আব্দুল করিম বলেন, রোজার ঈদে বাড়ি যাওয়া হয়নি। করোনার কারণে গাজীপুরে ঈদ করি। এখন করোনা পরিস্থিতি সবার কাছেই অনেকটা স্বাভাবিক হয়ে গেছে। এছাড়া প্রতি বছর বাড়িতে পশু কোরবানী করি। তাই গণপরিবহন এড়াতে এভাবেই বাড়ি যাচ্ছি। তবে ফেরির মধ্যে এত ভিড়ের কারণে অনেক ঝুকি রয়েছে। কিন্তু উপায় নাই, বাড়ি যেতে হবে।

এদিকে মাঝারী আকারের ফেরি ‘ঢাকা’ পাটুরিয়া থেকে আসার সময় প্রতি ট্রিপে ফেরি ভর্তি মানুষ ও ছোট যানবাহন ছিল সবচেয়ে বেশি। ঠাসাঠাসি করে ফেরি বোঝাই হয়ে আসতে দেখা যায়। ফেরি ঘাট নিয়ে অনেকটা শঙ্কা থাকলেও ঘাট সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দাবী, পানি কমতে থাকায় ঝুঁকি অনেকটা কমে গেছে।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীন নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ) দৌলতদিয়ায় দায়িত্বপ্রাপ্ত উপসহকারী প্রকৌশলী মো. সহিদুল ইসলাম বলেন, দৌলতদিয়ায় ৬টির মধ্যে গত বছর ১ ও ২ নম্বর ঘাট ভাঙনে বিলীন হয়। এ বছরে বন্যার আগেই ঘাট দুটি মেরামত করে ঠিক করা হয়। ৬নম্বর ঘাট থেকে ১নম্বর ঘাটের দূরত্ব অনেক ও উজানে হওয়ায় স্রোতের বিপরিতে এত দূর সহজে ফেরি ভিড়তে চায়না। ২নম্বর ঘাটে পন্টুন না থাকায় সেখানে কোন ফেরি ভিড়তে পারছে না। ৩ ও ৬ নম্বর ঘাটের সংযোগ সড়ক গত তিন দিন আগে বন্যার পানিতে তলিয়ে গেলে ফেরিতে গাড়ি ওঠানামায় চরমভাবে বিঘিœত হয়। ২৮ জুলাই জরুরীভাবে বিআইডব্লিউটিএ ও সড়ক ও জনপদ বিভাগ যৌথভাবে সড়কে ইটের আদালতা ও বালুভর্তি বস্তা ফেলে ঠিক করায় এখন কোন সমস্যা নেই। বর্তমানে চারটি ঘাট দিয়ে যানবাহন ফেরিতে ওঠানামা করছে।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীন নৌপরিবহন করপোরেশন (বিআইডব্লিউটিসি) দৌলতদিয়ার ৫নম্বর ফেরি ঘাটের দায়িত্বরত উচ্চমান সহকারী কুতুব উদ্দিন বলেন, ১৫টি ফেরি চলাচল করলেও নতুন ফেরী রুহুল আমিন যোগ হওয়ায় বর্তমানে এই রুটে ১৬টি ফেরি চলাচল করছে।

বিআইডব্লিউটিসি দৌলতদিয়া কার্যালয়ের ব্যবস্থাপক ব্যবস্থাপক আবু আব্দুল্লাহ জানান, এ রুটে ১৬টি ফেরি দিয়ে যাত্রী ও যানবাহন পারাপার করা হচ্ছে। দুই দিন ধরে পানি কমায় আমরা অনেকটা স্বস্তিতে আছি। আশা করি এ যাত্রায় সমস্যা হবে। তবে ঈদের পর ফের কর্মস্থলের দিকে মানুষ যখন ছুটবে তখনকার অবস্থা নিয়ে চিন্তায় আছি।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
© All rights reserved © 2021 Rajbarimail
Developed by POS Digital
themesba-lates1749691102