August 4, 2021, 1:34 am
Title :
হিন্দু বাড়িতে হামলা, মারধর, পুলিশের হস্তক্ষেপে পালিয়ে থাকা পরিবার বাড়িতে প্রবাসী ফোরামের জন্মদিনে ব্লাড ডোনার ক্লাবকে অক্সিজেন সিলিন্ডার ও সুরক্ষা সামগ্রী প্রদান ভাঙন কবলিত মানুষের মাঝে ইয়ামাহা রাইডার্স এর খাদ্য সামগ্রী বিতরণ সকালে ব্যক্তিগত গাড়ির লম্বা লাইন, দুপুরে ঘাটে মানুষের ভিড় দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া রুটে লঞ্চে সকাল থেকেই মানুষের ভিড় গৃহকর্মীকে হত্যাচেষ্টার অভিযোগে চিত্রনায়িকা একা কারাগারে কারখানা খোলায় দৌলতদিয়া ঘাটে মানুষের ঢল, যে যেভাবে পারছে সেভাবে ছুটছে পদ্মার ১৯ কেজির পাঙ্গাশ, বিক্রি হলো ২৬ হাজার ৬০০ টাকায় গোয়ালন্দে জুয়া খেলা অবস্থায় টাকাসহ ৬ জুয়াড়ি আটক, পলাতক দুই শ্রমিকদের যাতায়াতের সুবিদার্থে রাত থেকে চলবে লঞ্চ

সরেজমিনঃ গোয়ালন্দের চরাঞ্চলের বন্যাদুর্গত মানুষের দুর্ভোগ, পায়নি সহযোগিতা (ভিডিও)

Reporter Name
  • Update Time : সোমবার, জুলাই ২০, ২০২০
  • 22 Time View
শেয়ার করুনঃ

বিশেষ প্রতিনিধিঃ রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া ও উজানচর ইউনিয়নের চরাঞ্চলের বন্যাদুর্গত মানুষের দুর্ভোগ কমেনি। গত শনিবার পদ্মা নদীতে দুই সেন্টিমিটার পানি কমলেও রাতে ভারী বৃষ্টির কারণে ফের বাড়তে থাকে। গত ২৪ ঘন্টায় পদ্মা নদীতে ফের ২ সেন্টিমিটার পানি বেড়েছে। এছাড়া অনেকে এখনো পায়নি কোন প্রকার সহযোগিতা।

রোববার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত উপজেলার উজানচর ও দৌলতদিয়ার বেশকিছু এলাকা ঘুরে দেখা যায়, চারদিকে শুধু পানি আর পানি। অধিকাংশ পরিবার ঘর-বাড়ি তালা মেরে অন্যত্র চলে গেছে। অর্ধ ডুবন্ত অবস্থায় ঘর-বাড়ি বন্যার পানিতে ভাসছে। মাঠের কোথাও পাট ছাড়া কোন ফসল জেগে নেই। অনেক কৃষক অর্ধ ডুবন্ত পাট গাছ কেটে নিচ্ছে। বন্যাকবলিত এলাকার অনেকে বাড়িতে নৌকার ওপর রান্না করে দিন-রাত পার করছে। চোর-ডাকাতের ভয়ে কেউ বাড়ি ছেড়ে অন্যত্র যাচ্ছেনা।

দৌলতদিয়া তমিজ উদ্দিন মৃধার পাড়ার কৃষক হানিফ ফকির (৫৫) বাড়িতে প্রায় ১০-১২ দিন ধরে পানি ওঠায় অনেক কষ্টে দিন পার করছেন। স্ত্রী-সন্তান নিয়ে বাড়িতেই নৌকার ওপর সময় পার করছেন। কখনো দূরে নৌকা বেয়ে গিয়ে রান্না করে ফের বাড়িতে ফিরছেন। আবার কখনো নৌকার ওপরই রান্না করছেন।

রোববার বেলা এগারটার দিকে হানিফ ফকির ও তাঁর স্ত্রী ঘর থেকে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র বের করে অন্যত্র যাচ্ছিলেন। আলাপকালে বলেন, ১০-১২ দিনের বেশি হলো পানিতে ভাসছি। ঘরের ভিতর পানি। কোথাও দাড়ানোর জায়গা নেই। কেউ আমাগো একটু খোঁজও নিলনা। কি অবস্থায় আছি, কি খাচ্ছি কোন মেম্বার-চেয়ারম্যান কেউ খোঁজ নেয়নি। এমনকি কোন সাহায্য সহযোগিতাও পায়নি।
এলাকার সুফিয়া বেগম বলেন, বাড়ি-ঘর তলিয়ে গেছে। গরু-ছাগল দুরের এক আত্মীয়ের বাড়ি রেখে আসছি। তারপরও রাতে চোর-ডাকাতের ভয়ে এহানেই নৌকার ওপর থাহি। রাতে ভয়ও করে। সাপ-টাপ আসে কি না? চোর-ডাহাত আসে কি না।

দৌলতদিয়া করনেশনা গ্রামের সকিনা বেগম বলেন, ১০-১২ দিন ধইরা ঘরে-পানি উঠেছে। পায়খানা ডুবে গেছে। রান্না করতে পারিনা। এই পানির মধ্যে পড়ে আছি মরলো না কেউ বাঁচলো। কেউ খোঁজ নেয়নি। মেম্বার, চেয়ারম্যান কেউ আসেনি। তিনিও ঘরের কিছু জরুরী জিনিসপত্র নিয়ে ও বিশুদ্ধ পানি আনতে ছোট্র একটি টিনের ডিঙি নিয়ে যাচ্ছিলেন।

দৌলতদিয়ার ৭নম্বর ওয়ার্ড ইউপি সদস্য আব্দুল গফুর খান বলেন, ওয়ার্ডের হাসান মোল্লা পাড়া, নৈমদ্দিন খার পাড়া, তমিজ উদ্দিন মৃধা পাড়া, দুলাল বেপারী পাড়া, সিরাজ খার পাড়া, সৈদাল খার পাড়ার এক হাজারের বেশি পরিবার প্রায় ১৫ দিন ধরে পানিবন্দি অবস্থায় আছে। এখন পর্যন্ত সরকারিভাবে কোন বরাদ্দ পায়নি। এসব এলাকার মানুষজন প্রতিনিয়ত আমার কাছে আসছে। আমি এদের কোথা থেকে দিব। বিষয়টি স্থানীয় কর্তৃপক্ষকে অবগত করেছি।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) আবু সাঈদ মন্ডল বলেন, উপজেলার উজানচর, দৌলতদিয়া, দেবগ্রাম ও ছোটভাকলা ইউনিয়নের সাড়ে সাত হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। ইতিমধ্যে বন্যা কবলিত এলাকার ২২৫০টি পরিবারের মাঝে ১০ কেজি করে চাল ও ২০০ প্যাকেট শুকনা খাবার দেওয়া হয়েছে। রোববার জেলা প্রশাসকের কাছে আরো ৫০ মেট্রিক টন চাল ও নগদ অর্থ বরাদ্দ চেয়ে আবেদন করা হয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
© All rights reserved © 2021 Rajbarimail
Developed by POS Digital
themesba-lates1749691102