December 7, 2022, 10:52 pm
শিরোনামঃ
রাজবাড়ীতে দুই দিন ব্যাপি তথ্য মেলা উদ্বোধন গোয়ালন্দে প্রতিবন্ধীদের মাঝে শীতবস্ত্র ও শিক্ষা উপকরণ সামগ্রী বিতরণ দৌলতদিয়া বাজার ব্যবসায়ী পরিষদের দপ্তর সম্পাদক হলেন সাংবাদিক শেখ রাজীব চার গ্রামের মানুষের চলাচলের একমাত্র ভরসা নড়বড়ে বাশের সাঁকো বালিয়াকান্দিতে কাঠ পোড়ানোর দায়ে দুই ইটভাটা মালিককে জরিমানা-মামলা পাংশায় বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে বিএনপির ১৩ নেতাকর্মীর নামে থানায় মামলা বালিয়াকান্দিতে ডিবির অভিযানে ইয়াবাসহ যুবক গ্রেপ্তার আ.লীগ ও বিএনপি ৩২ বছর ধরে লুটপাট করছে -রাজবাড়ীতে মুজিবুল হক চুন্নু রাজবাড়ী থেকে পুলিশের ভুয়া এস আই গ্রেপ্তার পাঁচুরিয়ার ব্রাম্মনদিয়া মর্নিং স্টার কিন্ডার গার্টেনে দোয়া মাহফিল

অব্যাহতভাবে রাজবাড়ীতে কমছে পাটের আবাদ

Reporter Name
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, জুলাই ১৬, ২০২০
  • 141 Time View
শেয়ার করুনঃ

রাজবাড়ী প্রতিনিধিঃ উৎপাদন খরচের তুলনায় দাম না পাওয়া, প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও কৃষি বিভাগের অসহযোগিতার কারণে রাজবাড়ীতে অব্যাহতভাবে কমেছে সোনালী আশ হিসাবে খ্যাত পাটের আবাদ।

রাজবাড়ী কৃষি অফিসের তথ্যমতে, ২০১৭-২০১৮ অর্থ বছরে রাজবাড়ীতে ৪৯ হাজার ৬০০ হেক্টর জমিতে পাটের আবাদ হলেও ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরে পাটের আবাদ দাড়ায় ৪৭ হাজার ৮৮০ হেক্টর। ১৯-২০ অর্থবছরে ৪৭ হাজার ১২০ হেক্টর জমিতে পাটের আবাদ হয়। ২০২০-২০২১ অর্থবছরে রাজবাড়ীতে সেই আবাদ এসে দাঁড়ায় ৪৬ হাজার ৪৮৫ হেক্টর জমিতে। গত তিন বছরে রাজবাড়ীতে পাটের আবাদ কমেছে ৩ হাজার ১১৫ হেক্টর জমিতে।

সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, এ বছর অনেক আশা নিয়ে কৃষকেরা পাটের আবাদ শুরু করলেও ঘুর্ণিঝড় আম্ফানের কারণে অনেক পাটক্ষেত নষ্ট হয়েছে। এছাড়া অতিবৃষ্টির কারণে নিচু অঞ্চলের জমিতে পানি জমে থাকার কারণে অধিকাংশ জমির পাটের ফলন সেভাবে হয়নি। বর্তমানে রাজবাড়ীর মাঠে পাট কাটা থেকে শুরু করে ঘরে তোলার ব্যস্ত সময় পাড় করছে জেলার কৃষকেরা।

অব্যাহতভাবে পাটের আবাদ কমে যাওয়া প্রসঙ্গে কৃষকেরা জানান, দিন দিন উৎপাদন খরচ বৃদ্ধি পাচ্ছে। কিন্তু সেই তুলনায় পাটের দাম পাওয়া যাচ্ছে না। এ বছর এক একর জমিতে পাটের বীজ, সেচ, পরিচর্যা, পাটকাটা এবং পচানো শেষে আঁশ ছাড়ানো বাবদ খরচ হয়েছে প্রায় ৪০ হাজার টাকা। আম্ফানের কারণে একর প্রতি গড়ে ১২ মণ করে উৎপাদন কমে এ বছর উৎপাদন দাঁড়িয়েছে ১৫ মণ করে। বর্তমানে পাটের বাজার মূল্য ১৯০০ টাকা। সে ক্ষেত্রে প্রতি একরে কৃষকের ক্ষতি হচ্ছে ১১ হাজার টাকার বেশি।

রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি অঞ্চলের কৃষক প্রাণেশ বিশ্বাস বলেন, কৃষি বিভাগের লোকজন মাঠ পর্যায়ে না এসে সরকারের কাছে পাটের উৎপাদন খরচ এবং বাজার মূল্য দেখায়। এ বছর মাঠের অর্ধেকের বেশি পাট নষ্ট হলেও দাম কিন্তু বৃদ্ধি পায়নি। তিনি আরো বলেন, রাজবাড়ীতে বেসরকারীভাবে পরিচালিত বড় ধরনের চারটি পাটকল থাকলেও কৃষকেরা পাটের দাম কম পাচ্ছে। বাজারে সিন্ডিকেট রয়েছে বলে দাবী করেন তিনি।

রাজবাড়ী কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক গোপাল কৃষ্ণ দাস বলেন, আউশের আবাদ বৃদ্ধি এবং ন্যায্য দাম না পাওয়ার কারণে পাটের আবাদ দিন দিন কমে যাচ্ছে বলে তিনি মনে করেন। এছাড়া এ বছর ঘুর্ণিঝড় আম্ফানের কারণে পাটের আবাদ এবং ফলন কম হয়েছে। পাটের আবাদ বৃদ্ধির জন্য কৃষি বিভাগ কাজ করবে বলে জানান কৃষি বিভাগের এই কর্মকর্তা।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
© All rights reserved © 2021 Rajbarimail
DeveloperAsif
themesba-lates1749691102