September 18, 2021, 8:43 am

দৌলতদিয়া ফেরিঘাট এলাকায় ভাঙন, ঝুকিতে পাঁচ শতাধিক পরিবার, ফেলা হচ্ছে বালুভর্তি বস্তা

Reporter Name
  • Update Time : রবিবার, মে ৩১, ২০২০
  • 26 Time View
শেয়ার করুনঃ

বিশেষ প্রতিনিধিঃ দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের অন্যতম প্রবেশদ্বার হিসেবে পরিচিত রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া ফেরি ঘাট এলাকায় ভাঙন দেখা দিয়েছে। ভাঙন প্রতিরোধে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীন নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ) বালুভর্তি জিও ব্যাগ ফেলছে। সংশ্লিষ্টদের মতে, ঘুর্ণিঝড় আম্পানের প্রভাব ও কয়েকদিনের ভারি বৃষ্টিতে নদীর পানি বেড়ে যাওয়ায় ভাঙন বেড়েছে। নদীতে পানি বাড়ায় দুটি ঘাটের র‌্যাম তলিয়ে দীর্ঘ সময় বন্ধ থাকে। ভাঙন ঝুঁকিতে রয়েছে ফেরি ঘাট এলাকার পাঁচ শতাধিক পরিবার।

সরেজমিন দৌলতদিয়া ঘাট এলাকা ঘুরে দেখা যায়, অধিকাংশ জায়গায় মাটি ধসে ভাঙনে নদীর পাড় খাড়া হয়ে গেছে। বিআইডব্লিউটিএর নিয়োজিত ঠিকাদারের মাধ্যমে সেসব স্থানে বালুভর্তি জিও ব্যাগ ফেলা হচ্ছে। বিশেষ করে লঞ্চ ঘাটের পাশে মজিদ শেখের পাড়া সহ ১, ২, ৩ ও ৬ নম্বর ফেরি ঘাট এলাকায় ভাঙন দেখা দিয়েছে। ৬নম্বর ঘাটের পাশে ছাত্তার মেম্বার পাড়ায় ভাঙনের মাত্রা বেশি। সেখানে ভাঙন ঠেকাতে বালুভর্তি জিও ব্যাগ ফেলা হচ্ছে। তবে বর্ষার আগে ভাঙন প্রতিরোধে শক্ত কোন কাজ হচ্ছে না।

নদীর পানি বাড়ায় গত মঙ্গলবার (২৬ মে) দিবাগত রাতে দৌলতদিয়ার ৩ ও ৫ নম্বর ঘাটের র‌্যাম তলিয়ে যাওয়ায় ঘাট দুটি বন্ধ হয়। বাকি চারটির মধ্যে ১ নম্বর ঘাট গত বছর বর্ষায় ভাঙনে বিলীন ও ৬ নম্বর ঘাট বন্ধ হয়। ৩ নম্বর ঘাট ডাউনের (সাবেক ২ নম্বর) ও ৪ নম্বর ঘাট চালু থাকায় চাপ পড়ে বেশি। ৫ নম্বর ঘাট নিচু স্তর থেকে সরিয়ে মধ্যম স্তরে স্থানান্তর শেষে প্রায় ১৭ ঘন্টা পর বুধবার বিকেলে চালু হয়। ৩নম্বর ঘাট নিচু স্তুর থেকে স্থানান্তর করে মধ্যম স্তরে তোলার প্রায় ৩৬ ঘন্টা পর বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে বারোটায় চালু হয়।

ঘাট রক্ষনাবেক্ষণে দায়িত্বে বিআইডব্লিউটিএর দৌলতদিয়ার কয়েকজন জানান, সম্প্রতি ঘূর্ণিঝড় আম্পানের প্রভাব ও পরবর্তী কয়েকদিন ভারি বৃষ্টিতে পদ্মা ও যমুনা নদীর পানি বেড়ে যায়। এতে দৌলতদিয়া ও পাটুরিয়া ঘাটের কয়েকটি র‌্যাম তলিয়ে ঘাট বন্ধ হয়ে যায়। ফেরি ঘাট এলাকায় ভাঙন দেখা দেয়। দৌলতদিয়া প্রান্তে ঘাট প্রতিরক্ষায় গত মার্চ মাস থেকে বালুভর্তি জিও ব্যাগ ফেলায় ভাঙন কমছিল। এরপর যেখানে ভাঙন দেখা দিয়েছে সেখানে বালুর বস্তা ফেলেছে। পাটুরিয়া ঘাট এলাকায় ভাঙন দেখা দিয়েছে বেশি। ৬নম্বর ফেরি ঘাটের অদূরে বাহির চর দৌলতদিয়ায় নতুন করে একটি ঘাট তৈরী হচ্ছে। জরুরী প্রয়োজনে আপতকালীন সময়ে প্রয়োজনে সেখানে একটি ফেরি ঘাট স্থানান্তর করা হবে।

দৌলতদিয়া মজিদ শেখ এলাকার বাসিন্দা উজ্জল হোসেন বলেন, ভাঙন ঠেকাতে বালুভর্তি জিও ব্যাগ ফেলছে। বর্ষা শুরু না হতেই এখন যে অবস্থা, ভরা বর্ষা মৌসুমে পরিস্থিতি কোন দিকে যায় সেটাই দেখার বিষয়। ভাঙনে এখানকার দুই শতাধিক পরিবার ঝুকিতে রয়েছে। ফেরিঘাট রক্ষা করতে পারলে এলাকার বাসিন্দারও রক্ষা পাবে। না হলে পরিস্থিতি আরো ভয়াবহ হবে।

এদিকে দৌলতদিয়া লঞ্চ ঘাটের উজানে নতুন পাড়ায় ভাঙন দেখা দিয়েছে। গত বছর ভাঙনের কারণে সরাসরি পানির স্রোত ফেরি ও লঞ্চ ঘাটে এসে লাগে। এতে ১ ও ২নম্বর ফেরিঘাট বিলীন হয়ে যায়। এখন পর্যন্ত ১ নম্বর ঘাট চালু করা যায়নি। ভরা বর্ষার আগে নতুন পাড়ায় ভাঙন প্রতিরোধে জরুরী ভিত্তিতে কাজ করা না হলে লঞ্চ ও ফেরি ঘাট রক্ষা কঠিন হয়ে পড়বে।

স্থানীয় ইউপি সদস্য আশরাফুল ইসলাম বলেন, লঞ্চ ও ফেরি ঘাট এলাকার মজিদ শেখের পাড়া ও সিদ্দিক কাজী পাড়ার অন্তত পাঁচ শতাধিক পরিবার ভাঙন ঝুকিতে রয়েছে। লঞ্চঘাটের বিপরিতে নতুন পাড়ায় দ্রুত ভাঙন প্রতিরোধের উদ্যোগ নেয়া না হলে লঞ্চ ও ফেরিঘাট টিকবে না।

বিআইডব্লিউটিএ আরিচা কার্যালয়ের নির্বাহী প্রকৌশলী নিজাম উদ্দিন পাঠান বলেন, গত মার্চ থেকে দৌলতদিয়ায় কাজ চলায় ঘুর্ণিঝড় ও বৃষ্টিতে দৌলতদিয়ায় কম ক্ষতি হয়েছে। দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ফেরিঘাট আধুনিকায়নে বিআইডব্লিউটিএর ১,৩৫০ কোটি টাকার প্রকল্প পাস হয়েছে। আগামী বছর শুষ্ক মৌসুমে পানি উন্নয়ন বোর্ড কাজ করার কথ। এরমধ্যে দৌলতদিয়া ফেরি ঘাট এলাকায় ২কিলোমিটার ও ঘাটের উজানে ৪কিলোমিটার অংশে কাজ হবে। আপাতত জরুরীভাবে প্রায় ১৮ কোটি টাকা ব্যায়ে ফেরি ঘাট রক্ষায় ৫টি গ্রুপ বালুভর্তি জিও ব্যাগ ফেলছে। এছাড়া ৬ নম্বর ঘাটের পাশে বিকল্প সড়কসহ নতুন ঘাট তৈরির কাজ চলছে। উজানের নতুন পাড়ায় জরুরীভাবে পাউবোকে প্রতিরক্ষামূলক কাজ করতে অনুরোধ করেছি। সেখানে কাজ না হলে ঘাট রক্ষা কঠিন হবে।

পানি উন্নয়ন বোর্ড রাজবাড়ীর নির্বাহী প্রকৌশলী শফিকুল ইসলাম শেখ রাজবাড়ীমেইলেকে বলেন, এ বছর বর্ষার আগে হয়তো প্রতিরক্ষা কাজ সম্ভব হবে না। তবে আপাতত বর্ষার আগেই জরুরীভাবে ভাঙন ঠেকাতে অন্তত ১৪ কোটি টাকার একটি বাজেট চেয়ে পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ে আবেদন করেছি। বরাদ্দ পেলে বালুভর্তি জিও ব্যাগ ফেলে ভাঙন নিয়ন্ত্রণে চেষ্টা করা হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
© All rights reserved © 2021 Rajbarimail
Developed by POS Digital
themesba-lates1749691102