১২:০২ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

গোয়ালন্দে নির্দেশ অমান্য করায় ছয় ব্যবসায়ীর ৩০ হাজার টাকা জরিমানা

রাজবাড়ীমেইল ডেস্কঃ সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে বেধে দেওয়া নির্ধারিত সময়ের পরও মাছ ও ফল বিক্রি অব্যাহত রাখায় বুধবার রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে ছয় ব্যবসায়ীকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত। ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন গোয়ালন্দের সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মো. আব্দুল্লাহ আল-মামুন।

ভ্রাম্যমান আদালত সূত্র জানায়, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধ করতে রাজবাড়ী জেলা প্রশাসন থেকে ব্যবসায়ীদের সময় সীমা নির্ধারণ করে দেয়। বুধবার সকাল থেকে দুপুর বারোটা পর্যন্ত কাঁচা ও মাছ বেচাকেনা চলবে। একই সাথে ফলও বেচাকেনা চলবে। এ ছাড়া বেলা তিনটা পর্যন্ত মুদীখানা দোকানে বেচাকেনা চলবে। বুধবার সাপ্তাহিক হাট থাকায় সরকারি গোয়ালন্দ কামরুল ইসলাম কলেজ মাঠে সরিয়ে নেওয়া অস্থায়ী কাঁচা সবজি ও মাছ বাজার দুপুর বারোটা পর্যন্ত বেচাকেনা শেষে গুটিয়ে নিতে বলা হয়। পুরাতন বাজারে ফল বিক্রির সময়ও তাদেরকে দুপুরের মধ্যে শেষ করতে বলা হয়। কিন্তু নির্দেশনা অমান্য করে দুপুরের পরও বেচাকেনা অব্যাহত রাখায় মানুষের ভিড় চলতেই থাকে। এতে করে করোনা সংক্রমণের ঝুকি দেখা দেয়। ছয় জন ফল ও মাছ ব্যবসায়ীর প্রত্যেককে ৫ হাজার টাকা করে মোট ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করেন ভ্রাম্যমান আদালত। এসময় সাথে সেনাবাহিনীর সদস্য ও আনসার বাহিনীর সদস্যরা ভ্রাম্যমান আদালতকে সহযোগিতা করেন।

ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট আব্দুল্লাহ আল-মামুন বলেন, বার বার ব্যবসায়ীদের সতর্ক করার পর তারা তা মানার চেষ্টা করছেন না। বেধে দেওয়া সময়ের মধ্যে তাদেরকে বেচাকেনা শেষ করে গুটিয়ে নিতে বলা হলেও দুপুরের পরও অব্যাহত রাখে। এমনকি কিছু ফল ব্যবসায়ী ঘরের সাটার নামিয়ে ভিতরে চুপিসারে ফল বিক্রি অব্যাহত রাখে। পরে এমন ছয়জনকে জরিমানা করা হয়। এসময় তাঁর সাথে সেনাবাহিনীর ক্যাপ্টেন নুরুল হক শুভ কাজে সহযোগিতা করেন।

ট্যাগঃ
রিপোর্টারের সম্পর্কে জানুন

Rajbari Mail

জনপ্রিয় পোস্ট

গোয়ালন্দ উপজেলা চেয়ারম্যান কাপ ক্রিকেট টুর্নামেন্টের ফাইনাল

গোয়ালন্দে নির্দেশ অমান্য করায় ছয় ব্যবসায়ীর ৩০ হাজার টাকা জরিমানা

পোস্ট হয়েছেঃ ০৬:০৮:৪৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৯ এপ্রিল ২০২০

রাজবাড়ীমেইল ডেস্কঃ সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে বেধে দেওয়া নির্ধারিত সময়ের পরও মাছ ও ফল বিক্রি অব্যাহত রাখায় বুধবার রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে ছয় ব্যবসায়ীকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত। ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন গোয়ালন্দের সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মো. আব্দুল্লাহ আল-মামুন।

ভ্রাম্যমান আদালত সূত্র জানায়, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধ করতে রাজবাড়ী জেলা প্রশাসন থেকে ব্যবসায়ীদের সময় সীমা নির্ধারণ করে দেয়। বুধবার সকাল থেকে দুপুর বারোটা পর্যন্ত কাঁচা ও মাছ বেচাকেনা চলবে। একই সাথে ফলও বেচাকেনা চলবে। এ ছাড়া বেলা তিনটা পর্যন্ত মুদীখানা দোকানে বেচাকেনা চলবে। বুধবার সাপ্তাহিক হাট থাকায় সরকারি গোয়ালন্দ কামরুল ইসলাম কলেজ মাঠে সরিয়ে নেওয়া অস্থায়ী কাঁচা সবজি ও মাছ বাজার দুপুর বারোটা পর্যন্ত বেচাকেনা শেষে গুটিয়ে নিতে বলা হয়। পুরাতন বাজারে ফল বিক্রির সময়ও তাদেরকে দুপুরের মধ্যে শেষ করতে বলা হয়। কিন্তু নির্দেশনা অমান্য করে দুপুরের পরও বেচাকেনা অব্যাহত রাখায় মানুষের ভিড় চলতেই থাকে। এতে করে করোনা সংক্রমণের ঝুকি দেখা দেয়। ছয় জন ফল ও মাছ ব্যবসায়ীর প্রত্যেককে ৫ হাজার টাকা করে মোট ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করেন ভ্রাম্যমান আদালত। এসময় সাথে সেনাবাহিনীর সদস্য ও আনসার বাহিনীর সদস্যরা ভ্রাম্যমান আদালতকে সহযোগিতা করেন।

ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট আব্দুল্লাহ আল-মামুন বলেন, বার বার ব্যবসায়ীদের সতর্ক করার পর তারা তা মানার চেষ্টা করছেন না। বেধে দেওয়া সময়ের মধ্যে তাদেরকে বেচাকেনা শেষ করে গুটিয়ে নিতে বলা হলেও দুপুরের পরও অব্যাহত রাখে। এমনকি কিছু ফল ব্যবসায়ী ঘরের সাটার নামিয়ে ভিতরে চুপিসারে ফল বিক্রি অব্যাহত রাখে। পরে এমন ছয়জনকে জরিমানা করা হয়। এসময় তাঁর সাথে সেনাবাহিনীর ক্যাপ্টেন নুরুল হক শুভ কাজে সহযোগিতা করেন।