০১:১৪ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

সামাজিক দূরত্ব বজায় নিশ্চিতকরণে পাংশা থানার ওসির প্রচেষ্টা

রাজবাড়ীমেইল ডেস্কঃ করোনা ভাইরাস সংক্রমণ ও বিস্তার রোধে চলমান লকডাউন ও সামাজিক দূরত্ব বজায় নিশ্চিতকরণে নিরলস প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন পাংশা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আহসান উল্লাহ। করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে জনসচেতনতায় শুরু থেকেই লিফলেট ও হ্যান্ড সেনিটাইজার বিতরণ, হ্যান্ড ওয়াশের জন্য বেসিন স্থাপন, জীবাণু নাশক পানি স্প্রে প্রভৃতি কার্যক্রম পরিচালনা করেন। লকডাউন বাস্তবায়নে উপজেলার বিভিন্ন সড়কের অন্তত ১০টি পয়েন্টে চেকপোস্ট বসিয়ে নিয়মিত মনিটরিং করছেন তিনি।

এদিকে বুধবার পাংশা শহরসহ উপজেলার বিভিন্ন এলাকাতে হ্যান্ডামাইকের মাধ্যমে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ও বিস্তার রোধে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত লকডাউন ঘোষণার সময়সীমা অনির্দিষ্টকালের জন্য বাড়ানো হয়েছে। লকডাউনের প্রচারণা চালিয়ে ওসি মো. আহসান উল্লাহ বলেন, সকলকে লকডাউনের ঘোষণা মেনে চলতে হবে। অন্য এলাকা থেকে পাংশা উপজেলার মধ্যে জনসাধারণের প্রবেশ এবং পাংশা এলাকা থেকে অন্য এলাকায় গমন নিষিদ্ধ করা হয়েছে। সরকারী নির্দেশনা মেনে খুব প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের না হওয়ার জন্য চলাচলের ক্ষেত্রে জনসচেতনতায় গুরুত্বপূর্ণ দিক-নির্দেশনা প্রদান করেন তিনি।

ওসি মো. আহসান উল্লাহ আরও বলেন, রাজবাড়ী জেলার সুযোগ্য পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান, পিপিএম-বার মহোদয়ের সার্বিক দিক-নির্দেশনায় পাংশা উপজেলার সীমান্তবর্তী এলাকার নাদুরিয়া ঘাট, পাট্টা বাহেরমোড় নতুন বাজার, তত্ত্বিপুর বাসস্ট্যান্ড, শিয়ালডাঙ্গী, সেনগ্রাম-কালিতলা বাজার, হাবাসপুর পদ্মা নদীর ঘাট, চর আফড়া স্লুইজগেট বাজার, কালিকাপুর ব্রিজ, পাংশা কলেজ মোড়, সরদার বাসস্ট্যান্ড, মৈশালা বাসস্ট্যান্ড ও লাড়ীবাড়ী বাজার সড়কে চেকপেস্ট বসানো হয়েছে। পাংশা মডেল থানার পুলিশ, কশবামাজাইল ও বাহাদুরপুর ক্যাম্পের পুলিশ এসব চেকপোস্টে নিয়মিতভাবে দায়িত্ব পালন করছে। সাংবাদিক, জনপ্রতিনিধিসহ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার সচেতন মানুষের সমন্বিত প্রচেষ্টায় করোনা সংকট মোকাবেলায় সাফল্যের দৃঢ় প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন তিনি।

ট্যাগঃ
রিপোর্টারের সম্পর্কে জানুন

Rajbari Mail

জনপ্রিয় পোস্ট

গোয়ালন্দ উপজেলা চেয়ারম্যান কাপ ক্রিকেট টুর্নামেন্টের ফাইনাল

সামাজিক দূরত্ব বজায় নিশ্চিতকরণে পাংশা থানার ওসির প্রচেষ্টা

পোস্ট হয়েছেঃ ০৭:১২:০৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ২২ এপ্রিল ২০২০

রাজবাড়ীমেইল ডেস্কঃ করোনা ভাইরাস সংক্রমণ ও বিস্তার রোধে চলমান লকডাউন ও সামাজিক দূরত্ব বজায় নিশ্চিতকরণে নিরলস প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন পাংশা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আহসান উল্লাহ। করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে জনসচেতনতায় শুরু থেকেই লিফলেট ও হ্যান্ড সেনিটাইজার বিতরণ, হ্যান্ড ওয়াশের জন্য বেসিন স্থাপন, জীবাণু নাশক পানি স্প্রে প্রভৃতি কার্যক্রম পরিচালনা করেন। লকডাউন বাস্তবায়নে উপজেলার বিভিন্ন সড়কের অন্তত ১০টি পয়েন্টে চেকপোস্ট বসিয়ে নিয়মিত মনিটরিং করছেন তিনি।

এদিকে বুধবার পাংশা শহরসহ উপজেলার বিভিন্ন এলাকাতে হ্যান্ডামাইকের মাধ্যমে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ও বিস্তার রোধে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত লকডাউন ঘোষণার সময়সীমা অনির্দিষ্টকালের জন্য বাড়ানো হয়েছে। লকডাউনের প্রচারণা চালিয়ে ওসি মো. আহসান উল্লাহ বলেন, সকলকে লকডাউনের ঘোষণা মেনে চলতে হবে। অন্য এলাকা থেকে পাংশা উপজেলার মধ্যে জনসাধারণের প্রবেশ এবং পাংশা এলাকা থেকে অন্য এলাকায় গমন নিষিদ্ধ করা হয়েছে। সরকারী নির্দেশনা মেনে খুব প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের না হওয়ার জন্য চলাচলের ক্ষেত্রে জনসচেতনতায় গুরুত্বপূর্ণ দিক-নির্দেশনা প্রদান করেন তিনি।

ওসি মো. আহসান উল্লাহ আরও বলেন, রাজবাড়ী জেলার সুযোগ্য পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান, পিপিএম-বার মহোদয়ের সার্বিক দিক-নির্দেশনায় পাংশা উপজেলার সীমান্তবর্তী এলাকার নাদুরিয়া ঘাট, পাট্টা বাহেরমোড় নতুন বাজার, তত্ত্বিপুর বাসস্ট্যান্ড, শিয়ালডাঙ্গী, সেনগ্রাম-কালিতলা বাজার, হাবাসপুর পদ্মা নদীর ঘাট, চর আফড়া স্লুইজগেট বাজার, কালিকাপুর ব্রিজ, পাংশা কলেজ মোড়, সরদার বাসস্ট্যান্ড, মৈশালা বাসস্ট্যান্ড ও লাড়ীবাড়ী বাজার সড়কে চেকপেস্ট বসানো হয়েছে। পাংশা মডেল থানার পুলিশ, কশবামাজাইল ও বাহাদুরপুর ক্যাম্পের পুলিশ এসব চেকপোস্টে নিয়মিতভাবে দায়িত্ব পালন করছে। সাংবাদিক, জনপ্রতিনিধিসহ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার সচেতন মানুষের সমন্বিত প্রচেষ্টায় করোনা সংকট মোকাবেলায় সাফল্যের দৃঢ় প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন তিনি।