১২:০২ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

গোয়ালন্দে কাপড় বাজার ব্যবসায়ীর উদ্যোগে দরিদ্রদের মাঝে চাউল বিতরণ

মইনুল হক মৃধাঃ করোনাভাইরাসের প্রভাবে বেকার হয়ে বসে থাকা দরিদ্র শ্রমজীবি মানুষের মাঝে রোববার দুপুরে রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ বাজারের কাপড় ব্যবসায়ী মো. রফিক শেখ চাউল বিতরণ করেন। তাঁর ব্যক্তিগত উদ্যোগে ১১০ জন দরিদ্র মানুষের মাঝে ৫ কেজি করে চাউল বিতরণ করা হয়। তাঁর এ মহতি কাজে এগিয়ে আসেন কয়েকজন সহযোগী।

গোয়ালন্দ পৌরসভার নিলু শেখের পাড়া মঠ মন্দির প্রাঙ্গনে ৪ নম্বর ও ৫ নম্বর ওয়ার্ডে করোনাভাইরাসের প্রভাবে বেকার হয়ে বসে থাকা মোট ১১০ জন দরিদ্র শ্রমজীবি মানুষের মাঝে ৫ কেজি করে চাউল তুলে দেন মো. রফিক। এসময় তাঁর সাথে স্থানীয় অনেকেই উপস্থিত ছিলেন। কাপড় বাজারের কয়েকজন ব্যক্তি তাঁর এ কাজে সার্বিক সহযোগিতা করেন। তবে তারা নাম প্রকাশে অনিচ্ছার কথা প্রকাশ করেন।
মো. রফিক শেখ বলেন, দেশের এ ক্লান্তি লগ্নে সামর্থবান প্রত্যেককে অসহায়, দুঃস্থ্য ও দিন মুজুর শ্রমিক মানুষের পাশে এগিয়ে আসা উচিত। আমাদের সাধ্য অনুযায়ী মোট ১১০ জনকে পাঁচ কেজি করে চাউল দিয়েছি।

ট্যাগঃ
রিপোর্টারের সম্পর্কে জানুন

Rajbari Mail

জনপ্রিয় পোস্ট

গোয়ালন্দ উপজেলা চেয়ারম্যান কাপ ক্রিকেট টুর্নামেন্টের ফাইনাল

গোয়ালন্দে কাপড় বাজার ব্যবসায়ীর উদ্যোগে দরিদ্রদের মাঝে চাউল বিতরণ

পোস্ট হয়েছেঃ ০২:১৪:০৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৯ মার্চ ২০২০

মইনুল হক মৃধাঃ করোনাভাইরাসের প্রভাবে বেকার হয়ে বসে থাকা দরিদ্র শ্রমজীবি মানুষের মাঝে রোববার দুপুরে রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ বাজারের কাপড় ব্যবসায়ী মো. রফিক শেখ চাউল বিতরণ করেন। তাঁর ব্যক্তিগত উদ্যোগে ১১০ জন দরিদ্র মানুষের মাঝে ৫ কেজি করে চাউল বিতরণ করা হয়। তাঁর এ মহতি কাজে এগিয়ে আসেন কয়েকজন সহযোগী।

গোয়ালন্দ পৌরসভার নিলু শেখের পাড়া মঠ মন্দির প্রাঙ্গনে ৪ নম্বর ও ৫ নম্বর ওয়ার্ডে করোনাভাইরাসের প্রভাবে বেকার হয়ে বসে থাকা মোট ১১০ জন দরিদ্র শ্রমজীবি মানুষের মাঝে ৫ কেজি করে চাউল তুলে দেন মো. রফিক। এসময় তাঁর সাথে স্থানীয় অনেকেই উপস্থিত ছিলেন। কাপড় বাজারের কয়েকজন ব্যক্তি তাঁর এ কাজে সার্বিক সহযোগিতা করেন। তবে তারা নাম প্রকাশে অনিচ্ছার কথা প্রকাশ করেন।
মো. রফিক শেখ বলেন, দেশের এ ক্লান্তি লগ্নে সামর্থবান প্রত্যেককে অসহায়, দুঃস্থ্য ও দিন মুজুর শ্রমিক মানুষের পাশে এগিয়ে আসা উচিত। আমাদের সাধ্য অনুযায়ী মোট ১১০ জনকে পাঁচ কেজি করে চাউল দিয়েছি।