০১:৪৩ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

রাজবাড়ী পুলিশ সুপারের বিশেষ উদ্যোগ, দুই দিনে ২০ হাজার স্যানিটাইজার তৈরী সম্পন্ন

ষ্টাফ রিপোর্টারঃ করোনাভাইরাসের সংক্রমণের হাত থেকে রক্ষা পেতে রাজবাড়ী জেলা পুলিশ বিশেষ উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান পিপিএম এর সার্বিক সহযোগিতায় জেলা বাসীর মাঝে ৫০ হাজার স্যানিটাইজার বিতরণের উদ্যোগ নিয়েছে। রাজবাড়ী পুলিশ লাইন্স ড্রীল শেডে পুলিশ সদস্যরা নিজে হাতে এ হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরী করছে। গত দুই দিনে প্রায় ২০ হাজার হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরী সম্পন্ন হয়েছে।

জেলা পুলিশ জানায়, দেশের বর্তমান করোনাভাইরাস সংক্রমণ নিয়ে সবার মাঝে এক ধরনের আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে সর্বত্র হ্যান্ড স্যানিটাইজারসহ ভাইরাস প্রতিরোধে বিভিন্ন ধরনের উপকরণের সংকট দেখা দিয়েছে। এমন অবস্থায় পুলিশ সুপারের বিশেষ উদ্যোগে পুলিশ লাইন্সের সদস্যদের নিয়ে হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরীর উদ্যোগের কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। তারই ধারাবাহিকতায় কার্যক্রমের অংশ হিসেবে বুধবার জেলা প্রশাসক দিলসাদ বেগমের হাতে পুলিশ সদস্যদের নিজ হাতে তৈরী হ্যান্ড স্যানিটাইজার তুলে দেন পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান পিপিএম। এসময় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. সালাহউদ্দিন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক আশেক হাসান প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান পিপিএম রাজবাড়ীমেইলকে বলেন, দেশে এখন চরম পরিস্থিতি বিরাজ করছে। এ সংকটময় মুহুর্তে সবাইকে আতঙ্কিত না হয়ে সচেতন হতে হবে। শহরের কোথাও হ্যান্ড স্যানিটাইজারসহ ভাইরাস প্রতিরোধের উপকরণ পাওয়া যাচ্ছে না। হতাশ হলে চলবে না। একজন দায়িত্বশীল নাগরিক হিসেবে মনে করি সামর্থবান ব্যক্তিদের সাধারণ মানুষের জন্য এগিয়ে আসা উচিত। প্রয়োজনীয় উপকরণ থাকলে আমরা নিজেরাই ঘরে বসে হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরী করতে পারি।

তিনি আরো বলেন, আমরা রাজবাড়ী সদরসহ জেলার পাঁচটি থানার জন্য প্রায় ৫০ হাজার হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরীর উদ্যোগ নিয়েছি। এসব তৈরী শেষ হলে পুলিশ সদস্যরা সর্বত্র ঘুরে ঘুরে বিতরণ করবেন। গত বুধবার থেকে স্যানিটাইজার তৈরীর কাজ শুরু করেছে। প্রথম দিনে প্রায় ১০ হাজার এবং আজ বৃহস্পতিবার আরো ১০ হাজারসহ দুই দিনে প্রায় ২০ হাজারের মতো হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরী করতে সক্ষম হয়েছে। শুক্রবার আরো ১০ হাজার তৈরী সম্ভব হবে। কিন্তু বোতল সংকটের কারণে সম্পূর্ণ তৈরী হতে কিছুটা সময় লাগতে পারে। যেসব তৈরী হয়ে গেছে তা পুলিশ সদস্যরা বাড়ি বাড়ি ঘুরে ওই সব সামগ্রী বিনামূল্যে বিতরণ করছেন। সেই সাথে শহর ও বাজার এলাকায় পুলিশ টহল দিচ্ছে যাতে কেউ বাড়ির বাইরে বের না হয়। অনেকে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে বাড়ি ফিরে এসেছেন। তাদের দিকটাও খেয়াল রাখা হচ্ছে।

ট্যাগঃ
রিপোর্টারের সম্পর্কে জানুন

Rajbari Mail

জনপ্রিয় পোস্ট

গোয়ালন্দ উপজেলা চেয়ারম্যান কাপ ক্রিকেট টুর্নামেন্টের ফাইনাল

রাজবাড়ী পুলিশ সুপারের বিশেষ উদ্যোগ, দুই দিনে ২০ হাজার স্যানিটাইজার তৈরী সম্পন্ন

পোস্ট হয়েছেঃ ০৭:৪৯:১৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৬ মার্চ ২০২০

ষ্টাফ রিপোর্টারঃ করোনাভাইরাসের সংক্রমণের হাত থেকে রক্ষা পেতে রাজবাড়ী জেলা পুলিশ বিশেষ উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান পিপিএম এর সার্বিক সহযোগিতায় জেলা বাসীর মাঝে ৫০ হাজার স্যানিটাইজার বিতরণের উদ্যোগ নিয়েছে। রাজবাড়ী পুলিশ লাইন্স ড্রীল শেডে পুলিশ সদস্যরা নিজে হাতে এ হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরী করছে। গত দুই দিনে প্রায় ২০ হাজার হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরী সম্পন্ন হয়েছে।

জেলা পুলিশ জানায়, দেশের বর্তমান করোনাভাইরাস সংক্রমণ নিয়ে সবার মাঝে এক ধরনের আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে সর্বত্র হ্যান্ড স্যানিটাইজারসহ ভাইরাস প্রতিরোধে বিভিন্ন ধরনের উপকরণের সংকট দেখা দিয়েছে। এমন অবস্থায় পুলিশ সুপারের বিশেষ উদ্যোগে পুলিশ লাইন্সের সদস্যদের নিয়ে হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরীর উদ্যোগের কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। তারই ধারাবাহিকতায় কার্যক্রমের অংশ হিসেবে বুধবার জেলা প্রশাসক দিলসাদ বেগমের হাতে পুলিশ সদস্যদের নিজ হাতে তৈরী হ্যান্ড স্যানিটাইজার তুলে দেন পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান পিপিএম। এসময় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. সালাহউদ্দিন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক আশেক হাসান প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান পিপিএম রাজবাড়ীমেইলকে বলেন, দেশে এখন চরম পরিস্থিতি বিরাজ করছে। এ সংকটময় মুহুর্তে সবাইকে আতঙ্কিত না হয়ে সচেতন হতে হবে। শহরের কোথাও হ্যান্ড স্যানিটাইজারসহ ভাইরাস প্রতিরোধের উপকরণ পাওয়া যাচ্ছে না। হতাশ হলে চলবে না। একজন দায়িত্বশীল নাগরিক হিসেবে মনে করি সামর্থবান ব্যক্তিদের সাধারণ মানুষের জন্য এগিয়ে আসা উচিত। প্রয়োজনীয় উপকরণ থাকলে আমরা নিজেরাই ঘরে বসে হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরী করতে পারি।

তিনি আরো বলেন, আমরা রাজবাড়ী সদরসহ জেলার পাঁচটি থানার জন্য প্রায় ৫০ হাজার হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরীর উদ্যোগ নিয়েছি। এসব তৈরী শেষ হলে পুলিশ সদস্যরা সর্বত্র ঘুরে ঘুরে বিতরণ করবেন। গত বুধবার থেকে স্যানিটাইজার তৈরীর কাজ শুরু করেছে। প্রথম দিনে প্রায় ১০ হাজার এবং আজ বৃহস্পতিবার আরো ১০ হাজারসহ দুই দিনে প্রায় ২০ হাজারের মতো হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরী করতে সক্ষম হয়েছে। শুক্রবার আরো ১০ হাজার তৈরী সম্ভব হবে। কিন্তু বোতল সংকটের কারণে সম্পূর্ণ তৈরী হতে কিছুটা সময় লাগতে পারে। যেসব তৈরী হয়ে গেছে তা পুলিশ সদস্যরা বাড়ি বাড়ি ঘুরে ওই সব সামগ্রী বিনামূল্যে বিতরণ করছেন। সেই সাথে শহর ও বাজার এলাকায় পুলিশ টহল দিচ্ছে যাতে কেউ বাড়ির বাইরে বের না হয়। অনেকে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে বাড়ি ফিরে এসেছেন। তাদের দিকটাও খেয়াল রাখা হচ্ছে।