১১:৩৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

সোলাইমানির বাড়িতে হামাস প্রধান হানিয়াসহ ফিলিস্তিনি প্রতিনিধিদল

মার্কিন গুপ্ত হামলায় নিহত জেনারেল কাসেম সোলাইমানির বাড়িতে গিয়ে তার পরিবারের সদস্যদের প্রতি শোক ও সমবেদনা জানিয়েছেন ফিলিস্তিনের প্রতিরোধ আন্দোলন হামাসের রাজনৈতিক প্রধান ইসমাইল হানিয়া।

সোমবার তেহরানে জেনারেল সোলাইমানি এবং কমান্ডার আবু মাহদি আল মুহান্দিসসহ নিহতদের জানাজা অনুষ্ঠানে অংশ নেয়ার পর সোলাইমানির বাড়িতে যান তিনি। এসময় তার সঙ্গে ফিলিস্তিনের ইসলামি জিহাদের মহাসচিব যিয়াদ আন নাখলাও উপস্থিত ছিলেন।

সোলাইমানিকে বায়তুল মুকাদ্দাসের শহীদ আখ্যায়িত করে প্রতিরোধ সংগ্রামকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার প্রতিশ্রুতি পুনর্ব্যক্ত করেন ফিলিস্তিনের এ দুই শীর্ষ নেতা।

ইসলামি জিহাদ আন্দোলনের মহাসচিব যিয়াদ নাখলা বলেন, আমরা এর আগেও জেনারেল সোলাইমানির বাড়িতে এসেছি। তিনি নিজের বাড়িকেও ফিলিস্তিনের প্রতি সমর্থন ও সহযোগিতার জন্য ব্যবহার করতেন।

জেনারেল সোলাইমানির জানাজায় অংশ নিতে ইসমাইল হানিয়াসহ ফিলিস্তিনের একটি প্রতিনিধি দল বর্তমানে ইরানে অবস্থান করছেন।

সোমবার তেহরানে জানাজাপূর্ব বক্তব্যে তিনি বলেন, আমরা এখানে এসেছি, অন্তরের ভালবাসা থেকে শহীদ সোলাইমানিকে স্মরণ করতে যার সাহায্য ও সহযোগিতা ফিলিস্তিন রক্ষার সংগ্রামকে আরো গতি দিয়েছে।

আমরা কখনো পেছনে ফিরে যাবোনা, এই শাহাদাত কুদস এবং ফিলিস্তিন স্বাধীন করতে আল্লাহর ইচ্ছায় আমরা এগিয়ে যাবো।

হানিয়া আরও বলেন, শহীদ সোলাইমানি তার পুরো জীবন ফিলিস্তিনকে রক্ষায় সময় দিয়েছেন। আমি ঘোষণা দিতে চাই শহীদ সোলাইমানি ‘কুদসের একজন শহীদ, কুদসের একজন শহীদ’।

ট্যাগঃ
রিপোর্টারের সম্পর্কে জানুন

Rajbari Mail

জনপ্রিয় পোস্ট

গোয়ালন্দ উপজেলা চেয়ারম্যান কাপ ক্রিকেট টুর্নামেন্টের ফাইনাল

সোলাইমানির বাড়িতে হামাস প্রধান হানিয়াসহ ফিলিস্তিনি প্রতিনিধিদল

পোস্ট হয়েছেঃ ১১:৫৬:৩০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৭ জানুয়ারী ২০২০

মার্কিন গুপ্ত হামলায় নিহত জেনারেল কাসেম সোলাইমানির বাড়িতে গিয়ে তার পরিবারের সদস্যদের প্রতি শোক ও সমবেদনা জানিয়েছেন ফিলিস্তিনের প্রতিরোধ আন্দোলন হামাসের রাজনৈতিক প্রধান ইসমাইল হানিয়া।

সোমবার তেহরানে জেনারেল সোলাইমানি এবং কমান্ডার আবু মাহদি আল মুহান্দিসসহ নিহতদের জানাজা অনুষ্ঠানে অংশ নেয়ার পর সোলাইমানির বাড়িতে যান তিনি। এসময় তার সঙ্গে ফিলিস্তিনের ইসলামি জিহাদের মহাসচিব যিয়াদ আন নাখলাও উপস্থিত ছিলেন।

সোলাইমানিকে বায়তুল মুকাদ্দাসের শহীদ আখ্যায়িত করে প্রতিরোধ সংগ্রামকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার প্রতিশ্রুতি পুনর্ব্যক্ত করেন ফিলিস্তিনের এ দুই শীর্ষ নেতা।

ইসলামি জিহাদ আন্দোলনের মহাসচিব যিয়াদ নাখলা বলেন, আমরা এর আগেও জেনারেল সোলাইমানির বাড়িতে এসেছি। তিনি নিজের বাড়িকেও ফিলিস্তিনের প্রতি সমর্থন ও সহযোগিতার জন্য ব্যবহার করতেন।

জেনারেল সোলাইমানির জানাজায় অংশ নিতে ইসমাইল হানিয়াসহ ফিলিস্তিনের একটি প্রতিনিধি দল বর্তমানে ইরানে অবস্থান করছেন।

সোমবার তেহরানে জানাজাপূর্ব বক্তব্যে তিনি বলেন, আমরা এখানে এসেছি, অন্তরের ভালবাসা থেকে শহীদ সোলাইমানিকে স্মরণ করতে যার সাহায্য ও সহযোগিতা ফিলিস্তিন রক্ষার সংগ্রামকে আরো গতি দিয়েছে।

আমরা কখনো পেছনে ফিরে যাবোনা, এই শাহাদাত কুদস এবং ফিলিস্তিন স্বাধীন করতে আল্লাহর ইচ্ছায় আমরা এগিয়ে যাবো।

হানিয়া আরও বলেন, শহীদ সোলাইমানি তার পুরো জীবন ফিলিস্তিনকে রক্ষায় সময় দিয়েছেন। আমি ঘোষণা দিতে চাই শহীদ সোলাইমানি ‘কুদসের একজন শহীদ, কুদসের একজন শহীদ’।