December 8, 2022, 8:20 am
শিরোনামঃ
রাজবাড়ী সদর উপজেলার কৃষি কর্মকর্তার চেয়ার দাবীদার দুই কর্মকর্তা! বালিয়াকান্দিতে এক ব্যক্তির মরদেহ উদ্ধার রাজবাড়ীতে দুই দিন ব্যাপি তথ্য মেলা উদ্বোধন গোয়ালন্দে প্রতিবন্ধীদের মাঝে শীতবস্ত্র ও শিক্ষা উপকরণ সামগ্রী বিতরণ দৌলতদিয়া বাজার ব্যবসায়ী পরিষদের দপ্তর সম্পাদক হলেন সাংবাদিক শেখ রাজীব চার গ্রামের মানুষের চলাচলের একমাত্র ভরসা নড়বড়ে বাশের সাঁকো বালিয়াকান্দিতে কাঠ পোড়ানোর দায়ে দুই ইটভাটা মালিককে জরিমানা-মামলা পাংশায় বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে বিএনপির ১৩ নেতাকর্মীর নামে থানায় মামলা বালিয়াকান্দিতে ডিবির অভিযানে ইয়াবাসহ যুবক গ্রেপ্তার আ.লীগ ও বিএনপি ৩২ বছর ধরে লুটপাট করছে -রাজবাড়ীতে মুজিবুল হক চুন্নু

রাজবাড়ীর পদ্মা নদী তীরবর্তী এলাকায় বাড়ছে গরু চুরির ঘটনা, আতঙ্কে অঞ্চলবাসী

Reporter Name
  • Update Time : রবিবার, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২২
  • 50 Time View
শেয়ার করুনঃ

ইমরান হোসেন মনিম, রাজবাড়ীঃ রাজবাড়ীতে পদ্মা নদী তীরবর্তী এলাকায় বেশ কিছুদিন ধরে গরু চুরির ঘটনা ঘটছে। জেলার চারটি উপজেলার পদ্মা নদী তীরবর্তী হওয়ায় রাতের আধারে গরু চোর চক্র ইঞ্জিন চালিত ট্রলারে করে গরুগুলো চুরি করে দুর জেলা গুলোতে পাচার করছে। গত কয়েক দিনে জেলা সদরের মিজানপুর ইউনিয়নের চারটি গ্রামে বেশ কয়েকটি গরু চুরির ঘটনা ঘটেছে। এতে আতঙ্ক বিরাজ করছে নদী তীরবর্তী জনসাধারনের মাঝে।

রাজবাড়ী জেলার পাঁচটি উপজেলার মধ্যে সদর উপজেলা, গোয়ালন্দ, কালুখালী ও পাংশা এই চারটি উপজেলার ১২টি ইউনিয়ন পদ্মা নদী তীরবর্তী এলাকায় অবস্থিত। বর্ষা মৌসুমে ৪ থেকে ৫ মাস পানি থাকে নদীতে। একারনে এসব এলাকায় গরু চুরির ঘটনা সবচেয়ে বেশি ঘটে। গত কয়েকদিনে জেলা সদরের মিজানপুর ইউনিয়নের চারটি গ্রামের ৫টি বাড়িতে গরু চুরির ঘটনা ঘটেছে। প্রতিটি বাড়ি থেকে ৩ থেকে ৪টি করে গরু চরি করে নিয়ে যায় চোর চক্র। নদীর সন্নিকটে এসব বাড়ির অবস্থান হওয়ায় সহজেই ট্রলারে করে চোর চক্রের সদস্যরা রাতের অন্ধকারে (মাঝ রাতে) এসব গরু গুলো দূরবর্তী জেলা গুলোতে পাচার করছে। এতে এসব এলাকার ক্ষুদ্র গরু খামারি ও বাসিন্দারা চরম আতঙ্কে বসবাস করছেন। প্রশাসনকে গরু চুরির ঘটনা জানালেও প্রশাসনিক কোন ধরনের সহযোগীতা না পেয়ে চুরি ঠেকাতে এলাকাবাসি নিজেদের উদ্যোগে লাইটিং ও পাহারার ব্যাবস্থা করেছেন। রাস্তা ও বাড়ির পাশে মাচা তৈরী ও লাইটিংয়ের ব্যবস্থা করে রাত জেগে পাহারা দিচ্ছেন ভুক্তভোগী মানুষ।

জেলা সদরের মিজানপুর ইউনিয়নের কৃষœপুর গ্রামের হজরত আলী মন্ডল তার পালিত তিনটি গরুর মধ্যে দুটি গরু ছিল দুধের। বাজারে দুধ বিক্রি করে চলত গরু গুলোর লালন পালন ও তার পরিবার। আর্থিক অবস্থা ভালো না থাকায় গরুর ঘর ভালো করে তৈরী করতে পারেনি। গত কয়েকদিন আগে তার সেই ঘরের বেড়া ভেঙ্গে তিনটি গরু চুরি করে নিয়ে যায় চোর চক্র। এতে তার চার লক্ষ টাকার বেশি ক্ষতি হয়েছে। তার মত আরো কয়েক জনের চুরি যাওয়া গরুর মালিক চরনারায়নপুর,বড়চর বেনিনগর, মহাদেবপুর, সিলিমপুর ও মেছোঘাটা এলাকা থেকে রওশন, মোঃ কবির মন্ডল ও আলামিন সহ বেশ কয়েকজনের বাড়ি থেকে বড় আকৃতির ১০টি গরু চুরি হয়। চুরি রোধে এলাকার সবাই এখন রাত জেগে পাহারা দিচ্ছেন। গরু চুরি রোধে প্রশাসনিক হস্তক্ষেপ চান ভুক্তভোগী এসব সাধারন মানুষ।

রাজবাড়ী সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মার্জিয়া সুলতানা বলেন, প্রত্যন্ত কিছু দূরবর্তী এলাকায় গরু চুরির ঘটনা বেড়ে যাচ্ছে বলে তিনি জেনেছেন। বিষয়টি নিয়ে আইনশৃঙ্খলা মিটিংয়ে আলোচনা করেছেন। সমন্বিতভাবে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনি সদস্য সহ এ পরিস্থিতি যতটুকু সমন্বয় করা সম্ভব তা তিনি করবেন বলে জানান।

রাজবাড়ীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. সালাউদ্দিন বলেন, গরু চুরির বিষয়টি তিনি শুনেছেন। তবে ভুক্তভোগী জন সাধারন যদি তাদের কাছে এসে মামলা করে তবে সে মামলা গ্রহন করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ পরিস্থিতি প্রতিরোধ করতে ইতমধ্যে ওইসব এলাকায় রাত্রি কালীন টহল জোরদার করা হয়েছে। সিনিয়র অফিসাররা তা তদারকি করছেন। বিভিন্ন স্থানে চুরিচামারি ও অপরাধ বেড়ে যাওয়ায় পুলিশের পাশাপাশি স্থানীয়দের সম্পৃক্ত করে তা প্রতিরোধের চেষ্টা করে যাচ্ছেন বলে জানান।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
© All rights reserved © 2021 Rajbarimail
DeveloperAsif
themesba-lates1749691102