July 5, 2022, 4:14 pm
শিরোনামঃ
গরু নিয়ে আমাদের আর দৌলতদিয়া ঘাটে অপেক্ষা করতে হয়না ডিবি পুলিশের অভিযানে দৌলতদিয়ায় সাত হাজার ইয়াবাসহ দুইজন গ্রেপ্তার শিক্ষক হত্যা ও লাঞ্ছনার প্রতিবাদে গোয়ালন্দে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত গোয়ালন্দের উজানচর ইউনিয়নে বিট পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত গোয়ালন্দ থানা পুলিশের পৃথক অভিযানে ইয়াবা ও হেরোইনসহ গ্রেপ্তার ৩ রাজবাড়ীতে কৃষকদের মাঝে কৃষি যন্ত্রপাতি ও পিকআপ ভ্যান বিতরন রাজবাড়ী হেল্পলাইন ফাউন্ডেশনের ৪৫ সদস্যের দ্বি-বার্ষিক পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন পাবনার আ.লীগ নেতা গোয়ালন্দে হত্যায় ব্যবহৃত ট্রলার চালক গ্রেপ্তারের পর আদালতে স্বীকারোক্তি গোয়ালন্দে পুলিশের অভিযানে বিভিন্ন মামলার ৫ আসামী গ্রেপ্তার গোয়ালন্দে বাড়ির পুকুরে পরে মানসিক ভারসাম্যহীন শিশুর মৃত্যু

রাজবাড়ীতে পেঁয়াজের দাম বাড়লেও লোকসানে চাষিরা

Reporter Name
  • Update Time : সোমবার, মে ১৬, ২০২২
  • 46 Time View
শেয়ার করুনঃ

কামাল হোসেন, রাজবাড়ী থেকেঃ দেশীয় চাষিদের কথা বিবেচনা করে পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ করেছে সরকার। এর ফলে খুচরা ও পাইকারি পর্যায়ে কেজি প্রতি প্রায় ১৫-২০টাকা পর্যন্ত বেড়েছে পেঁয়াজের দাম। তবে চাষিদের দাবী প্রতি কেজি পেঁয়াজ উৎপাদনে প্রায় ৩০-৩৫ টাকা খরচ হলেও গ্রামের বাজারে পেঁয়াজ কেজি প্রতি ৫-৭ টাকা বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৩০-৩২টাকায়। ফলে প্রতি কেজি পেঁয়াজ বিক্রি করে চাষিদের লোকসান গুনতে হচ্ছে ৩-৫টাকা পর্যন্ত।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, রাজবাড়ী থেকে প্রতিদিন গড়ে ৭০০-৮০০ মেট্রিকটন পেঁয়াজ দেশের বিভিন্ন জেলায় বিক্রি হয়। এ বছর জেলায় ৩২হাজার হেক্টর জমিতে পেঁয়াজ চাষ হয়েছে। দেশের উৎপাদিত মোট পেঁয়াজের ১৪ শতাংশ এ জেলায় উৎপাদিত হয়।

সরেজমিন রাজবাড়ীর বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা যায়, গ্রামীণ বাজারে প্রথম দিকে প্রতি কেজি পেঁয়াজ চাষিরা বিক্রি করেছে প্রকার ভেদে ২৫-২৭ টাকায় অর্থাৎ প্রতিমণ পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে ১০০০-১০৮০ টাকায়। সরকার পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ করার পর বর্তমানে বেড়ে দাড়িয়েছে প্রতি কেজি ৩০-৩২টাকায় অর্থাৎ প্রতিমণ পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১২০০-১২৮০ টাকা। স্থানীয় ব্যবসায়ীরা এ পেঁয়াজ ক্রয় করে ঢাকাসহ বিভিন্ন বাজারে নিয়ে বিক্রি করবে ৩১-৩৩ টাকা অর্থাৎ মনপ্রতি ১২৪০-১৩২০ টাকা দরে।

তবে এই দামে পেঁয়াজ বিক্রি করে মোটেও খুশি নয় চাষিরা। চাষীদের দাবি জ্বালানী তেল, শ্রমিক, সার কীটনাশকের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় উৎপাদন খরচ অন্য বছরের তুলনায় এবছর বেড়েছে। এবছর এক কেজি পেঁয়াজের উৎপাদন খরচ পরেছে ৩০-৩৫ টাকা। সেখানে প্রকার ভেদে বিক্রি হচ্ছে ২৫-২৭ এবং ৩০-৩২ টাকা কেজি দরে। পেঁয়াজ ঘরে রেখে দিলে ওজন কমতে থাকে। আবার গত এক সপ্তাহ ধরে বৃষ্টিপাত থাকার কারনে অনেক কৃষকের পেঁয়াজ পচে যাচ্ছে। আবহাওয়া অনুকুলে না থাকায় পেঁয়াজের ফলন আশানুরুপ হয়নি। অনেক কৃষক বলছেন এভাবে লোকসান হলে আগামী বছর অন্য ফসল আবাদ করতে হবে। চাষীদের দাবি প্রতিমন পেঁয়াজ ১৫শ টাকা দরে বিক্রি করতে পারলে আসল টাকা উঠবে।

পাংশা উপজেলার সরিষা ইউনিয়নের কৃষক হাসান আলী জানান, এক শতক জমি এক বছরের জন্য লিজ (ভাড়া) নিতে হয় ১২০০ টাকা দিয়ে। সেই জমিতে পেঁয়াজ চাষ করে যদি এক হাজার টাকা মন বিক্রি করতে হয় তাহলে কিছুই থাকে না। ঈদের আগে দুইদিন হাটে পেঁয়াজ নিয়ে ফিরে এসেছি, বিক্রি করতে পারিনি। ঈদের পরে বাধ্য হয়ে ৯৮০টাকা মণ দরে পেঁয়া বিক্রি করে দিয়েছি।

রাজবাড়ীর সদরের কোলার হাট বাজারে পেঁয়াজ বিক্রি করতে আসা কৃষক আকুল শেখ জানান, কৃষক মরে গেলেও কেউ দেখে না। এবছর পেঁয়াজ চাষ করতে গিয়ে একদম শেষ। লাভ তো হবেই না সারা বছর কিস্তি দিবো কি করে সেই চিন্তাই আছি। একমণ পেঁয়াজ যদি ১৫০০ টাকায় বিক্রি করতে পারতাম তাহলে লাভ না আসল থাকতো।

ব্যবসায়ী দোলোয়ার সরদার জানান, আমাদের ঢাকা থেকে মহাজন যে দাম বলে দেয় তার থেকে কেজিতে তিন টাকা থেকে সাড়ে তিন টাকা কমে আমরা পেঁয়াজ কিনে থাকি। আমাদের গাড়ী ভাড়া দিয়ে ঢাকা পাঠাতে কেজি প্রতি আড়াই টাকার বেশি খরচ হয়।

রাজবাড়ী কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক এসএম শহিদ নূর আকবর জানান, কৃষকের এক কেজি পেঁয়াজ উৎপাদনে সব কিছু মিলে খরচ হয়েছে ২১ টাকা। মৌসুমের প্রথম দিকে পেঁয়াজে লোকসান হলেও এখন কৃষক পেঁয়াজ বিক্রি করে লাভবান হচ্ছে।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category
© All rights reserved © 2021 Rajbarimail
DeveloperAsif
themesba-lates1749691102