May 21, 2022, 12:15 am
শিরোনামঃ
রাজবাড়ীতে শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় উত্তর সরবরাহকারী চক্রের ১৩ সদস্য আটক গোয়ালন্দে পদ্মার ভাঙনঃ থেমে আছে ঘাট আধুনিকায়ন কাজ রাজবাড়ীতে টিকা সপ্তাহ উপলক্ষে প্রশিক্ষণ কর্মশালা কালুখালীতে ভর্তুকি মূল্যে কৃষি যন্ত্রাংশ ক্রয়ে অনিয়মের অভিযোগ রাজবাড়ীতে দ্বিতীয় শ্রেনীর শিশু শিক্ষার্থী ধর্ষন, ধর্ষক গ্রেপ্তার দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌপথঃ তিন ফেরি বিকল, ঘাট এলাকায় পণ্যবাহী গাড়ির চাপ গোয়ালন্দে হেরোইনসহ তরুণ গ্রেপ্তার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল রাজবাড়ীতে শব্দ দূষণ নিয়ন্ত্রনে সচেতনতামূলক সভা রাজবাড়ীর পুলিশ পরিদর্শক অধীর চন্দ্র রায়ের বদলি জনিত বিদায় সংবর্ধনা

টিসিবির উপকার ভোগীর সংখ্যা বাড়ানোর দাবী গোয়ালন্দ উপজেলা চেয়ারম্যানের

Reporter Name
  • Update Time : সোমবার, এপ্রিল ১১, ২০২২
  • 77 Time View
শেয়ার করুনঃ

শামীম শেখ, গোয়ালন্দঃ সারা দেশের ন্যায় রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে পবিত্র রমজান মাস উপলক্ষে টিসিবির কার্যক্রম চলছে।এখানে চারটি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা মিলে মোট উপকার ভোগীর সংখ্যা ৯ হাজার ৭৫৪ জন।তবে এ সংখ্যা বাড়ানোর দাবী জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

সোমবার বিকেলে (১১ এপ্রিল) দ্বিতীয় ধাপে টিসিবির পণ্য বিক্রিকালে উপজেলার কয়েকটি বিক্রয় কেন্দ্র পরিদর্শন করেন গোয়ালন্দ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মো. মোস্তফা মুন্সি। প্রতিটি কেন্দ্রে নির্ধারিত টিসিবির কার্ড ধারী ছাড়াও আরো বহু লোককে টিসিবির পণ্য কিনতে ভীর করতে দেখা যায়। এ সময় জনপ্রতিনিধি, টিসিবির ডিলার ও সাধারন জনগন টিসিবির উপকার ভোগীদের সংখ্যা বাড়ানো ও এ কার্যক্রম চলমান রাখার দাবী জানান।

জানা গেছে, গত ২২ মার্চ উপজেলায় টিসিবির কার্যক্রম শুরু হয়। ওইদিন হতে অদ্যবধি প্রতি উপকার ভোগীকে দুইবার করে পণ্য দেওয়া হয়েছে। ৫৬০ টাকা পণ্যের প্যাকেজে রয়েছে প্রতি লিটার ১১০ টাকা দরে ২ লিটার সয়াবিন তেল, ৫৫ টাকা কেজি দরে ২ কেজি চিনি, ৬৫ টাকা কেজি দরে ২ কেজি মসুর ডাল ও ৫০ টাকা কেজি দরে ২ কেজি করে ছোলা। মের্সাস শাপলা ট্রেডার্স ও মেসার্স জামান ট্রেডার্স নামের স্থানীয় দুইটি প্রতিষ্টান ১৫ টি কেন্দ্র হতে পণ্যগুলো বিক্রি করছে।

পণ্য কিনতে আসা উজানচরের বাসিন্দা আব্দুর রহিম, খালেক শেখ, ছকিনা বেগম, কুলছুম বেগম, ছোট ভাকলার আলামীন, কুরবান শেখ, আজাহার ব্যাপারী, দৌলতদিয়ার রুবি বেগম, আবুল কাশেম সহ অনেকেই বলেন, তারা অতি দরিদ্র মানুষ। টিসিবির কথা শুনে কম দামে পণ্য কিনতে এসেছেন। কিন্তু ডিলারের তালিকায় নাম না থাকায় পণ্য কিনতে পারেননি।আমাদের মতো আরো বহু মানুষ রয়েছে তাদেরকে তালিকা ভুক্ত করে সারা বছরই এ কার্যক্রম চালু থাকা দরকার।

পরিদর্শনকালে ছোটভাকলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আমজাদ হোসেন বলেন, টিসিবির পণ্যেও ব্যাপক চাহিদা রয়েছে।তার ইউনিয়নে ১ হাজার ৪৯০ জন নিন্ম আয়ের মানুষ এ সুবিধা পাচ্ছে। এ সংখ্যা আরো বাড়ানো সম্ভব হলে ভালো হতো।

উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. মোস্তফা মুন্সি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী পবিত্র রমজান মাসে প্রতিটি ইউনিয়ন পর্যায়ে টিসিবির কার্যক্রম চালু করার মাধ্যমে অত্যান্ত মানবিকতার পরিচয় দিয়েছেন। প্রতিটি বিক্রয় কেন্দ্র হতে সুশৃংখল ভাবে এ পণ্য সামগ্রী বিক্রি করা হচ্ছে।নিম্ন ও মধ্যবিত্ত পরিবারের মধ্যে টিসিবির পণ্যের ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। নদী ভাঙন কবলিত এই উপজেলায় টিসিবির উপকার ভোগীর সংখ্যা আরো বাড়ানো সম্ভব হলে ভালো হতো। আমি এ বিষয়ে প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট উর্ধতন কতৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করছি।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category
© All rights reserved © 2021 Rajbarimail
Developed by POS Digital
themesba-lates1749691102