September 20, 2021, 6:09 am
Title :
রাজবাড়ী পোল্ট্রি ফিড ও মেডিসিন পরিবেশক সমিতির কমিটি গঠন গোয়ালন্দ উপজেলা কমপ্লেক্স সম্প্রসারণ প্রকল্পের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন দফাদার ও মহল্লাদারদের মাঝে বাইসাইকেল বিতরণ করলেন এমপি বালিয়াকান্দি উপজেলা আওয়ামী লীগের সংবাদ সম্মেলন প্রয়াত জনপ্রিয় শিক্ষক, ব্যবসায়ী আমিনুল হক এর ২৩তম মৃত্যুবার্ষিকী হল বিমুখ দর্শকঃ রাজবাড়ীর সাধনা হলে দর্শক মাত্র তিন জন! গোয়ালন্দে আ.লীগ সভাপতি মোস্তফা মুন্সি ও সাধারণ সম্পাদক বিপ্লব ঘোষকে পূর্ণাঙ্গ দায়িত্ব প্রদান পদ্মা নদীর এক কাতল মাছ জেলে বিক্রি করলো ২৫ হাজার টাকায় চাঁদাবাজি ও শৃঙ্খলা ভঙের অভিযোগে দৌলতদিয়া ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক বহিস্কার রাজবাড়ীতে অভিভাবকদের ভিড়ে শিক্ষার্থীদের সংক্রমণ বাড়ার শঙ্কা

কর্ণফুলী টানেলের কাজে দ্রুত গতি: টার্গেট নির্ধারিত সময়ে শেষ করা

Reporter Name
  • Update Time : শনিবার, ডিসেম্বর ২৮, ২০১৯
  • 50 Time View
শেয়ার করুনঃ

প্রত্যাশাকে ছাড়িয়ে চলছে চট্টগ্রামের অন্যতম মেগা প্রকল্প বঙ্গবন্ধু টানেলের (কর্ণফুলী টানেল) কাজের গতি। এরই মধ্যে প্রকল্পের মোট কাজের প্রায় ৫৫ শতাংশ অগ্রগতি হয়েছে। প্রকল্প সংশ্লিষ্টদের দাবি, নির্ধারিত সময়ের আগে শেষ হবে টানেলের নির্মাণ কাজ। তাই নির্ধারিত সময়ের আগেই ‘ওয়ান সিটি টু টাউন’ যুগে প্রবেশ করছে চট্টগ্রাম তথা বাংলাদেশ।

টানেলের প্রকল্প পরিচালক প্রকৌশলী হারুনুর রশিদ চৌধুুরী বলেন, ‘টানেল নির্মাণের কাজ দ্রুত গতিতে চলছে। কাজের সার্বিক অগ্রগতি নিয়ে আমরা সন্তুষ্ট। এ পর্যন্ত প্রকল্পের প্রায় ৫৫ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে। আশা করছি, নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়না কমিউনিকেশন অ্যান্ড কনস্ট্রাকশন কোম্পানি লিমিটেড (সিসিসিসি) কাজ শেষ করতে পারবে।’ জানা যায়, চট্টগ্রামের অন্যতম মেগা প্রকল্প কর্ণফুলী টানেলের কাজ প্রত্যাশিত সময়ের চেয়ে দ্রুততায় চলছে। নদীর তলদেশে বিরামহীন চলছে দুই টিউব বসানোর কাজ। এরই মধ্যে নদীর তলদেশে ১২২০ মিটার খনন করা হয়েছে। বসানো হয়েছে ৬১০টি রিং। পূর্ব প্রান্তে ওয়ার্কিং শাফট এবং কার্ট অ্যান্ড কভার, রোটারি জেট গ্রাউটিং এবং ডায়াফ্রাম ওয়ালের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। কর্ণফুলী নদীর পশ্চিম ও পূর্ব প্রান্তে অ্যাপ্রোচ সড়ক ও ওভারব্রিজ তৈরির কাজও চলছে বিরামহীন। দ্রুততার সঙ্গে চলছে ওপেন কাট, অ্যাপ্রোচ রোড নির্মাণের কাজ। আনোয়ারা প্রান্তে স্থায়ী বৈদ্যুতিক লাইন নির্মাণের কাজসহ সাবস্টেশন নির্মাণের কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। পতেঙ্গা অংশে জি-১ এবং জি-২ রোডের কাজও চলছে। সব মিলিয়ে কাজের অগ্রগতি ৫৫ শতাংশ বলে জানান সংশ্লিষ্টরা। চট্টগ্রামের গুরুত্বপূর্ণ নদী চট্টগ্রাম শহর ও আনোয়ারা উপজেলাকে বিভক্ত করেছে। এ নদীর এক তীরে রয়েছে নগর ও চট্টগ্রাম বন্দর। অপর পাশে আনোয়ারা উপজেলায় রয়েছে ভারী শিল্প এলাকা। নদীর মরফলজিক্যাল বৈশিষ্ট্য অনুযায়ী কর্ণফুলী নদীর তলদেশে পলি জমা একটি বড় সমস্যা এবং চট্টগ্রাম বন্দরের কার্যকারিতার জন্য বড় হুমকি। এসব সমস্যা মোকাবিলায় কর্ণফুলী নদীর ওপর আর কোনো সেতু নির্মাণ না করে এর তলদেশে টানেল নির্মাণ করা হচ্ছে। সরকার চট্টগ্রাম জেলার দুই অংশকে সংযুক্ত করার জন্য কর্ণফুলী নদীর তলদেশে টানেল নির্মাণের সিদ্ধান্ত নেয়। ৩ দশমিক ৪ কিলোমিটার টানেল নির্মাণ প্রকল্পটি ২০১৫ সালের নভেম্বরে অনুমোদন পায়। এটি নির্মাণে ব্যয় ধরা হয়েছে ৯ হাজার ৮৮০ কোটি টাকা। যার মধ্যে প্রকল্প ঋণ হিসেবে চাইনিজ এক্সিম ব্যাংক ৫ হাজার ৯১৩ কোটি টাকার অর্থায়ন করছে। বাকি টাকা বাংলাদেশ সরকার ব্যয় করবে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
© All rights reserved © 2021 Rajbarimail
Developed by POS Digital
themesba-lates1749691102